মিশরে ছেলেদের ফুটবলে নারী কোচ
jugantor
মিশরে ছেলেদের ফুটবলে নারী কোচ

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৭ অক্টোবর ২০২০, ১৯:৩৫:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

মিশর জাতীয় নারী দলের সাবেক অধিনায়ক ফাইজা হায়দার দেশটির একটি ক্লাবে ছেলেদের ফুটবল দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন। ক্লাবের ফুটবলারদের প্রশিক্ষণ দিতে তিনি এখন ব্যস্ত।

মিশরের চতুর্থ বিভাগের ক্লাব আইডিয়াল গোল্ডির কোচ হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ৩৬ বছর বয়সী সাবেক তারকা ফুটবলার ফাইজা। মিশরে তিনিই প্রথম, নারী হয়েও ছেলেদের কোচের ভূমিকা পালন করছেন।

রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ফাইজা বলেছেন, ছেলেদের কোচিং করানোর প্রস্তাব পাওয়ার পরশুরুতে একটু অস্বস্তিতে ছিলাম। কিন্তু পরবর্তীতে বুঝতে পারলাম যে তারা আমার কাছ থেকে সত্যি কিছু শিখতে চায়।

মিশরের সাবেক এ তারকা মিডফিল্ডার দেশের হয়ে ছেলে ও মেয়েদের মধ্যে প্রথম ইংল্যান্ডের প্রিমিয়ার লিগ স্বীকৃত প্রিমিয়ার স্কিলস কোচ এডুকেশনের মর্যাদা পেয়েছেন।

তিনি আরও বলেছেন, কোচিংয়ে ক্যারিয়ার গড়ার পেছনে আমার সবচেয়ে বেশি কাজে দিয়েছে প্রিমিয়ার দক্ষতা অর্জন।প্রিমিয়ার স্কিলস করা থাকলে কোচদেরমানউন্নয়নে সহায়ক হয়।

ফাইজার মা খোদরা আবদাল রহমান মেয়ের এমন কীর্তিতে মুগ্ধ। তিনি বলেছেন, আমি আমার মেয়েকে শুরুর দিকে ফুটবল খেলতে বারণ করতাম। কিন্তু ও আমার কথায় কান দিত না। ও মন থেকেই ফুটবল ভালোবাসে, এখন ও পুরো দেশের গর্ব।

মিশরে ছেলেদের ফুটবলে নারী কোচ

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মিশর জাতীয় নারী দলের সাবেক অধিনায়ক ফাইজা হায়দার দেশটির একটি ক্লাবে ছেলেদের ফুটবল দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন। ক্লাবের ফুটবলারদের প্রশিক্ষণ দিতে তিনি এখন ব্যস্ত। 

মিশরের চতুর্থ বিভাগের ক্লাব আইডিয়াল গোল্ডির কোচ হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ৩৬ বছর বয়সী সাবেক তারকা ফুটবলার ফাইজা।  মিশরে তিনিই প্রথম, নারী হয়েও ছেলেদের কোচের ভূমিকা পালন করছেন। 

রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ফাইজা বলেছেন, ছেলেদের কোচিং করানোর প্রস্তাব পাওয়ার পর শুরুতে একটু অস্বস্তিতে ছিলাম। কিন্তু পরবর্তীতে বুঝতে পারলাম যে তারা আমার কাছ থেকে সত্যি কিছু শিখতে চায়।  

মিশরের সাবেক এ তারকা মিডফিল্ডার দেশের হয়ে ছেলে ও মেয়েদের মধ্যে প্রথম ইংল্যান্ডের প্রিমিয়ার লিগ স্বীকৃত প্রিমিয়ার স্কিলস কোচ এডুকেশনের মর্যাদা পেয়েছেন।

তিনি আরও বলেছেন, কোচিংয়ে ক্যারিয়ার গড়ার পেছনে আমার সবচেয়ে বেশি কাজে দিয়েছে প্রিমিয়ার দক্ষতা অর্জন। প্রিমিয়ার স্কিলস করা থাকলে কোচদের মানউন্নয়নে সহায়ক হয়।  

ফাইজার মা খোদরা আবদাল রহমান মেয়ের এমন কীর্তিতে মুগ্ধ। তিনি বলেছেন, আমি আমার মেয়েকে শুরুর দিকে ফুটবল খেলতে বারণ করতাম। কিন্তু ও আমার কথায় কান দিত না। ও মন থেকেই ফুটবল ভালোবাসে, এখন ও পুরো দেশের গর্ব।