বিশ্বকাপ না হওয়া খুবই দুঃখজনক: রুবেল 
jugantor
বিশ্বকাপ না হওয়া খুবই দুঃখজনক: রুবেল 

  আল-মামুন  

২৪ জুলাই ২০২০, ২১:৪৩:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনায় বড় ক্ষতি হয়ে গেল বাংলাদেশ দলের। আইসিসির এফটিপি তথা ফিউচার ট্যুরস প্রোগ্রামে এ বছরজুড়েই খেলা ছিল টাইগারদের। কিন্তু করোনায় সব শেষ হয়ে গেল।

মহামারীর কারণে বাতিল হয় টাইগারদের পাকিস্তান, আয়ারল্যান্ড, শ্রীলংকা ও নিউজিল্যান্ড সফর। এ বছরই বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের। করোনায় সেই সব সফর স্থগিত হয়ে যায়। করোনায় বাতিল হয় এ ছাড়া এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপ।

ছোঁয়াচে ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশ দলের এতসব খেলা স্থগিত হওয়ায় রীতিমতো হতাশ জাতীয় দলের তারকা পেসার রুবেল হোসেন। শুক্রবার যুগান্তরের সঙ্গে একান্ত আলাপে জাতীয় দলের তারকা পেসার বলেন, করোনার কারণে শুধু বাংলাদেশই না, সারা বিশ্বে একটা ক্রাইসিস তৈরি হয়েছে। 
করোনায় বাংলাদেশের ৮টি টেস্ট, ৪টি ওয়ানডে আর ৭টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ বাতিল হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করে রুবেল বলেন, আসলে এখানে তো আমাদের কোনো হাত নেই। আল্লাহ যা করেন, সবার মঙ্গলের জন্যই করেন। সেটাতে আমাদের সবাইকে বিশ্বাস রাখতে হবে তাই না!

জাতীয় দলের হয়ে ১০১ ওয়ানডে, ২৭টি করে টেস্ট আর টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে ১৯০ উইকেট শিকার করা রুবেল আরও বলেন, খেলা না থাকায় একজন ক্রিকেটার হিসেবে খারাপ তো অবশ্যই লাগছে। আমরা তো খেলতে চাই। সব সময় মাঠে থাকতে চাই, তাই না! তো এখন লং টাইম খেলা হচ্ছে না। তারপর এশিয়া কাপ হচ্ছে না, এখন আবার বিশ্বকাপ বাতিল হল। ক্রিকেটারদের জন্য এটা খুবই দুঃখজনক, কষ্টদায়ক আরকি! তারপরও আমাদের সবকিছু মেনে নিতে হবে।

রুবেল আরও বলেন, আইসিসি যে উদ্যোগটা নিয়েছে, বিশ্বকাপ এ বছর হচ্ছে না। হয়তো তারা সবকিছু চিন্তা-ভাবনা করে, সারা পৃথিবীর অবস্থা যাচাই-বাছাই করে খেলোয়াড়দের মঙ্গলের জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে আমরা প্লেয়ার হিসেবে বলতে পারি এটা খুবই হতাশাজনক, খুবই দুঃখজনক। খেলতে পারব না, এটাই আরকি। এখানে আমাদের কোনো হাত নেই। এটা এখন মেনে নেয়া ছাড়া আর কিছুই করার নেই। 

আইপিএল না হলে ভারত প্রায় চার হাজার কোটি রাজস্ব হারাবে। সেই ক্ষতি এড়াতেই আইপিএলের জন্য বিশ্বকাপ পেছানো হয়েছে। ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে দ্রুত গতির পেসার শোয়েব আখতারের মতো অনেক ক্রিকেট বিশ্লেষক এমনটি মনে করছেন। 

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ দলের তারকা ক্রিকেটার রুবেল হোসেন বলেন, আসলে শোয়েব আখতার যে মন্তব্য করেছেন, সে ব্যাপারে আমাদের ক্রিকেটারদের মন্তব্য না করাই বেটার। এ বছর এশিয়া কাপ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপসহ অনেক খেলাই স্থগিত হয়েছে। আইপিএলের সঙ্গে বিশ্বকাপ নিয়ে মন্তব্য না করাই ভালো। 

করোনার কারণে গত চার মাস খেলাধুলার পাশাপাশি মাঠে প্রাকটিসের সুযোগও ছিল না টাইগাদের। দীর্ঘদিন পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) খেলোয়াড়দের জন্য অনুশীলনের সুযোগ করে দিয়েছে। মুশফিক-ইমরুলসহ অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে প্রাকটিস করছেন। দীর্ঘদিন পর প্রাকটিস করায় জাতীয় দলের তারকা ওপেনার ইমরুল কায়েসের হাতে ফোসকা পড়েছে। 

এ ব্যাপারে রুবেল বলেন, যারা ১২ মাসই মাঠে থাকেন এমন একজন পেশাদার ক্রিকেটার যখন চার-পাঁচ মাস বাসায় থাকেন, হঠাৎ প্রকাটিসে নামলে এমন সমস্যা হবেই। আমি মনে করি ফিটনেসের ব্যাপারে সবাই সচেতন। বাসায় থাকলেও সবাই নিজের ফিটনেস ধরে রাখতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। কেউ কিন্তু বসে নেই, সবাই নিজের ফিটনেস নিয়ে কাজ করছে। 

বিশ্বকাপ না হওয়া খুবই দুঃখজনক: রুবেল 

 আল-মামুন 
২৪ জুলাই ২০২০, ০৯:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনায় বড় ক্ষতি হয়ে গেল বাংলাদেশ দলের। আইসিসির এফটিপি তথা ফিউচার ট্যুরস প্রোগ্রামে এ বছরজুড়েই খেলা ছিল টাইগারদের। কিন্তু করোনায় সব শেষ হয়ে গেল।

মহামারীর কারণে বাতিল হয় টাইগারদের পাকিস্তান, আয়ারল্যান্ড, শ্রীলংকা ও নিউজিল্যান্ড সফর। এ বছরই বাংলাদেশ সফরে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের। করোনায় সেই সব সফর স্থগিত হয়ে যায়। করোনায় বাতিল হয় এ ছাড়া এশিয়া কাপ ও বিশ্বকাপ।

ছোঁয়াচে ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশ দলের এতসব খেলা স্থগিত হওয়ায় রীতিমতো হতাশ জাতীয় দলের তারকা পেসার রুবেল হোসেন। শুক্রবার যুগান্তরের সঙ্গে একান্ত আলাপে জাতীয় দলের তারকা পেসার বলেন, করোনার কারণে শুধু বাংলাদেশই না, সারা বিশ্বে একটা ক্রাইসিস তৈরি হয়েছে।
করোনায় বাংলাদেশের ৮টি টেস্ট, ৪টি ওয়ানডে আর ৭টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ বাতিল হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করে রুবেল বলেন, আসলে এখানে তো আমাদের কোনো হাত নেই। আল্লাহ যা করেন, সবার মঙ্গলের জন্যই করেন। সেটাতে আমাদের সবাইকে বিশ্বাস রাখতে হবে তাই না!

জাতীয় দলের হয়ে ১০১ ওয়ানডে, ২৭টি করে টেস্ট আর টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে ১৯০ উইকেট শিকার করা রুবেল আরও বলেন, খেলা না থাকায় একজন ক্রিকেটার হিসেবে খারাপ তো অবশ্যই লাগছে। আমরা তো খেলতে চাই। সব সময় মাঠে থাকতে চাই, তাই না! তো এখন লং টাইম খেলা হচ্ছে না। তারপর এশিয়া কাপ হচ্ছে না, এখন আবার বিশ্বকাপ বাতিল হল। ক্রিকেটারদের জন্য এটা খুবই দুঃখজনক, কষ্টদায়ক আরকি! তারপরও আমাদের সবকিছু মেনে নিতে হবে।

রুবেল আরও বলেন, আইসিসি যে উদ্যোগটা নিয়েছে, বিশ্বকাপ এ বছর হচ্ছে না। হয়তো তারা সবকিছু চিন্তা-ভাবনা করে, সারা পৃথিবীর অবস্থা যাচাই-বাছাই করে খেলোয়াড়দের মঙ্গলের জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে আমরা প্লেয়ার হিসেবে বলতে পারি এটা খুবই হতাশাজনক, খুবই দুঃখজনক। খেলতে পারব না, এটাই আরকি। এখানে আমাদের কোনো হাত নেই। এটা এখন মেনে নেয়া ছাড়া আর কিছুই করার নেই।

আইপিএল না হলে ভারত প্রায় চার হাজার কোটি রাজস্ব হারাবে। সেই ক্ষতি এড়াতেই আইপিএলের জন্য বিশ্বকাপ পেছানো হয়েছে। ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে দ্রুত গতির পেসার শোয়েব আখতারের মতো অনেক ক্রিকেট বিশ্লেষক এমনটি মনে করছেন।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ দলের তারকা ক্রিকেটার রুবেল হোসেন বলেন, আসলে শোয়েব আখতার যে মন্তব্য করেছেন, সে ব্যাপারে আমাদের ক্রিকেটারদের মন্তব্য না করাই বেটার। এ বছর এশিয়া কাপ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপসহ অনেক খেলাই স্থগিত হয়েছে। আইপিএলের সঙ্গে বিশ্বকাপ নিয়ে মন্তব্য না করাই ভালো।

করোনার কারণে গত চার মাস খেলাধুলার পাশাপাশি মাঠে প্রাকটিসের সুযোগও ছিল না টাইগাদের। দীর্ঘদিন পর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) খেলোয়াড়দের জন্য অনুশীলনের সুযোগ করে দিয়েছে। মুশফিক-ইমরুলসহ অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে প্রাকটিস করছেন। দীর্ঘদিন পর প্রাকটিস করায় জাতীয় দলের তারকা ওপেনার ইমরুল কায়েসের হাতে ফোসকা পড়েছে।

এ ব্যাপারে রুবেল বলেন, যারা ১২ মাসই মাঠে থাকেন এমন একজন পেশাদার ক্রিকেটার যখন চার-পাঁচ মাস বাসায় থাকেন, হঠাৎ প্রকাটিসে নামলে এমন সমস্যা হবেই। আমি মনে করি ফিটনেসের ব্যাপারে সবাই সচেতন। বাসায় থাকলেও সবাই নিজের ফিটনেস ধরে রাখতে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে। কেউ কিন্তু বসে নেই, সবাই নিজের ফিটনেস নিয়ে কাজ করছে।