‘৯৯টি সেঞ্চুরি করার পরও লোকজন আমাকে পরামর্শ দিত’
jugantor
‘৯৯টি সেঞ্চুরি করার পরও লোকজন আমাকে পরামর্শ দিত’

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৫ আগস্ট ২০২০, ২২:৪৪:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১০০টি সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন শচীন টেন্ডুলকার। ভারতীয় এ কিংবদন্তি ক্রিকেটার সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ক্যারিয়ারের প্রথম আর শেষ সেঞ্চুরি নিয়ে কথা বলেছেন।

শচীন বলেছেন, আমার ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিটি ছিল বিশেষ কিছু। কারণ আমরা তখন পরাজয়ের দ্বার প্রান্তে ছিলাম। সেই অবস্থা থেকে হার এড়াতে পেরেছিলাম এবং সিরিজ জয়ের আশা বাঁচিয়ে রেখেছিলাম। ভারতের হয়ে খেলতে পারা আমার জন্য সৌভাগ্যের। এত বছর ধরে আপনাদের ভালোবাসা ও সমর্থনের জন্য প্রত্যেককে ধন্যবাদ জানাই।

১৯৯০ সালের ১৪ অগাস্ট ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে প্রথম সেঞ্চুরিটি করেছিলেন টেন্ডুলকার। ম্যানচেস্টারে সেদিন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের দৃঢ়তায় হার এড়ায় ভারত। ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন তিনি।

দীর্ঘ ২৪ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে সবমিলে একশবার ব্যাট উঁচিয়ে ধরেছেন টেন্ডুলকার। প্রথম সেঞ্চুরির অনুভূতি যেমন মধুর, তেমনি শততম সেঞ্চুরিও ভালোলাগা।

শচীন বলেন, এক অনুষ্ঠানে আমাকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, ‘আপনার প্রথম সেঞ্চুরি ও ১০০তম সেঞ্চুরির মধ্যে পার্থক্য কী?’ আমি উত্তরে বললাম, যখন আমি প্রথম সেঞ্চুরিটি করি, তখন আমি জানতাম না যে পরে আরও ৯৯টি সেঞ্চুরি করতে পারব। আর যখন ৯৯তম সেঞ্চুরিতে আটকে ছিলাম, তখন কিছু মানুষ আমাকে পরামর্শ দেয়া শুরু করল কী করা উচিত আর কী করা যাবে না। তারা হয়তো বুঝতেও চায়নি যে আমি এর আগে ৯৯টি সেঞ্চুরি করেছি। আমার প্রথম আর ১০০তম সেঞ্চুরির মধ্যে এটাই ছিল পার্থক্য।

শচীন টেন্ডুলকার ক্রিকেট ক্যারিয়ারে ২০০টি টেস্ট আর ৪৬৩টি ওয়ানডে ম্যাচে অংশ নিয়ে ১০০টি সেঞ্চুরি আর ১৬৪টি ফিফটির সাহায্যে ৩৪ হাজার ৩৪৭ রান সংগ্রহ করেছেন।

‘৯৯টি সেঞ্চুরি করার পরও লোকজন আমাকে পরামর্শ দিত’

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৫ আগস্ট ২০২০, ১০:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১০০টি সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েছেন শচীন টেন্ডুলকার। ভারতীয় এ কিংবদন্তি ক্রিকেটার সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে ক্যারিয়ারের প্রথম আর শেষ সেঞ্চুরি নিয়ে কথা বলেছেন। 

শচীন বলেছেন, আমার ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিটি ছিল বিশেষ কিছু। কারণ আমরা তখন পরাজয়ের দ্বার প্রান্তে ছিলাম। সেই অবস্থা থেকে হার এড়াতে পেরেছিলাম এবং সিরিজ জয়ের আশা বাঁচিয়ে রেখেছিলাম। ভারতের হয়ে খেলতে পারা আমার জন্য সৌভাগ্যের। এত বছর ধরে আপনাদের ভালোবাসা ও সমর্থনের জন্য প্রত্যেককে ধন্যবাদ জানাই।

১৯৯০ সালের ১৪ অগাস্ট ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে প্রথম সেঞ্চুরিটি করেছিলেন টেন্ডুলকার। ম্যানচেস্টারে সেদিন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের দৃঢ়তায় হার এড়ায় ভারত। ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন তিনি।

দীর্ঘ ২৪ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে সবমিলে একশবার ব্যাট উঁচিয়ে ধরেছেন টেন্ডুলকার। প্রথম সেঞ্চুরির অনুভূতি যেমন মধুর, তেমনি শততম সেঞ্চুরিও ভালোলাগা।

শচীন বলেন, এক অনুষ্ঠানে আমাকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল, ‘আপনার প্রথম সেঞ্চুরি ও ১০০তম সেঞ্চুরির মধ্যে পার্থক্য কী?’ আমি উত্তরে বললাম, যখন আমি প্রথম সেঞ্চুরিটি করি, তখন আমি জানতাম না যে পরে আরও ৯৯টি সেঞ্চুরি করতে পারব। আর যখন ৯৯তম সেঞ্চুরিতে আটকে ছিলাম, তখন কিছু মানুষ আমাকে পরামর্শ দেয়া শুরু করল কী করা উচিত আর কী করা যাবে না। তারা হয়তো বুঝতেও চায়নি যে আমি এর আগে ৯৯টি সেঞ্চুরি করেছি। আমার প্রথম আর ১০০তম সেঞ্চুরির মধ্যে এটাই ছিল পার্থক্য।

শচীন টেন্ডুলকার ক্রিকেট ক্যারিয়ারে ২০০টি টেস্ট আর ৪৬৩টি ওয়ানডে ম্যাচে অংশ নিয়ে ১০০টি সেঞ্চুরি আর ১৬৪টি ফিফটির সাহায্যে ৩৪ হাজার ৩৪৭ রান সংগ্রহ করেছেন।