সহজে টাকা কামাই করতে চাওয়া ক্রিকেটারদের ধিক্কার ওয়াকারের

  স্পোর্টস ডেস্ক ০৭ এপ্রিল ২০২০, ১৪:৪৪:০০ | অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানের বোলিং কোচ ওয়াকার ইউনিস মনে করেন, টি-টোয়েন্টি লিগ খেলে ক্রিকেটারদের হাতে সহজে অর্থ চলে আসে। এ কারণে টি-টোয়েন্টির চাহিদা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে, যা অনেক সময় খেলোয়াড়দের দেশের স্বার্থে খেলার আগ্রহ নষ্ট করে দিচ্ছে।

তিনি বলেন, মোহাম্মদ আমির ও ওয়াহাব রিয়াজের গত বছর লাল বলের ক্রিকেট ছাড়ার সিদ্ধান্ত এমনই একটি উদাহরণ। তাদের ব্যক্তিগত লক্ষ্যগুলো জাতীয় দলের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলবে। মাত্র ২৭ বছর বয়সে টেস্ট থেকে আমিরের অবসরের সিদ্ধান্তে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল।

সোমবার সাংবাদিকদের ওয়াকার বলেন, এ লিগগুলো খেলোয়াড়দের সহজে অর্থ আয়ের অফার দেয়। যেখানে কেবল ৪ ওভার বল করতে হবে বলে স্বাচ্ছন্দ্যে থাকতে পারে।

তিনি বলেন, নিজেদের সুবিধার জন্য খেলোয়াড়রা বুঝতে পারে না দেশের কতটা ক্ষতি করে ফেলছে। জাতীয় স্বার্থের কথা ভাবে না তারা। বড় দিকটা দেখে না ওরা।

আমির ও ওয়াহাব যেভাবে তাদের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন, সেটির সমালোচনাও করেন ওয়াকার। পাক কিংবদন্তি স্পিডস্টার বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রিকেটের লংগার ভার্সন থেকে অবসরের ঘোষণা করেছে তারা। যেটি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে (পিসিবি) আঘাত করে। তাদের আগে বোর্ডকে অবহিত করা উচিত ছিল। পূর্বেই এটি নিয়ে আলোচনা করা উচিত ছিল দুজনেরই। দুর্ভাগ্যজনকভাবে ওদের এ সিদ্ধান্তের কারণে আমাদের কিছুটা ভুগতে হয়েছিল।

৪৮ বছর বয়সী পেস বোলিং কোচ বলেন, তবে আমি বলব না যে আমরা হেরেছি বা কিছু হারিয়েছি। যদি তারা সিদ্ধান্ত ঠিকঠাকভাবে নিয়ে থাকে, তবে তাদের বিরুদ্ধে আমাদের কোনো রাগ নেই। আমার এখনও মনে হয়, আমির-ওয়াহাবের দুজনেরই ক্রিকেট বাকি আছে।

ওয়াকার বলেন, পাকিস্তানের হয়ে নির্বাচিত হলে তাদের সাদা বলের ক্রিকেট খেলা চালিয়ে যাওয়া উচিত। হ্যাঁ, তারা সেই সময় একটি কঠিন পরিস্থিতিতে দল ছেড়েছিল। তিনি জানান, টেস্ট ক্রিকেট ছাড়তে আগ্রহী খেলোয়াড়দের অবশ্যই বোর্ড ও ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে কথা বলতে হবে-সে রকম নিয়ম তৈরি করছেন এখনকার প্রধান কোচ ও নির্বাচক মিসবাহ-উল হক। যাতে সেই খবর তাদের কাছে থাকে।

রিভার্স সুইং মাস্টার বলেন, আমি মনে করি টেস্ট ক্রিকেট ছাড়তে চাওয়া ক্রিকেটারদের জন্য একটা নির্দিষ্ট নিয়ম থাকা উচিত। যদিও আইনত আমরা কাউকে জোর করতে পারি না। তবে ক্রিকেটারদের বোর্ডের সঙ্গে কথা বলেই সিদ্ধান্ত নেয়া উচিত। কারণ এটি দলের ক্ষতি করে।

তথ্যসূত্র: এনডিটিভি

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত