গম্ভীরের সাধারণ জীবনযাপন পছন্দ হয় নাতাশার, তারপর...
jugantor
গম্ভীরের সাধারণ জীবনযাপন পছন্দ হয় নাতাশার, তারপর...

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৩ মে ২০২০, ১৭:০৮:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের সাবেক ওপেনার গৌতম গম্ভীরের প্রেমগাঁথা খুব একটা রোমাঞ্চকর নয়। পারিবারিক বন্ধুত্ব থেকে নাতাশা জৈনের সঙ্গে তার পরিচয়, সেখান থেকে একে অপরকে ভালো লাগা, অতপর বিয়ে। এখন দুই কন্যা সন্তান নিয়ে তাদের সুখের সংসার। তবু এ দম্পতির প্রেমকাহিনীতে একটা বাঁধুনি রয়েছে।

গম্ভীর ও নাতাশার বাবা বেশ নামকরা ব্যবসায়ী। সেই সূত্রেই দুই পরিবারের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। পরিপ্রেক্ষিতে একে অপরের সঙ্গে পরিচয় হয়। প্রথমে তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে।

এরপর দেখা করতে শুরু করেন গম্ভীর ও নাতাশা। ধীরে ধীরে বন্ধুত্ব গড়ায় প্রণয়ে। ২০১১ সালে প্রেমে পড়েন তারা।

২০০৯ সালে ভারতীয় দলে পাকাপাকিভাবে জায়গা করে নেন গম্ভীর। শুধু তাই নয়, ইতিমধ্যে তারকাখ্যাতি পেয়ে যান তিনি। ঠিক সেসময়ই তাকে খুব কাছ থেকে দেখেন নাতাশা। সেলেব্রেটি হয়েও বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের সাধারণ জীবনযাপন ভালো লাগে তার। সেই কথা পরে জানিয়েছেন তিনি।

নাতাশার মধ্যেও নিজেকে খুঁজে পান গম্ভীর। নিজে মাটির কাছাকাছি থাকতে পছন্দ করেন। জীবন সঙ্গী সেরকম হোক, প্রত্যাশা করেন তিনি। প্রেমিকার মধ্যে সেসব গুণই পান ভারতীয় ব্যাটার।

২০১১ সালে ঘরের মাঠে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতে ভারত। সেই টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেন গম্ভীর। বিশ্ব আসর শেষ হওয়ার পরই নাতাশাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। দুই পরিবারও তাতে সম্মতি দেন। ওই বছরের ২৯ অক্টোবর বিবাহবন্ধনে অবদ্ধ হন তারা।

তথ্যসূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া

গম্ভীরের সাধারণ জীবনযাপন পছন্দ হয় নাতাশার, তারপর...

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৩ মে ২০২০, ০৫:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের সাবেক ওপেনার গৌতম গম্ভীরের প্রেমগাঁথা খুব একটা রোমাঞ্চকর নয়। পারিবারিক বন্ধুত্ব থেকে নাতাশা জৈনের সঙ্গে তার পরিচয়, সেখান থেকে একে অপরকে ভালো লাগা, অতপর বিয়ে। এখন দুই কন্যা সন্তান নিয়ে তাদের সুখের সংসার। তবু এ দম্পতির প্রেমকাহিনীতে একটা বাঁধুনি রয়েছে।

গম্ভীর ও নাতাশার বাবা বেশ নামকরা ব্যবসায়ী। সেই সূত্রেই দুই পরিবারের মধ্যে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। পরিপ্রেক্ষিতে একে অপরের সঙ্গে পরিচয় হয়। প্রথমে তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে।

এরপর দেখা করতে শুরু করেন গম্ভীর ও নাতাশা। ধীরে ধীরে বন্ধুত্ব গড়ায় প্রণয়ে। ২০১১ সালে প্রেমে পড়েন তারা।

২০০৯ সালে ভারতীয় দলে পাকাপাকিভাবে জায়গা করে নেন গম্ভীর। শুধু তাই নয়, ইতিমধ্যে তারকাখ্যাতি পেয়ে যান তিনি। ঠিক সেসময়ই তাকে খুব কাছ থেকে দেখেন নাতাশা। সেলেব্রেটি হয়েও বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের সাধারণ জীবনযাপন ভালো লাগে তার। সেই কথা পরে জানিয়েছেন তিনি।

নাতাশার মধ্যেও নিজেকে খুঁজে পান গম্ভীর। নিজে মাটির কাছাকাছি থাকতে পছন্দ করেন। জীবন সঙ্গী সেরকম হোক, প্রত্যাশা করেন তিনি। প্রেমিকার মধ্যে সেসব গুণই পান ভারতীয় ব্যাটার।

২০১১ সালে ঘরের মাঠে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতে ভারত। সেই টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেন গম্ভীর। বিশ্ব আসর শেষ হওয়ার পরই নাতাশাকে বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। দুই পরিবারও তাতে সম্মতি দেন। ওই বছরের ২৯ অক্টোবর বিবাহবন্ধনে অবদ্ধ হন তারা।

তথ্যসূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া