জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করতে প্রয়োজন ১২০ রান
jugantor
জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করতে প্রয়োজন ১২০ রান

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১১ মার্চ ২০২০, ১৯:৩৪:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করতে টাইগারদের প্রয়োজন ১২০ রান। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম খেলায় এর আগে ৪৮ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ।

তার আগে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে জিম্বাবুয়েকে ৩-০ ব্যবধানে মগজধোলায় করে টাইগাররা। তারও আগে একমাত্র টেস্টে ইনিংস ও ১০৬ রানের ব্যবধানে জয় পায় স্বাগতিক বাংলাদেশ। 

বুধবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমেই বিপাকে পড়ে যায় সফরকারী জিম্বাবুয়ে। দলীয় ১২ রানে ওপেনার টিনাশে কামুনহুকামুয়ের উইকেট তুলে নেন আল-আমিন হোসেন। 

এরপর ক্রেগ আরভিনকে সঙ্গে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ৫৭ রানের জুটি গড়েন ওপেনার ব্রেন্ডন টেলর। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা এ জুটি ভাঙেন আফিফ হোসেন। ৩৩ বলে ৩টি চারে ২৯ রান করা আরভিনকে আউট করেন আফিফ।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারে নিজের চতুর্থ ম্যাচে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক শেন উইলিয়ামসকে আউট করে প্রথম সাফল্য পান জাতীয় দলের তরুণ লেগ স্পিনার মেহেদী হাসান। তার শিকারে পরিনত হওয়ার আগে মাত্র ৩ রান করার সুযোগ পান জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক। 

আগের ম্যাচে ১০ রান করা সিকান্দার রাজাকে এদিন ১২ রানের বেশি করতে দেননি মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তার বলে ফাইন লেগে আল-আমিনের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন সিকান্দার। 
রিচমন্ড মুতুম্বামিকে মাত্র ১ রানে আউট করেন আল-আমিন হোসেন।

দলীয় ১০৮ রানে টিনোটেন্ডা মুতোম্বোজিকে ক্যাচ তুলতে বাধ্য করেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। তবে ব্যাটিং বিপর্যয়ের ম্যাচে বাড়তি দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়েয়েছেন জিম্বাবুয়ের সাবেক অধিনায়কও দলটির ওপেনার ব্রেন্ডন টেলর। ৪৮ বলে ৬টি চার ও এক ছক্কায় অপরাজিত ৫৯ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তার ফিফটির সৌজন্যে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১১৯ রান করতে সক্ষম হয় জিম্বাবুয়ে।  

সংক্ষিপ্ত স্কোর

জিম্বাবুয়ে: ২০ ওভারে ১১৯/৭ (টেলর ৫৯*, আরভিন ২৯, সিকান্দার রাজা ১২, কামুনহুকামুয়ে ১০; আল-আমিন ২/২২, মোস্তাফিজ ২/২৫)।

জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করতে প্রয়োজন ১২০ রান

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১১ মার্চ ২০২০, ০৭:৩৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করতে টাইগারদের প্রয়োজন ১২০ রান। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম খেলায়এর আগে ৪৮ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ।

তার আগে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে জিম্বাবুয়েকে ৩-০ ব্যবধানে মগজধোলায় করে টাইগাররা। তারও আগে একমাত্র টেস্টে ইনিংস ও ১০৬ রানের ব্যবধানে জয় পায় স্বাগতিক বাংলাদেশ।

বুধবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমেই বিপাকে পড়ে যায় সফরকারী জিম্বাবুয়ে। দলীয় ১২ রানে ওপেনার টিনাশে কামুনহুকামুয়ের উইকেট তুলে নেন আল-আমিন হোসেন।

এরপর ক্রেগ আরভিনকে সঙ্গে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে ৫৭ রানের জুটি গড়েন ওপেনার ব্রেন্ডন টেলর। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা এজুটি ভাঙেন আফিফ হোসেন। ৩৩ বলে ৩টি চারে ২৯ রান করা আরভিনকে আউট করেন আফিফ।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারে নিজের চতুর্থ ম্যাচে জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক শেন উইলিয়ামসকে আউট করে প্রথম সাফল্য পান জাতীয় দলের তরুণ লেগ স্পিনার মেহেদী হাসান। তার শিকারে পরিনত হওয়ার আগে মাত্র ৩ রান করার সুযোগ পান জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক।

আগের ম্যাচে ১০ রান করা সিকান্দার রাজাকে এদিন ১২ রানের বেশি করতে দেননি মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। তার বলে ফাইন লেগে আল-আমিনের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন সিকান্দার।
রিচমন্ড মুতুম্বামিকে মাত্র ১ রানে আউট করেন আল-আমিন হোসেন।

দলীয় ১০৮ রানে টিনোটেন্ডা মুতোম্বোজিকে ক্যাচ তুলতে বাধ্য করেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান। তবে ব্যাটিং বিপর্যয়ের ম্যাচে বাড়তি দায়িত্বশীলতার পরিচয়দিয়েয়েছেন জিম্বাবুয়ের সাবেক অধিনায়কও দলটির ওপেনার ব্রেন্ডন টেলর। ৪৮ বলে ৬টি চার ও এক ছক্কায়অপরাজিত ৫৯ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তার ফিফটির সৌজন্যে২০ ওভারে ৭ উইকেটে১১৯ রান করতে সক্ষম হয়জিম্বাবুয়ে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

জিম্বাবুয়ে: ২০ ওভারে ১১৯/৭ (টেলর ৫৯*, আরভিন ২৯, সিকান্দার রাজা ১২,কামুনহুকামুয়ে ১০; আল-আমিন ২/২২, মোস্তাফিজ ২/২৫)।

 

ঘটনাপ্রবাহ : জিম্বাবুয়ের বাংলাদেশ সফর -২০২০