‘ক্রিকেটই ভালোবাসি, অন্য পেশার কথা ভাবতেই পারি না’

  স্পোর্টস ডেস্ক ০৮ আগস্ট ২০২০, ২২:৪২:০১ | অনলাইন সংস্করণ

তারকা ক্রিকেটার মোহাম্মদ আশরাফুল, ইমরুল কায়েস, হাবিবুল বাশার সুমন, মেহরাব হোসেন অপি, রকিবুল হাসানের মতো ছোট পর্দায় দেখা দেছে জাহানারা আলমকে।

ভবিষ্যতে আপনাকে সিনেমায় দেখা যেতে পারে? এমন প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার জাহানারা আলম বলেছেন, সে রকম ইচ্ছা আমার নেই। ক্রিকেটকে আমি এতটাই ভালোবাসি যে, ক্রিকেট ছেড়ে অন্য কোনো পেশার কথা ভাবতেই পারি না। অনেক অনুরোধ করায় নাটকটা করেছিলাম। বলতে পারেন স্বাদ বদলের জন্যই নাটক করেছিলাম। তারপর অনেক নাটক করার প্রস্তাব পেয়েছি।

জাতীয় দলের হয়ে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলে ১০৮ ম্যাচে ৮৮ উইকেট শিকারের করা এ পেসার আরও বলেছেন, দুইটা সিনেমায় অভিনয় করারও প্রস্তাব এসেছিল। কিন্তু আমি সেই ফিরিয়ে দিয়েছি। ক্রিকেট ছাড়া অন্য কিছুতে আমি ফোকাস করতে চাই না। তাহলে ক্রিকেট থেকে ফোকাস নড়ে যাবে। আর সেটা আমি কোনোভাবেই চাই না।

ভারতের জনপ্রিয় একটি দৈনিককে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এক প্রশ্নের জবাবে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক জাহানারা আলম বলেছেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ইন্ডিয়া ম্যাচের পরে আমার কাজল পরা চোখ নিয়ে যে এত চর্চা হবে, তা আসলে বুঝতেই পারিনি। ২০০৮ সালে আমার যখন ক্রিকেট ক্যারিয়ার শুরু হয় তখন থেকেই চোখে কাজল পরি। কিন্তু আইসিসি বিশ্বকাপে খেলার সময়ে সবার নজরে আসে। ভালো তো অবশ্যই লেগেছে। আমার পারফরম্যান্স নিয়ে যখন আলোচনা হয়, তখন আরও বেশি ভালো লাগে।

ভারত ও বাংলাদেশ নারী ক্রিকেটের পার্থক্য নিয়ে ২৭ বছর বয়সী জাহানারা বলেছেন, অভিজ্ঞতায় অনেক বেশি পার্থক্য রয়েছে। ভারত অনেক ম্যাচ খেলে, ওদের অভিজ্ঞতাও অনেক বেশি। ভারতের ঘরোয়া ক্রিকেটে সারা বছর ধরেই খেলা থাকে। ওদের প্রত্যেকেরই অভিজ্ঞতা অনেক। মিতালি রাজের কথাই ধরুন। ও ২০ বছর ধরে খেলছে। আমার বয়স এখন ২৭। বুঝতেই পারছেন অভিজ্ঞতায় কে এগিয়ে! ওদের তুলনায় আমরা অনেক কম ম্যাচ খেলি। তবে কোয়ালিটির দিক থেকে আমরা যে খুব বেশি পিছিয়ে রয়েছি,তা কিন্তু না। তবে আমাদের বেশি বেশি খেলতে হবে। খেললেই আত্মবিশ্বাস বাড়বে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত