শচীন সেদিন ফাটা নাক নিয়েই ব্যাটিং তাণ্ডব চালিয়েছিলেন: ওয়াকার

  স্পোর্টস ডেস্ক ০৫ জুলাই ২০২০, ১২:৪৪:০৯ | অনলাইন সংস্করণ

ওয়াকার ইউনুস-শচীন টেন্ডুলকার। ফাইল ছবি

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একই সঙ্গে অভিষেক হয় ভারতের ব্যাটিং কিংবদন্তী শচীন টেন্ডুলকার ও পাকিস্তানের সিমার ওয়াকার ইউনুসের। ১৯৮৯ সালে পাকিস্তান সফরের করাচি টেস্টের প্রথম ইনিংসে ওয়াকারের শিকারে পরিণত হওয়ার আগে মাত্র ১৫ রান করার সুযোগ পেয়েছিলেন শচীন।

অভিষেক টেস্টের স্মৃতিচারণ করে পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক বলেন, জীবনের প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসেই ৪ উইকেট পেয়েছিলাম। শচীনের উইকেটও আমিই নিয়েছিলাম। প্রথম ওকে দেখার পর বুঝতে পারিনি যে, পরবর্তীকালে সে এত বড় ব্যাটসম্যানে পরিণত হবে। কিন্তু প্রথম টেস্টে ওর কিছু শট দেখেই বোঝা গিয়েছিল, দুরন্ত এক প্রতিভাকে দেখছি।

পাকিস্তানের হয়ে ৮৭ টেস্ট ও ২৬২ ওয়ানডে ম্যাচে ৭৮৯ উইকেট শিকার করা সাবেক এ পেসার আরও বলেন, সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট ছিল সিয়ালকোটে। প্রথম ম্যাচে শচীনকে দ্রুত আউট করায় খুব আত্মবিশ্বাসী ছিলাম। সিয়ালকোটে আমার একটি ডেলিভারি শচীনের নাক ফাটিয়ে দেয়। নাক থেকে রক্ত ঝড়তে থাকে। স্পষ্ট মনে আছে– বল ওর নাকে লাগার পর ঠিক ৫-৭ মিনিট সময় নিয়েছিল স্টান্সে ফেরার জন্য।

সেই ইনিংসের স্মৃতিচারণ করে পাকিস্তান ক্রিকেট দলের বর্তমান এ পেস বোলিং কোচ আরও বলেন, নন-স্ট্রাইকিংয়ে থাকা নভজ্যোত সিংহ সিধুর সঙ্গে কিছুক্ষণ আলোচনা করার পর ফের ব্যাটিংয়ে ফিরে আসেন শচীন। নাকে লাগার পর রান করার জন্য তাকে আরও মরিয়া দেখাচ্ছিল। সেই ইনিংসেই হাফসেঞ্চুরি করে বুঝিয়ে দিয়েছিল ও কত বড়মাপের ক্রিকেটার।

১৬ বছর বয়সী শচীন পাকিস্তান সফরে যাওয়ার আগেই স্কুল ক্রিকেটে ট্রিপল সেঞ্চুরি করে আলোচনায় ঝড় তুলেছিলেন।

এ ব্যাপারে ওয়াকার ইউনুস বলেন, ভারতের অনূর্ধ্ব-১৯ দলের সঙ্গে একটি ম্যাচের সময়েই শচীনের বিষয়ে শুনি, ওরা বলাবলি করেছিল– ভারতীয় একজন আছে যে স্কুল ক্রিকেটে ট্রিপল সেঞ্চুরি করেছে। আমি তখন ভাবী– স্কুল ক্রিকেটে ট্রিপল সেঞ্চুরি করার ক্ষমতা আছে? সেঞ্চুরি করাই তো তখন বড় ব্যাপার। সেই শচীন ধীরে ধীরে প্রমাণ করে দিয়েছে কত বড়মাপের ক্রিকেটার।

ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে সেঞ্চুরির সেঞ্চুরি করেছেন শচীন টেন্ডুলকার। শুধু তাই নয়, ক্রিকেট ইতিহাসের একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে ৩৪ হাজারের (৩৪,৩৫৭) বেশি আন্তর্জাতিক রান সংগ্রহ করেন ভারতীয় এ কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত