পাকিস্তানি পেসারের কারণেই গম্ভীরের ক্যারিয়ার শেষ
jugantor
পাকিস্তানি পেসারের কারণেই গম্ভীরের ক্যারিয়ার শেষ

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৪ আগস্ট ২০২০, ২১:০৫:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের বিশ্বকাপজয়ী দলের অনত্যম সদস্য ছিলেন গৌতম গম্ভীর। তার অধিনায়কত্বে একাধিকবার আইপিএল ট্রফি জিতে নেয় কলকাতা নাইট রাইডার্স।

ক্রিকেট থেকে অবসরে রাজনীতিতে অংশ নিয়ে নরেন্দ্র মোদি সরকারের সংসদ সদস্য হয়েছে গৌতম গম্ভীর। ভারতীয় সাবেক এই তারকা ওপেনারকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের তারকা পেসার মোহাম্মদ ইরফান।

সম্প্রতি পাকিস্তানের এক ইউটিউব চ্যানেলে ইরফান বলেছেন, ২০১২ সালে ভারতের বিপক্ষে আমি দুর্দান্ত গতিতে বল করছিলাম। গম্ভীর আমার বল দেখতেই পারছিল না। ও আমার বাউন্সার সামলাতে হিমশিম খাচ্ছিল, তাতে সবাই বলাবলি করছিল- গৌতমের ব্যাটিং গম্ভীর সুলভ লাগছে না।

৭ ফুট লম্বা পাকিস্তানের এই তারকা পেসার আরও বলেছেন, আমার গতি আর উচ্চতা ওকে বেশ সমস্যায় ফেলছিল। সেই সিরিজের পরেই ওকে দল থেকে বাদ দেয়া হয়। সেখান থেকেই বিষয়টা বুঝতে পারি।

ভারতের বিপক্ষে সেই টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-১ এ ড্র করার পর ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে পাকিস্তান।

সেই সিরিজের স্মৃতিচারণ করে পাকিস্তানের এই তারকা পেসার আরও বলেছেন, যখনই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হয় তখনই আলাদা উত্তেজনা কাজ করে। যারা পারফর্ম করে তারা হিরো আর  যারা ব্যর্থ হয় তারা রাতারাতি জিরো হয়ে যায়।

শুধু গম্ভীরই নন, বিরাট কোহলিও মোহাম্মদ ইরফানের পেস আক্রমণ বুঝতে সমস্যায় পড়েছেন। কোহলি প্রসঙ্গে মোহাম্মদ ইরফান বলেছেন, ড্রেসিংরুমে কোহলিকে বলা হয়েছিল- ইরফান নাকি ১৩০-১৩৫ কিমি. গতিতে বল করেন। কোহলি ব্যাট করতে নামার পরে প্রথম বলটাই ১৪৫-১৪৬ কিমি. গতিতে করি। তার পরের বলটাই ছিল ১৪৭ কিমি.। আমার বলের গতি দেখে কোহলি তার সতীর্থকে জিজ্ঞেস করে- ‘এ কেমন মিডিয়াম পেসার যে এত দ্রুতগতিতে বল করে।’
 

পাকিস্তানি পেসারের কারণেই গম্ভীরের ক্যারিয়ার শেষ

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৪ আগস্ট ২০২০, ০৯:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের বিশ্বকাপজয়ী দলের অনত্যম সদস্য ছিলেন গৌতম গম্ভীর। তার অধিনায়কত্বে একাধিকবার আইপিএল ট্রফি জিতে নেয় কলকাতা নাইট রাইডার্স।

ক্রিকেট থেকে অবসরে রাজনীতিতে অংশ নিয়ে নরেন্দ্র মোদি সরকারের সংসদ সদস্য হয়েছে গৌতম গম্ভীর। ভারতীয় সাবেক এই তারকা ওপেনারকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের তারকা পেসার মোহাম্মদ ইরফান।

সম্প্রতি পাকিস্তানের এক ইউটিউব চ্যানেলে ইরফান বলেছেন, ২০১২ সালে ভারতের বিপক্ষে আমি দুর্দান্ত গতিতে বল করছিলাম। গম্ভীর আমার বল দেখতেই পারছিল না। ও আমার বাউন্সার সামলাতে হিমশিম খাচ্ছিল, তাতে সবাই বলাবলি করছিল- গৌতমের ব্যাটিং গম্ভীর সুলভ লাগছে না।

৭ ফুট লম্বা পাকিস্তানের এই তারকা পেসার আরও বলেছেন, আমার গতি আর উচ্চতা ওকে বেশ সমস্যায় ফেলছিল। সেই সিরিজের পরেই ওকে দল থেকে বাদ দেয়া হয়। সেখান থেকেই বিষয়টা বুঝতে পারি।

ভারতের বিপক্ষে সেই টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-১ এ ড্র করার পর ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে পাকিস্তান।

সেই সিরিজের স্মৃতিচারণ করে পাকিস্তানের এই তারকা পেসার আরও বলেছেন, যখনই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হয় তখনই আলাদা উত্তেজনা কাজ করে। যারা পারফর্ম করে তারা হিরো আর যারা ব্যর্থ হয় তারা রাতারাতি জিরো হয়ে যায়।

শুধু গম্ভীরই নন, বিরাট কোহলিও মোহাম্মদ ইরফানের পেস আক্রমণ বুঝতে সমস্যায় পড়েছেন। কোহলি প্রসঙ্গে মোহাম্মদ ইরফান বলেছেন, ড্রেসিংরুমে কোহলিকে বলা হয়েছিল- ইরফান নাকি ১৩০-১৩৫ কিমি. গতিতে বল করেন। কোহলি ব্যাট করতে নামার পরে প্রথম বলটাই ১৪৫-১৪৬ কিমি. গতিতে করি। তার পরের বলটাই ছিল ১৪৭ কিমি.। আমার বলের গতি দেখে কোহলি তার সতীর্থকে জিজ্ঞেস করে- ‘এ কেমন মিডিয়াম পেসার যে এত দ্রুতগতিতে বল করে।’