যে 'অস্ত্র' ওয়াসিম-ওয়াকারকে বিপজ্জনক করে তুলেছিল
jugantor
যে 'অস্ত্র' ওয়াসিম-ওয়াকারকে বিপজ্জনক করে তুলেছিল

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২২ মে ২০২০, ১৪:৫৮:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তান ক্রিকেট ইতিহাসে অন্যতম সেরা দুই পেসার ওয়াসিম আকরাম ও ওয়াকার ইউনিস। খেলোয়াড়ি জীবনে তাদের জুটিকে বলা হতো ‘টু ডব্লিউ’। দুজনই প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কাছে ছিলেন ত্রাস।  

একসঙ্গে বিশ্বের যে কোনো শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপকে ধসিয়ে দিতে পারতেন তারা। এমনকি একক নৈপুণ্যেও সেটি করে দেখাতে সিদ্ধহস্ত ছিলেন ওয়াসিম-ওয়াকার।

তো তাদের ঝুলিতে কী ‘অস্ত্র’ ছিল? যা দিয়ে ক্রিকেট দুনিয়ার বাঘা ব্যাটারদের ‘প্রাণনাশ’ করতেন তারা। এবার সেই রহস্যই উন্মোচন করলেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি সরফরাজ নওয়াজ। 

তিনি বলেন, ওয়াসিম নতুন বলে 'আতঙ্ক' ছিল। শুরুতেই উইকেটের দুদিকে সুইং করাতে পারত সে। আর ওয়াকার পুরনো বলে ভয়ঙ্কর ছিল। শেষ দিকে ইনসুইং ইয়র্কার মারতে পারত সে, যা ব্যাটসম্যানদের জন্য পড়া কঠিন হতো।

ওয়াসিম পাকিস্তানের হয়ে ১০৪ টেস্টে প্রতিনিধিত্ব করেন। ২৩.৬২ গড়ে শিকার করেন ৪১৪ উইকেট। ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি তিনি। ২৩.৫২ গড়ে ৩৫৬ ম্যাচে ৫০২ উইকেট ঝুলিতে ভরেন বাঁহাতি পেস কিংবদন্তি। 

আর ওয়াকার ৮৭ টেস্টে ২৩.৫৬ গড়ে লাভ করেন ৩৭৩ উইকেট।  পাশাপাশি ২৬২ ওয়ানডেতে ২৩.৮৪ গড়ে ৪১৬ উইকেট নেন এ ডানহাতি ফাস্ট বোলার।

উল্লেখ্য, সরফরাজও ছিলেন গতিতারকা। তাকে বলা হয় রিভার্স সুইয়ের জনক।

তথ্যসূত্র: দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

যে 'অস্ত্র' ওয়াসিম-ওয়াকারকে বিপজ্জনক করে তুলেছিল

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২২ মে ২০২০, ০২:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তান ক্রিকেট ইতিহাসে অন্যতম সেরা দুই পেসার ওয়াসিম আকরাম ও ওয়াকার ইউনিস। খেলোয়াড়ি জীবনে তাদের জুটিকে বলা হতো ‘টু ডব্লিউ’। দুজনই প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কাছে ছিলেন ত্রাস।

একসঙ্গে বিশ্বের যে কোনো শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপকে ধসিয়ে দিতে পারতেন তারা। এমনকি একক নৈপুণ্যেও সেটি করে দেখাতে সিদ্ধহস্ত ছিলেন ওয়াসিম-ওয়াকার।

তো তাদের ঝুলিতে কী ‘অস্ত্র’ ছিল? যা দিয়ে ক্রিকেট দুনিয়ার বাঘা ব্যাটারদের ‘প্রাণনাশ’ করতেন তারা। এবার সেই রহস্যই উন্মোচন করলেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি সরফরাজ নওয়াজ।

তিনি বলেন, ওয়াসিম নতুন বলে 'আতঙ্ক' ছিল। শুরুতেই উইকেটের দুদিকে সুইং করাতে পারত সে। আর ওয়াকার পুরনো বলে ভয়ঙ্কর ছিল। শেষ দিকে ইনসুইং ইয়র্কার মারতে পারত সে, যা ব্যাটসম্যানদের জন্য পড়া কঠিন হতো।

ওয়াসিম পাকিস্তানের হয়ে ১০৪ টেস্টে প্রতিনিধিত্ব করেন। ২৩.৬২ গড়ে শিকার করেন ৪১৪ উইকেট। ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি তিনি। ২৩.৫২ গড়ে ৩৫৬ ম্যাচে ৫০২ উইকেট ঝুলিতে ভরেন বাঁহাতি পেস কিংবদন্তি।

আর ওয়াকার ৮৭ টেস্টে ২৩.৫৬ গড়ে লাভ করেন ৩৭৩ উইকেট। পাশাপাশি ২৬২ ওয়ানডেতে ২৩.৮৪ গড়ে ৪১৬ উইকেট নেন এ ডানহাতি ফাস্ট বোলার।

উল্লেখ্য, সরফরাজও ছিলেন গতিতারকা। তাকে বলা হয় রিভার্স সুইয়ের জনক।

তথ্যসূত্র: দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস