হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়াল ভারত
jugantor
হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়াল ভারত

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:২০:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়াল ভারতীয় ক্রিকেট দল। সিরিজের শেষ ম্যাচে ৩০২/৫ রান করে ১৩ রানের জয় পায় বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দলটি।

বুধবার ক্যানবেরার মানুকা ওভালে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে ২৬ রানে ওপেনার শিখর ধাওয়ানের উইকেট হারায় ভারত। তিনে ব্যাটিংয়ে নামা বিরাট কোহলির সঙ্গে ৫৬ রানের জুটি গড়েন শুভম গিল। ২২ মাস পর জাতীয় দলে ফিরে ক্যারিয়ারের তৃতীয় ওয়ানডেতে ৩৯ বলে ৩৩ রান করে আউট হন শুভম।

এরপর কোহলির সঙ্গে মাত্র ৩২ রানের জুটি গড়ে আউট হন স্রেয়াশ আইয়ার। আইপিএলের সবশেষ আসরে প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠে হেরে যায় তার নেতৃত্বাধীন দল দিল্লি ক্যাপিটালস। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে দুর্দান্ত খেলা স্রেয়াশ অস্ট্রেলিয়া সফরে প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স করতে ব্যর্থ। সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে ২ ও ৩৮ রানে আউট হওয়া এ তারকা ব্যাটসম্যান বুধবার ফেরেন মাত্র ১৯ রানে।

আগের ম্যাচে ৭৬ রান করা লোকেশ রাহুল এদিন ফেরেন মাত্র ৫ রানে। দলীয় ১৫২ রানে পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন অধিনায়ক কোহলি। তার আগে ৭৮ বলে ৫টি চারের সাহায্যে ৬৩ রান করেন তিনি।

ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে রবিন্দ্র জাদেজাকে সঙ্গে নিয়ে ১৫০ রানের দায়িত্বশীল জুটি গড়ে দলীয় স্কোর তিনশ পার করেন হার্দিক পান্ডিয়া। প্রথম ম্যাচে নার্ভাস নাইনটিতে (৯০) আউট হওয়া এ তারকা ব্যাটসম্যান বুধবার খেলেন ৭৬ বলে সাত চার ও এক ছক্কায় ৯২ রানের বিধ্বংসী ইনিংস। ৫০ বলে ৫টি চার ও তিন ছক্কায় ৬৬ রানে অপরাজিত ছিলেন জাদেজা।

৩০৩ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৫৬ রানে মার্নাস লাবুশেন ও স্টিভ স্মিথের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। প্রথম দুই ম্যাচে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি তুলে নেয়া স্মিথকে ৭ রানে ফেরান শার্দুল ঠাকুর। তৃতীয় উইকেটে হ্যানরিক্সকে সঙ্গে নিয়ে ৬১ রানের জুটি গড়েন ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ। এরপর ৪১ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে যায় স্বাগতিকরা। ২২ ও ২১ রানে ফেরেন হ্যানরিক্স ও ক্যামেরন গ্রিন। ৮২ বলে ৭৫ রানে আউট অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।

এরপর অ্যালেক্স ক্যারিকে সঙ্গে নিয়ে ৫২ রানের জুটি গড়েন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ২৮ রানে ফেরেন ক্যারি। সপ্তম উইকেট জুটিতে অ্যাস্টন আগরের সঙ্গে ফের ৫৮ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান ম্যাক্সওয়েল। শেষ দিকে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ৩৬ বলে মাত্র ৩৯ রান। হাতে ছিল ৪ উইকেট। ৪৫তম ওভারে ৬ রান খরচ করে একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাওয়া ম্যাক্সওয়েলের উইকেট তুলে নেন জসপ্রিত বুমহার। সাজঘরে ফেরার আগে ৩৮ বলে তিন বাউন্ডারি ও চারটি ছক্কায় ৫৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন ম্যাক্সওয়েল।

অস্ট্রেলিয়ার জয়ের জন্য শেষ ৩০ বলে প্রয়োজন ছিল মাত্র ৩৩ রান। ৪৬তম ওভারে মাত্র ৪ রান খরচ করেন এই ম্যাচে অভিষেক হওয়া ভারতীয় পেসার টি নটরাজন। আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে দুর্দান্ত খেলে জাতীয় দলে ডাক পান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যের সেলামে জন্মনেয়া এই ভারতীয়।

৪৭তম ওভারে মাত্র ৪ রান খরচ করে কাইল অ্যাবটের উইকেট তুলে নেন শার্দুল ঠাকুর। ৪৮তম ওভারের প্রথম বলে নটরাজনের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন অ্যাস্টন আগর। ২৮ রানে তার বিদায়ে জয়ের স্বপ্ন ভেস্তে যায় অস্ট্রেলিয়ার।

শার্দুল ঠাকুরের করা ৪৯তম ওভারে মাত্র ৬ রান নিতে পারেন জস হ্যাজলেউড ও অ্যাডাম জাম্পা। শেষ ওভারে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ১৫ রান। প্রথম বলে সিঙ্গেল নিয়ে প্রান্ত বদল করেন হ্যাজলেউড। বুমরাহর করা দ্বিতীয় বলটি ডট দেন অ্যাডাম জাম্পা। তৃতীয় বলে জাম্পার এলবিডব্লিউ হওয়ার মধ্য দিয়ে ২৮৯ রানে অলআউট অস্ট্রেলিয়া। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট শিকার করেন শার্দুল ঠাকুর, দুটি করে উইকেট নেন বুমরাহ ও নটরাজন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
ভারত: ৫০ ওভারে ৩০২/৫ (পান্ডিয়া ৯২*, জাদেজা ৬৬*, কোহলি ৬৩, শুভম গিল ৩৩; অ্যাস্টন আগার ২/৪৪)।
অস্ট্রেলিয়া: ৪৯.৩ ওভারে ২৮৯/১০ (অ্যারন ফিঞ্চ ৭৫, ম্যাক্সওয়েল ৫৯, অ্যালেক্স ক্যারি ৩৮, অ্যাস্টন আগার ২৮; শার্দুল ৩/৫১)।
ফল: ভারত ১৩ রানে জয়ী।

হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়াল ভারত

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:২০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়াল ভারতীয় ক্রিকেট দল। সিরিজের শেষ ম্যাচে ৩০২/৫ রান করে ১৩ রানের জয় পায় বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন দলটি।  

বুধবার ক্যানবেরার মানুকা ওভালে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে ২৬ রানে ওপেনার শিখর ধাওয়ানের উইকেট হারায় ভারত। তিনে ব্যাটিংয়ে নামা বিরাট কোহলির সঙ্গে ৫৬ রানের জুটি গড়েন শুভম গিল। ২২ মাস পর জাতীয় দলে ফিরে ক্যারিয়ারের তৃতীয় ওয়ানডেতে ৩৯ বলে ৩৩ রান করে আউট হন শুভম।  

এরপর কোহলির সঙ্গে মাত্র ৩২ রানের জুটি গড়ে আউট হন স্রেয়াশ আইয়ার।  আইপিএলের সবশেষ আসরে প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠে হেরে যায় তার নেতৃত্বাধীন দল দিল্লি ক্যাপিটালস।  ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে দুর্দান্ত খেলা স্রেয়াশ অস্ট্রেলিয়া সফরে প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স করতে ব্যর্থ।  সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে ২ ও ৩৮ রানে আউট হওয়া এ তারকা ব্যাটসম্যান বুধবার ফেরেন মাত্র ১৯ রানে।  

আগের ম্যাচে ৭৬ রান করা লোকেশ রাহুল এদিন ফেরেন মাত্র ৫ রানে। দলীয় ১৫২ রানে পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন অধিনায়ক কোহলি। তার আগে ৭৮ বলে ৫টি চারের সাহায্যে ৬৩ রান করেন তিনি। 

ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে রবিন্দ্র জাদেজাকে সঙ্গে নিয়ে ১৫০ রানের দায়িত্বশীল জুটি গড়ে দলীয় স্কোর তিনশ পার করেন হার্দিক পান্ডিয়া। প্রথম ম্যাচে নার্ভাস নাইনটিতে (৯০) আউট হওয়া এ তারকা ব্যাটসম্যান বুধবার খেলেন ৭৬ বলে সাত চার ও এক ছক্কায় ৯২ রানের বিধ্বংসী ইনিংস। ৫০ বলে ৫টি চার ও তিন ছক্কায় ৬৬ রানে অপরাজিত ছিলেন জাদেজা। 

৩০৩ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৫৬ রানে মার্নাস লাবুশেন ও স্টিভ স্মিথের উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া। প্রথম দুই ম্যাচে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি তুলে নেয়া স্মিথকে ৭ রানে ফেরান শার্দুল ঠাকুর। তৃতীয় উইকেটে হ্যানরিক্সকে সঙ্গে নিয়ে ৬১ রানের জুটি গড়েন ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ। এরপর ৪১ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে যায় স্বাগতিকরা। ২২ ও ২১ রানে ফেরেন হ্যানরিক্স ও ক্যামেরন গ্রিন। ৮২ বলে ৭৫ রানে আউট অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।  

এরপর অ্যালেক্স ক্যারিকে সঙ্গে নিয়ে ৫২ রানের জুটি গড়েন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ২৮ রানে ফেরেন ক্যারি। সপ্তম উইকেট জুটিতে অ্যাস্টন আগরের সঙ্গে ফের ৫৮ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখান ম্যাক্সওয়েল। শেষ দিকে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ৩৬ বলে মাত্র ৩৯ রান। হাতে ছিল ৪ উইকেট। ৪৫তম ওভারে ৬ রান খরচ করে একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে যাওয়া ম্যাক্সওয়েলের উইকেট তুলে নেন জসপ্রিত বুমহার। সাজঘরে ফেরার আগে ৩৮ বলে তিন বাউন্ডারি ও চারটি ছক্কায় ৫৯ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন ম্যাক্সওয়েল।

অস্ট্রেলিয়ার জয়ের জন্য শেষ ৩০ বলে প্রয়োজন ছিল মাত্র ৩৩ রান। ৪৬তম ওভারে মাত্র ৪ রান খরচ করেন এই ম্যাচে অভিষেক হওয়া ভারতীয় পেসার টি নটরাজন। আইপিএলে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে দুর্দান্ত খেলে জাতীয় দলে ডাক পান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যের সেলামে জন্মনেয়া এই ভারতীয়। 

৪৭তম ওভারে মাত্র ৪ রান খরচ করে কাইল অ্যাবটের উইকেট তুলে নেন শার্দুল ঠাকুর। ৪৮তম ওভারের প্রথম বলে নটরাজনের বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন অ্যাস্টন আগর। ২৮ রানে তার বিদায়ে জয়ের স্বপ্ন ভেস্তে যায় অস্ট্রেলিয়ার।  

শার্দুল ঠাকুরের করা ৪৯তম ওভারে মাত্র ৬ রান নিতে পারেন জস হ্যাজলেউড ও অ্যাডাম জাম্পা। শেষ ওভারে জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রয়োজন ছিল ১৫ রান।  প্রথম বলে সিঙ্গেল নিয়ে প্রান্ত বদল করেন হ্যাজলেউড। বুমরাহর করা দ্বিতীয় বলটি ডট দেন অ্যাডাম জাম্পা। তৃতীয় বলে জাম্পার এলবিডব্লিউ হওয়ার মধ্য দিয়ে ২৮৯ রানে অলআউট অস্ট্রেলিয়া। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট শিকার করেন শার্দুল ঠাকুর, দুটি করে উইকেট নেন বুমরাহ ও নটরাজন।  

সংক্ষিপ্ত স্কোর
ভারত: ৫০ ওভারে ৩০২/৫ (পান্ডিয়া ৯২*, জাদেজা ৬৬*, কোহলি ৬৩, শুভম গিল ৩৩; অ্যাস্টন আগার ২/৪৪)।
অস্ট্রেলিয়া: ৪৯.৩ ওভারে ২৮৯/১০ (অ্যারন ফিঞ্চ ৭৫, ম্যাক্সওয়েল ৫৯, অ্যালেক্স ক্যারি ৩৮, অ্যাস্টন আগার ২৮; শার্দুল ৩/৫১)।
ফল: ভারত ১৩ রানে জয়ী।