রাজস্থানকে হারিয়ে প্লে-অফের আশা জিইয়ে রাখল হায়দরাবাদ (ভিডিও)
jugantor
রাজস্থানকে হারিয়ে প্লে-অফের আশা জিইয়ে রাখল হায়দরাবাদ (ভিডিও)

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৩ অক্টোবর ২০২০, ০০:০৪:৫৬  |  অনলাইন সংস্করণ

বৃহস্পতিবার রাতে কার্যত নকআউট ম্যাচে দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে লড়াই চলেছে রাজস্থান রয়্যালস ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদের।

কেননা শেষ চারের আশা জিইয়ে রাখতে দুই দলেরই চাই জয়।

সেই লক্ষ্যেটস জিতে ব্যাট করতে নেমে হায়দরাবাদকে ১৫৫ রানের টার্গেট ছুড়ে দেয় রাজস্থান। আর সেই টার্গেট হেসেখেলেই ছুয়ে ফেলে ডেভিড ওয়ার্নারের দল।

শুরুতে একটু মন্থর হলেও ভালোই ব্যাট করেছিল রাজস্থান। রবিন উথাপ্পা আর বেন স্টোকস ২১ বলের উদ্বোধনী জুটি ৩০ রান তুলে। উথাপ্পা অপ্রত্যাশিতভাবে রানআউট হওয়ার আগে ১৩ বলে ১৯ রান করেন। এরপর সঞ্জু স্যামসনের সঙ্গে স্টোকস ৫৬ রানের আরেকটি জুটি গড়েন। এক সময় ১১.৩ ওভারে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে ৮৬ রান তোলে রাজস্থান। ধারণা করা হচ্ছিল, বড় সংগ্রহের পথে রাজস্থান।

কিন্তু হঠাৎই চিত্রপট পাল্টে দিল রাজস্থানের দুর্দান্ত বোলিংয়ে।

দুবাইয়ে দারুণ বোলিংয়ে রাজস্থান রয়্যালসকে বড় পুঁজি গড়তে দেয়নি সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ৬ উইকেটে ১৫৪ রান তুলেছে স্টিভেন স্মিথের দল। অর্থাৎ জিততে হলে ১৫৫ করতে হবে ডেভিড ওয়ার্নারের হায়দরাবাদকে।

অথচ টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খারাপ ছিল না রাজস্থানের। রবিন উথাপ্পা আর বেন স্টোকস ২১ বলের উদ্বোধনী জুটিতে তুলেন ৩০ রান। উথাপ্পার রানআউটে (১৩ বলে ১৯) ভাঙে এই জুটি। এরপর সঞ্জু স্যামসনের সঙ্গে স্টোকসের ৫৬ রানের আরেকটি জুটি। ১১.৩ ওভারে ১ উইকেটেই ৮৬ রান ছিল রাজস্থানের। অল্প সময়ের মধ্যে বেশ কয়েকটি উইকেট হারায় রাজস্থান।

১২তম ওভারে স্যামসনকে বোল্ড করেন জেসন হোল্ডার। আউট হওয়ার আগে ৩ চার ও ১ ছক্কার মারে ২৬ বলে এই ব্যাটসম্যান করেন ৩৬ রান। পরের ওভারেই রশিদ খানের ঘূর্ণিতে বোল্ড হন বেন স্টোকস। ৩২ বলে ৩০ রান করে আউট হন স্টোকস।

এরপর উইকেটে নেমে ১২ বলে ৯ রান করে বিজয় শঙ্করের বলে আউট হন জস বাটলার। ৮৬ থেকে ১১০ রানে পৌঁছুতেই ৪ উইকেট হারায় রাজস্থান।

১৯তম ওভারে ১৫ বলে ১৯ রান করে হোল্ডারের দ্বিতীয় শিকার হন রাজস্থান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। পরের বলেই ১২ বলে ২০ রান করা রিয়ান পরাগওকে ফেরান হোল্ডার । এরপর ব্যাট হাতে নেমে জফরা আর্চার ৭ বলে ১৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেললে শেষ পর্যন্ত রাজস্থান ১৫৪ রান জমা করতে পারে।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল বোলার জেসন হোল্ডার ৪ ওভারে ৩৩ রান খরচায় ৩ উইকেট।

জবাবে ১৫৫ রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই জফরা আর্চারে বিধ্বস্ত হয় হায়দরাবাদ। অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে মাত্র ৪ রানে ফেরান আর্চার। ৭ বলে ১০ রান করে আর্চারের বলে সরাসরি বোল্ড জনি বেয়ারস্টো।

আর এটাই ছিল রাজস্থান শিবিরে আজকের সেরা সাফল্য। এরপর রাজস্থান বোলারদের আর কেউ উইকেটের মুখ দেখেনি।

অনবদ্য অপরাজিত দুই হাফসেঞ্চুরি করে দলকে জয় এনে দিয়ে মাঠ ছাড়েন মনিশ পান্ডে আর বিজয় শংকর।

রাজস্থানের বোলারদের পাত্তাই দেয়নি এই দুই ব্যাটসম্যান।

৪৭ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ৮ ছক্কার মারে টর্নেডো ইনিংস খেলেন মনিশ। তিনি করেন অপরাজিত ৮৩ রান। অন্যদিকে বিজয়ের ব্যাট একটি মন্থর গতিতে চলে ৬ বাউন্ডারির মারে ৫১ বলে ৫২ রান তোলে।

এই দুজনের ১৩০ রানের বেশি পার্টনারশিপের ওপর ভর করে ১ ওভার ৫ বল বাকি থাকতেই টার্গেট পূরণ করে হায়দরাবাদ।

ফলে ৮ উইকেটে রাজস্থান রয়্যালসকে হারায় সানরাইজ হায়দরাবাদ।

এই জয়ে ১০ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বরে উঠে এল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ৷ আর এই ম্যাচ হেরে ১১ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে নেমে গেল রাজস্থান রয়্যালস।

১০ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। ৯ ম্যাচ খেলে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয়স্থানে আছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। আর ১০ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থস্থানে আছে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

ম্যাচ হাইলাইটস দেখুন -

রাজস্থানকে হারিয়ে প্লে-অফের আশা জিইয়ে রাখল হায়দরাবাদ (ভিডিও)

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৩ অক্টোবর ২০২০, ১২:০৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বৃহস্পতিবার রাতে কার্যত নকআউট ম্যাচে দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে লড়াই চলেছে রাজস্থান রয়্যালস ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদের।

কেননা শেষ চারের আশা জিইয়ে রাখতে দুই দলেরই চাই জয়।

সেই লক্ষ্যে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে হায়দরাবাদকে ১৫৫ রানের টার্গেট ছুড়ে দেয় রাজস্থান। আর সেই টার্গেট হেসেখেলেই ছুয়ে ফেলে ডেভিড ওয়ার্নারের দল।

শুরুতে একটু মন্থর হলেও ভালোই ব্যাট করেছিল রাজস্থান। রবিন উথাপ্পা আর বেন স্টোকস ২১ বলের উদ্বোধনী জুটি ৩০ রান তুলে। উথাপ্পা অপ্রত্যাশিতভাবে রানআউট হওয়ার আগে ১৩ বলে ১৯ রান করেন। এরপর সঞ্জু স্যামসনের সঙ্গে স্টোকস ৫৬ রানের আরেকটি জুটি গড়েন। এক সময় ১১.৩ ওভারে মাত্র ১ উইকেট হারিয়ে ৮৬ রান তোলে রাজস্থান। ধারণা করা হচ্ছিল, বড় সংগ্রহের পথে রাজস্থান।

কিন্তু হঠাৎই চিত্রপট পাল্টে দিল রাজস্থানের দুর্দান্ত বোলিংয়ে। 

দুবাইয়ে দারুণ বোলিংয়ে রাজস্থান রয়্যালসকে বড় পুঁজি গড়তে দেয়নি সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ৬ উইকেটে ১৫৪ রান তুলেছে স্টিভেন স্মিথের দল। অর্থাৎ জিততে হলে ১৫৫ করতে হবে ডেভিড ওয়ার্নারের হায়দরাবাদকে।

অথচ টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খারাপ ছিল না রাজস্থানের। রবিন উথাপ্পা আর বেন স্টোকস ২১ বলের উদ্বোধনী জুটিতে তুলেন ৩০ রান। উথাপ্পার রানআউটে (১৩ বলে ১৯) ভাঙে এই জুটি। এরপর সঞ্জু স্যামসনের সঙ্গে স্টোকসের ৫৬ রানের আরেকটি জুটি। ১১.৩ ওভারে ১ উইকেটেই ৮৬ রান ছিল রাজস্থানের। অল্প সময়ের মধ্যে বেশ কয়েকটি উইকেট হারায় রাজস্থান। 

১২তম ওভারে স্যামসনকে বোল্ড করেন জেসন হোল্ডার। আউট হওয়ার আগে ৩ চার ও ১ ছক্কার মারে ২৬ বলে এই ব্যাটসম্যান করেন ৩৬ রান। পরের ওভারেই রশিদ খানের ঘূর্ণিতে বোল্ড হন বেন স্টোকস। ৩২ বলে ৩০ রান করে আউট হন স্টোকস।

এরপর উইকেটে নেমে ১২ বলে ৯ রান করে বিজয় শঙ্করের বলে আউট হন জস বাটলার। ৮৬ থেকে ১১০ রানে পৌঁছুতেই ৪ উইকেট হারায় রাজস্থান। 

১৯তম ওভারে ১৫ বলে ১৯ রান করে হোল্ডারের দ্বিতীয় শিকার হন রাজস্থান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। পরের বলেই ১২ বলে ২০ রান করা রিয়ান পরাগওকে ফেরান হোল্ডার । এরপর ব্যাট হাতে নেমে জফরা আর্চার ৭ বলে ১৬ রানের অপরাজিত ইনিংস খেললে শেষ পর্যন্ত রাজস্থান ১৫৪ রান জমা করতে পারে।

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল বোলার জেসন হোল্ডার ৪ ওভারে ৩৩ রান খরচায় ৩ উইকেট।

জবাবে ১৫৫ রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই জফরা আর্চারে বিধ্বস্ত হয় হায়দরাবাদ। অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে মাত্র ৪ রানে ফেরান আর্চার। ৭ বলে ১০ রান করে আর্চারের বলে সরাসরি বোল্ড জনি বেয়ারস্টো।   

আর এটাই ছিল রাজস্থান শিবিরে আজকের সেরা সাফল্য। এরপর রাজস্থান বোলারদের আর কেউ উইকেটের মুখ দেখেনি। 

অনবদ্য অপরাজিত দুই হাফসেঞ্চুরি করে দলকে জয় এনে দিয়ে মাঠ ছাড়েন মনিশ পান্ডে আর বিজয় শংকর।

রাজস্থানের বোলারদের পাত্তাই দেয়নি এই দুই ব্যাটসম্যান।

৪৭ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ৮ ছক্কার মারে টর্নেডো ইনিংস খেলেন মনিশ। তিনি করেন অপরাজিত ৮৩ রান। অন্যদিকে বিজয়ের ব্যাট একটি মন্থর গতিতে চলে ৬ বাউন্ডারির মারে ৫১ বলে ৫২ রান তোলে।

এই দুজনের ১৩০ রানের বেশি পার্টনারশিপের ওপর ভর করে ১ ওভার ৫ বল বাকি থাকতেই টার্গেট পূরণ করে হায়দরাবাদ।

ফলে ৮ উইকেটে রাজস্থান রয়্যালসকে হারায় সানরাইজ হায়দরাবাদ। 

এই জয়ে ১০ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বরে উঠে এল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ৷ আর এই ম্যাচ হেরে ১১ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে নেমে গেল রাজস্থান রয়্যালস।

১০ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। ৯ ম্যাচ খেলে ১২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয়স্থানে আছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। আর ১০ ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থস্থানে আছে কলকাতা নাইট রাইডার্স।
 

ম্যাচ হাইলাইটস দেখুন - 

 

 

ঘটনাপ্রবাহ : আইপিএল-২০২০