ফুটবলে মাতৃত্বকালীন ছুটি চালু করল ফিফা
jugantor
ফুটবলে মাতৃত্বকালীন ছুটি চালু করল ফিফা

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ১৩:৩২:৫৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নারী ফুটবলারদের জন্য ১৪ সপ্তাহের মাতৃত্বকালীন ছুটির অনুমোদন দিয়েছে বিশ্বফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা।

শুক্রবার ফিফার পরিচালনা পর্ষদ নতুন এই আইন অনুমোদনের কথা জানিয়েছে।

যুগান্তকারী এই পদক্ষেপের বিষয়ে ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো বলেছেন, এই আইনে নারী ফুটবলাররা ১৪ সপ্তাহ মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন। এর মধ্যে সন্তান জন্মের পর বাধ্যতামূলক কমপক্ষে ৮ সপ্তাহ ছুটি দিতে হবে।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমরা যদি নারীদের খেলায় উজ্জীবিত করতে চাই, তাহলে এসব বিষয় দেখতে হবে। নারী ফুটবলারদের ক্যারিয়ারকে আরও বেশি স্থায়ী করতে এমন কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন। বিশেষ করে মাতৃত্বকালীন ছুটি নিয়ে যেন তারা চিন্তিত না হন। যখন ছুটির প্রয়োজন পড়বে তারা এই চিন্তায় না পড়েন যে, তারা ফের খেলায় ফিরতে পারবে কি না।

এ বিষয়ে ফিফা জানিয়েছে, মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষে ক্লাবগুলোকে তাদের নারী ফুটবলারদের পুনরায় ফুটবলে সম্পৃক্ত করতে বাধ্য থাকবে। শুধু তাই নয়, প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবাও দিতে হবে ক্লাবকে।

নতুন আইনের বিষয়ে ফিফা প্রেসিডেন্ট বলেন, এই আইনে কোচদের জন্য বিশেষ সুবিধা থাকবে। কোচরা খেলোয়াড়দের মান বাড়ান। তারা খেলোয়াড়দের উৎসাহ দেন। তাদেরও চাকরির নিশ্চয়তা দরকার। তাদের সুরক্ষার জন্য আমাদের ন্যূনতম মান বজায় রাখতে হবে।

ফিফা সূত্রে জানা গেছে, ১৪ সপ্তাহের মাতৃত্বকালীন বাধ্যতামূলক ছুটির আইনে খেলোয়াড়দের তাদের চুক্তির দুই-তৃতীয়াংশ অর্থের নিশ্চয়তা থাকবে। গর্ভধারণের কারণে কোনো ফুটবলার যেন কোনো ধরনের ভোগান্তি না পড়েন তা নিশ্চিত করতে ফিফা আরও কঠোর হবে।

তথ্যসূত্র: ইএসপিএন

ফুটবলে মাতৃত্বকালীন ছুটি চালু করল ফিফা

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারী ফুটবলারদের জন্য ১৪ সপ্তাহের মাতৃত্বকালীন ছুটির অনুমোদন দিয়েছে বিশ্বফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা।  

শুক্রবার ফিফার পরিচালনা পর্ষদ নতুন এই আইন অনুমোদনের কথা জানিয়েছে।

যুগান্তকারী এই পদক্ষেপের বিষয়ে ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো বলেছেন, এই আইনে নারী ফুটবলাররা ১৪ সপ্তাহ মাতৃত্বকালীন ছুটি পাবেন। এর মধ্যে সন্তান জন্মের পর বাধ্যতামূলক কমপক্ষে ৮ সপ্তাহ ছুটি দিতে হবে।  

তিনি সাংবাদিকদের বলেন,  আমরা যদি নারীদের খেলায় উজ্জীবিত করতে চাই, তাহলে এসব বিষয় দেখতে হবে।  নারী ফুটবলারদের ক্যারিয়ারকে আরও বেশি স্থায়ী করতে এমন কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন।  বিশেষ করে মাতৃত্বকালীন ছুটি নিয়ে যেন তারা চিন্তিত না হন। যখন ছুটির প্রয়োজন পড়বে তারা এই চিন্তায় না পড়েন যে, তারা ফের খেলায় ফিরতে পারবে কি না।  

এ বিষয়ে ফিফা জানিয়েছে, মাতৃত্বকালীন ছুটি শেষে ক্লাবগুলোকে তাদের নারী ফুটবলারদের পুনরায় ফুটবলে সম্পৃক্ত করতে বাধ্য থাকবে। শুধু তাই নয়, প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবাও দিতে হবে ক্লাবকে।

নতুন আইনের বিষয়ে ফিফা প্রেসিডেন্ট বলেন, এই আইনে কোচদের জন্য বিশেষ সুবিধা থাকবে। কোচরা খেলোয়াড়দের মান বাড়ান। তারা খেলোয়াড়দের উৎসাহ দেন।  তাদেরও চাকরির নিশ্চয়তা দরকার।  তাদের সুরক্ষার জন্য আমাদের ন্যূনতম মান বজায় রাখতে হবে।

ফিফা সূত্রে জানা গেছে, ১৪ সপ্তাহের মাতৃত্বকালীন বাধ্যতামূলক ছুটির আইনে খেলোয়াড়দের তাদের চুক্তির দুই-তৃতীয়াংশ অর্থের নিশ্চয়তা থাকবে।  গর্ভধারণের কারণে কোনো ফুটবলার যেন কোনো ধরনের ভোগান্তি না পড়েন তা নিশ্চিত করতে ফিফা আরও কঠোর হবে।

তথ্যসূত্র: ইএসপিএন