বাউন্সার! কুছ পরোয়া নেহি : সুনীল গাভাসকার

  স্পোর্টস ডেস্ক ০৪ জানুয়ারি ২০১৮, ১৭:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

সুনীল গাভাসকার

ফিঞ্চ হাটনস— কেনিয়ার অন্যতম সেরা ক্রীড়া রিসর্টে বর্ষবরণ করলাম। আমার সঙ্গে ছিল দুনিয়ার অন্যতম ভয়ঙ্কর ফাস্ট বোলার মাইকেল হোল্ডিং, যাঁর সঙ্গে অসাধারণ এক অভিজ্ঞতার সাক্ষী থাকলাম। এখনও ক্রিকেটের অনেক বিষয় নিয়ে হোল্ডিংয়ের পরামর্শ নেওয়া হয়।

অনেক বছর হল ও দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট কভার করছে। তাই ও যখন বলছে আসন্ন ভারত দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজটা দুর্দান্ত হতে চলেছে, তখন ভারতের ক্রিকেটপ্রেমীরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতেই পারেন। কারণ, এর আগে কয়েকটা সফরে দেখা গেছে, অনেক প্রতিশ্রুতি নিয়ে আফ্রিকায় পাড়ি দিলেও ঠিক সময়ে নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি ভারতীয় দল। কিন্তু এবার ঘটনাপ্রবাহ যা বলছে, তাতে ভারতের প্রথমবার সিরিজ জিতে ইতিহাস সৃষ্টি করার সুযোগ রয়েছে।

বনে–জঙ্গলে থাকলে আপনি সহজেই একটা গাছ বা ঝোপঝাড়ের নড়াচড়াতে বোকা বনে যেতে পারেন। একমাত্র অভিজ্ঞ ড্রাইভার বা গাইড থাকলেই সে আপনাকে পথ দেখাতে পারবে। এই ভারতীয় দলেরও ব্যাটিং আর বোলিংয়ে সেরকমই অভিজ্ঞতা রয়েছে। ওরা কিন্তু সহজেই বাউন্সারে ঘাবড়ে যাওয়ার পাত্র নয়।

যে ওপেনাররা আগেরবার ভয়ঙ্কর পিচে ডেল স্টেন কিংবা মর্নি মর্কেলকে সামলেছিল, তারা কিন্তু যথেষ্ট সফল হয়েছে। ‘দুর্গের মতো’ দাঁড়িয়ে থাকা চেতেশ্বর পুজারাও কিন্তু এখানে বড় সেঞ্চুরি পেয়েছে। ওয়ান্ডারার্সে বিরাট প্রায় দু’ইনিংসেই সেঞ্চুরি পেয়েছিল। রাহানে হয়তো এখন সেরা ফর্মে নেই, কিন্তু বিদেশের মাটিতে ওর যা পারফরমেন্স, তাতে বাকিদের হিংসে হতে পারে। তাই বাউন্সারে কুছ পরোয়া নেহি।

বোলাররাও এখানে আগে খেলে গেছে। তাই শুধুমাত্র বাউন্সি পিচ এবং উইকেটকিপার কাঁধের ওপরে বল ধরছে, এটা দেখে আত্মতুষ্ট হলে চলবে না। ওরা জানে লাইন–লেংথ ঠিক রাখলে শিকার আপনিই এসে ধরা দেবে, তার সঙ্গে মাঝে মাঝে অল্প করে বাউন্সারও মিশিয়ে দিতে হবে। স্পিনাররাও জানে যে ভারতের মতো এতটা ঘূর্ণি ওরা এখানকার পিচে পাবে না। তাই এ ধরনের পিচে ফ্লাইট এবং অতিরিক্ত বাউন্সের ওপরেই ওদের নির্ভর করে থাকতে হবে।

দক্ষিণ আফ্রিকা বেশ আত্মবিশ্বাসী। ওরা শুধু ঘরের মাঠে খেলছে বলেই নয়, পুরো শক্তি নিয়ে নামছে। সবথেকে বড় প্রাপ্তি সম্ভবত এবি ডি’ভিলিয়ার্সকে পাওয়া, যে ওদের ব্যাটিংকে আরও মজবুত করে তুলবে। যদি কোনও দুর্বলতা থাকে, তাহলে সেটা ওদের টপ অর্ডার। কারণ ডিন এলগার এবং তরুণ মারক্রাম খুব বেশিদিন একসঙ্গে খেলেনি। জোরে বোলিং এবারও দক্ষিণ আফ্রিকার অন্যতম অস্ত্র হতে চলেছে। পাশাপাশি বাঁহাতি স্পিনার কেশব মহারাজ সাম্প্রতিককালে ভালই উইকেট পাচ্ছে। যা ভারতীয় স্পিনারদের কাছে খুশির খবর হতে পারে।

একটা মুখরোচক সিরিজ হতে চলেছে। আর তর সইছে না। সুত্র: আজকাল

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter