বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে হারানো সেনেগালের সেই নায়ক আর নেই
jugantor
বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে হারানো সেনেগালের সেই নায়ক আর নেই

  স্পোর্টস ডেস্ক  

৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৩:২৭:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

২০০২ সালের বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে হারানোর নায়ক সেনেগালের সাবেক মিডফিল্ডার পাপা বউবা ডায়োপ মারা গেছেন।

দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর ৪২ বছর বয়সী এ ফুটবলার রোববার মারা যান বলে জানিয়েছে বিবিসি স্পোর্টস।

২০০২ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী খেলায় ফ্রান্সকে ১-০ গোলে পরাজিত করেছিল সেনেগাল। সেই খেলায় সেনেগালের পক্ষে একমাত্র গোলটি করেছিলেন ডায়োপ। ফরাসিদের ওই পরাজয় বিশ্বকাপ ইতিহাসে অন্যতম অঘটন হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে আজও।

সেই বিশ্বকাপে ডায়োপের নৈপুণ্যে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে ফুটবলবিশ্বকে চমকে দেখিয়েছিল সেনেগাল। ওই টুর্নামেন্টে উরুগুয়ের বিপক্ষে গ্রুপপর্বে ৩-৩ অমীমাংসিত ম্যাচেও ডায়োপের পা থেকে এসেছিল জোড়া গোল।

২০১৩ সালে অবসরে যাওয়ার আগে সেনেগালের হয়ে ৬৩ ম্যাচ খেলেছেন ডায়োপ। গোল করেছেন ১১টি।

ডায়োপের আকস্মিক মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ামক সংস্থা ফিফা।

ফিফা শোকবার্তায় লিখেছে– ‘একসময়ের বিশ্বকাপ হিরো আজীবন বিশ্বকাপ হিরো হয়েই থেকে যাবেন।’

ডায়োপ ফুলহ্যাম ও পোর্টসমাউথেও খেলেছিলেন। এ ছাড়া ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেড ও বার্মিংহ্যাম সিটির হয়েও খেলেছিলেন তিনি।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ১২৯ ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন সেনেগালের এই কিংবদন্তি।

ডায়োপের মৃত্যুতে তার সাবেক ক্লাব ফুলহ্যামও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শোক জানিয়েছে।

ফুলহ্যামের টুইটার অ্যাকাউন্টে একটি পোস্টে বলা হয়েছে যে, এই দুঃসংবাদে ক্লাবটি ‘বিধ্বস্ত’ এবং ডায়োপের ডাক নাম ব্যবহার করে তারা লিখেছে– ভালো থেকে ওয়ার্ডরোব।

বিশ্বকাপ ও ইপিএল ছাড়াও চারটি আফ্রিকা কাপ অফ নেশনস টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিলেন ডায়োপ।

বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে হারানো সেনেগালের সেই নায়ক আর নেই

 স্পোর্টস ডেস্ক 
৩০ নভেম্বর ২০২০, ০১:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

২০০২ সালের বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে হারানোর নায়ক সেনেগালের সাবেক মিডফিল্ডার পাপা বউবা ডায়োপ মারা গেছেন।  

দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর ৪২ বছর বয়সী এ ফুটবলার রোববার মারা যান বলে জানিয়েছে বিবিসি স্পোর্টস।  

২০০২ বিশ্বকাপের উদ্বোধনী খেলায় ফ্রান্সকে ১-০ গোলে পরাজিত করেছিল সেনেগাল। সেই খেলায় সেনেগালের পক্ষে একমাত্র গোলটি করেছিলেন ডায়োপ। ফরাসিদের ওই পরাজয় বিশ্বকাপ ইতিহাসে অন্যতম অঘটন হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে আজও।

সেই বিশ্বকাপে ডায়োপের নৈপুণ্যে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে ফুটবলবিশ্বকে চমকে দেখিয়েছিল সেনেগাল। ওই টুর্নামেন্টে উরুগুয়ের বিপক্ষে গ্রুপপর্বে ৩-৩ অমীমাংসিত ম্যাচেও ডায়োপের পা থেকে এসেছিল জোড়া গোল।  

২০১৩ সালে অবসরে যাওয়ার আগে সেনেগালের হয়ে ৬৩ ম্যাচ খেলেছেন  ডায়োপ। গোল করেছেন ১১টি। 

ডায়োপের আকস্মিক মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ামক সংস্থা ফিফা।  

ফিফা শোকবার্তায় লিখেছে– ‘একসময়ের বিশ্বকাপ হিরো আজীবন বিশ্বকাপ হিরো হয়েই থেকে যাবেন।’ 

ডায়োপ ফুলহ্যাম ও পোর্টসমাউথেও খেলেছিলেন। এ ছাড়া ওয়েস্টহ্যাম ইউনাইটেড ও বার্মিংহ্যাম সিটির হয়েও খেলেছিলেন তিনি।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ১২৯ ম্যাচে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন সেনেগালের এই কিংবদন্তি।

ডায়োপের মৃত্যুতে তার সাবেক ক্লাব ফুলহ্যামও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শোক জানিয়েছে।

ফুলহ্যামের টুইটার অ্যাকাউন্টে একটি পোস্টে বলা হয়েছে যে, এই দুঃসংবাদে ক্লাবটি ‘বিধ্বস্ত’ এবং ডায়োপের ডাক নাম ব্যবহার করে তারা লিখেছে– ভালো থেকে ওয়ার্ডরোব। 

বিশ্বকাপ ও ইপিএল ছাড়াও চারটি আফ্রিকা কাপ অফ নেশনস টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিলেন ডায়োপ।