২ কোটি টাকা বাঁচাতে অবসর নেননি মাশরাফি!

  স্পোর্টস ডেস্ক ২৯ মে ২০২০, ১১:২৪:২৯ | অনলাইন সংস্করণ

মাশরাফি বিন মুর্তজার অবসর নিয়ে জল ঘোলা কম হয়নি। তবু ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগ থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে নিশ্চিত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। অবশেষে তিনি নিজেই তা খোলাসা করলেন! জানালেন, বিশ্বকাপেই অবসর নিতে চেয়েছিলেন। সেটি ফাইনাল, সেমিফাইনাল কিংবা গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচ হোক।

তবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছ থেকে ভিন্ন কিছু কথা শুনতে পাওয়ায় সিদ্ধান্তে পরিবর্তন আনেন মাশরাফি। গেল বুধবার এক লাইভ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়ার আগেই সবার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল মাশরাফির অবসর। বিশ্বমঞ্চ থেকেই বিদায় নেবেন নাকি দেশে ফেরে খেলা চালিয়ে যাবেন?– ওই সময় এটি ছিল বড় প্রশ্ন।

শুরুটা উড়ন্ত করলেও শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপে মাত্র তিন ম্যাচ জেতে বাংলাদেশ। নেপথ্য কারণ ছন্দে ছিলেন না ম্যাশ। পুরো আসরে সর্বসাকল্যে শিকার করেন মাত্র ১ উইকেট। ফলে ধারণা করা হয়, দ্রুতই ক্রিকেটকে বিদায় বলবেন তিনি।

কিন্তু না! ইংল্যান্ড থেকে ফিরে ক্রিকেট থেকে কয়েক মাস বিরতিতে চলে যান মাশরাফি। ফেরেন ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত জিম্বাবুয়ে সিরিজে। সেখানে অধিনায়কত্ব ছাড়েন তিনি। তবে অবসর নেননি নড়াইল এক্সপ্রেস। ফিট থাকলে এবং নির্বাচকরা দলে নিলে দেশের হয়ে খেলা চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেন তিনি।

মাশরাফি বলেন, আমার অবসরের ঘটনা আগে একটি ঘটেছে– টি-টোয়েন্টিতে। এ নিয়ে মিডিয়ার সামনে আমি কোনো কথা বলিনি। অথচ তখন সব কিছু আমার পক্ষে ছিল। এখন তো কিছুই আমার অনুকূলে নেই। তাই কিছু বলতে পারছি না। তবে একটি কথা বলব– বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচে আমি অবসর নিতে চেয়েছিলাম। এটি কেউ অস্বীকার করতে পারবে না। এমনকি বোর্ডেরও কেউ না। আর কেউ যদি এ কথা নাকচ করে, তা হলে আমার সঙ্গে সামনাসামনি কথা বলতে হবে।

তিনি বলেন, ওই সময় একটা কথা কানে এসেছিল– এভাবে নয়, অবসরটা হোক সুন্দরভাবে। দেশে আসার পর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আমার বিদায়ী ম্যাচ আয়োজন করতে চেয়েছিল বোর্ড। এ জন্য দুই কোটি টাকা খরচের কথা বলেন তারা। কিন্তু আমি তাতে সম্মত হইনি। দেশে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের নাজুক অবস্থা। সেখানে এক ম্যাচে এত টাকা ব্যয় মনে ধরেনি। তাই আমি অবসর নিইনি।

সর্বকালের সেরা টাইগার কাপ্তান বলেন, চেয়েছিলাম মাঠ থেকেই অবসর নিতে। এর পর ধীরে ধীরে চিন্তাভাবনায় পরিবর্তন এসেছে। আমি অবসর নিতে চাইনি বা নেব না– এমন দাবি কেউ করতে পারবেন না। কেউ যদি করে তা হলে তাকে আমার সঙ্গে সামনাসামনি বসতে হবে। আর এখন মাঠ থেকে বিদায় নেয়ার কথাও ভাবি না।

কিন্তু বিসিবি কোনো অসম্মান করেনি বলে জানান মাশরাফি। তিনি বলেন, বোর্ডের সঙ্গে আসলে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। আপনারা আমাকে প্রশ্ন করেছেন, আবার বোর্ডও জিজ্ঞেস করেছে; মাঝে একটা গ্যাপ তৈরি হয়েছে। তবে পাপন ভাই (বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন) সবসময় আমার সঙ্গে কথা বলেছেন। উনি আমার চিন্তার কথা জানতে চেয়েছেন। তাই বলি– বোর্ড আমাকে যথেষ্ঠ সম্মান দিয়েছে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত