যে কারণে ‘শতাব্দীর সেরা দশে’ জায়গা হয়নি শচীনের

  স্পোর্টস ডেস্ক ০৪ জুলাই ২০২০, ১৪:০৪:২৬ | অনলাইন সংস্করণ

ক্রিকেট পরিসংখ্যান বিশ্লেষক সংস্থা ‘ক্রিকভিজ’ এর সঙ্গে যৌথ গবেষণায় ‘মোস্ট ভ্যালুয়েবল প্লেয়ার অব দ্য সেঞ্চুরি’-এর তালিকা প্রকাশ করেছে উইজডেন ক্রিকেট মান্থলি।

যেখানে ওয়ানডেতে দ্বিতীয় সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আর টেস্টে হয়েছেন ৬ষ্ঠ।

কিন্তু সেই তালিকায় সেরা দশে জায়গা হয়নি ক্রিকেটের লিটল মাস্টার শচীন টেন্ডুলকারের! শতাব্দীর সেরা টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেটারদের তালিকায় যথাক্রমে ৩৮ ও ২২ নম্বরে জায়গা পেয়েছেন শচীন।

অথচ এই দুই সংস্করণেই সবচেয়ে বেশি রানের মালিক টেন্ডুলকারই।

এমন তালিকা প্রকাশে সমালোচনার ঝড়ে পড়েছে জনপ্রিয় ক্রিকেট সাময়িকী উইজডেন।

অবশ্য এর ব্যাখ্যা আছে উইজডেনের কাছে।

তারা জানিয়েছে, রান সংখ্যার ওপরে নয়, ম্যাচ জেতানোর ক্ষেত্রে ক্রিকেটারের অবদানকেই গবেষণার প্রধান বিবেচ্য বিষয় হিসাবে ধরে সেরা মূল্যবান খেলোয়াড়ের তালিকা তৈরি করেছেন তারা। যে ক্রিকেটার যত বেশি ম্যাচ উইনিং ইনিংস খেলেছেন তাকেই মূল্যবান ধরা হয়েছে। আর সেই হিসাবে শচীনের চেয়ে অনেক এগিয়ে একই দেশের ক্রিকেটার রবিন্দ্র জাদেজা ও রবিচন্দ্রন অশ্বিন। তাই টেস্টে সেরা দশে শীর্ষে থাকা শ্রীলংকার মুত্তিয়া মুরলিধরনের পরেই রবীন্দ্র জাদেজাকে রাখা হয়েছে। আটে আছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। কিন্তু সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি হাঁকানো ব্যাটসম্যান টেন্ডুলকারের অবস্থান ৩৮ নম্বরে।

এদিকে ওয়ানডেতে সেরা দশে ঠাঁই পাওয়া একমাত্র ভারতীয় ক্রিকেটার বিরাট কোহলি। সেখানে ছয়ে আছেন তিনি।

কিন্তু ওয়ানডের ২০ জনের তালিকাতেও খুঁজে পাওয়া যায়নি ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ী টেন্ডুলকারকে। তিনি আছেন ২২ নম্বরে।

উল্লেখ্য, টেন্ডুলকারকে সর্বকালের সেরা ক্রিকেটারদের অন্যতম মানা হলেও ম্যাচ জেতানোর ক্ষেত্রে অনেকটাই পিছিয়ে তিনি।

ক্রিকেটের পরিসংখ্যান নিয়ে ২০১৭ সালে প্রকাশিত বই 'নাম্বার্স ডোন্ট লাই' এ ভারতের হয়ে ম্যাচ জেতানোর ক্ষেত্রে টেন্ডুলকারের চেয়ে রাহুল দ্রাবিড় ও ভিভিএস লক্ষ্মণকে এগিয়ে রাখা হয়েছে। সেখানে যৌথভাবে এগিয়ে শীর্ষে ছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত