আগামী বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আমিরাতে হতে পারে 
jugantor
আগামী বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আমিরাতে হতে পারে 

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৮:৩২:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াসিম খান বলেছেন, আগামী বছর ভারতের পরিবর্তে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক হতে পারে সংযুক্ত আরব আমিরাত। সম্প্রতি এক ইউটিউব চ্যানেলে সাক্ষাত্কারে এমনটি বলেছেন তিনি।

ওয়াসিম খান বলেছেন, ভারতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার ব্যাপারে কিছুটা অনিশ্চয়তা রয়েছে। কারণে সেখানে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। সেই দিক থেকে আমিরাত অনেকটাই নিরাপদ।

ভারতে করোনাভাইরাস তুলনামূলক বেশি সংক্রমিত হওয়ায় সম্প্রতি আইপিএলের ১৩তম আসর আয়োজন করা হয় সংযুক্ত আরব আমিরাতে। আইপিএলের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও আগামী বছর আমিরাতে অনুষ্ঠিত হবে পারে। যদি করোনা পরিস্থতি ভারতে স্বাভাবিক না হয় তাহলে। বিশ্বকাপ আমিরাতেই হচ্ছে এটা ধরেই নেয়া যায়।

আরব আমিরাতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হলে পাকিস্তানের জন্য ভালোই হয়। সীমান্ত সমস্যার কারণে প্রতিবেশী দুই দেশ ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বন্ধ রয়েছে। আগামী বছর ভারতে বিশ্বকাপ হলে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের ভিসা পাওয়া নিয়ে জটিলতা তৈরি হতে পারে। সেজন্য কিছু দিন আগে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) কাছে আবেদন করা হয়েছে, যাতে ভারতের ভিসার নিশ্চয়তা দেয়া হয়।

আগামী বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আমিরাতে হতে পারে 

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াসিম খান বলেছেন, আগামী বছর ভারতের পরিবর্তে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আয়োজক হতে পারে সংযুক্ত আরব আমিরাত। সম্প্রতি এক ইউটিউব চ্যানেলে সাক্ষাত্কারে এমনটি বলেছেন তিনি।

ওয়াসিম খান বলেছেন, ভারতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার ব্যাপারে কিছুটা অনিশ্চয়তা রয়েছে। কারণে সেখানে করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। সেই দিক থেকে আমিরাত অনেকটাই নিরাপদ।

ভারতে করোনাভাইরাস তুলনামূলক বেশি সংক্রমিত হওয়ায় সম্প্রতি আইপিএলের ১৩তম আসর আয়োজন করা হয় সংযুক্ত আরব আমিরাতে। আইপিএলের মতো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও আগামী বছর আমিরাতে অনুষ্ঠিত হবে পারে। যদি করোনা পরিস্থতি ভারতে স্বাভাবিক না হয় তাহলে। বিশ্বকাপ আমিরাতেই হচ্ছে এটা ধরেই নেয়া যায়।

আরব আমিরাতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হলে পাকিস্তানের জন্য ভালোই হয়। সীমান্ত সমস্যার কারণে প্রতিবেশী দুই দেশ ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বন্ধ রয়েছে। আগামী বছর ভারতে বিশ্বকাপ হলে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের ভিসা পাওয়া নিয়ে জটিলতা তৈরি হতে পারে। সেজন্য কিছু দিন আগে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) কাছে আবেদন করা হয়েছে, যাতে ভারতের ভিসার নিশ্চয়তা দেয়া হয়।