১০ বছর আগে ‘১৯ জানুয়ারিতে’ অঝোরে কেঁদেছিলেন মাশরাফি
jugantor
১০ বছর আগে ‘১৯ জানুয়ারিতে’ অঝোরে কেঁদেছিলেন মাশরাফি

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২০ জানুয়ারি ২০২১, ০২:১২:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

১০ বছর আগে ‘১৯ জানুয়ারিতে’ অঝোরে কেঁদেছিলেন মাশরাফি

দশ মাসেরও বেশি সময় পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে যাচ্ছে টাইগাররা। রাত পোহালেই বুধবার বেলা সাড়ে এগারটায় মিরপুর শেরে-বাংলা ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মাঠে নামবে তামিম বাহিনী। আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে প্রথম নেতৃত্ব দেয়ার স্বাদ নেবেন তামিম ইকবাল।

এক সময় লাল-সবুজের এ দলকে মাশরাফি বাহিনী বলা হতো। সময়ের পরিক্রমায় বুধবারের ম্যাচে সেই মাশরাফিই নেই। যদিও অবসরের ঘোষণা দেননি জাতীয় দলের এ সাবেক অধিনায়ক।

তবে আগামী ২০২৩ সালের বিশ্বকাপ পরিকল্পনা সামনে রেখে উইন্ডিজ সিরিজের জন্য দল গঠন করায় স্থান হয়নি মাশরাফির।

তবুও দীর্ঘসময় পর আন্তর্জাতিকে ফেরার শুভকামনা জানাতে এতটুকুন কার্পণ্য করেননি মাশরাফি। ১৯ জানুয়ারি (মঙ্গলবার) এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে বুকভরা হাসি নিয়ে প্রিয় দলের জন্য দোয়া চাইলেন তিনি।

অথচ কোনো এক ১৯ জানুয়ারিতেই কেঁদে বুক ভাসিয়েছিলেন মাশরাফি। সেবারও ফিট থাকার পরও দলে ঠাঁই না পেয়ে কেঁদেছিলেন। ঘটনাটি জানতে হলে ফিরে তাকাতে হবে ঠিক ১০ বছর আগে।

২০১১ সালের শুরু থেকেই স্বপ্ন বুনছিলেন বিশ্বকাপ মঞ্চে খেলার। স্বপ্ন বুনছিলেন সে সময়ের ২৮ বছরের এ নড়াইল এক্সপ্রেস। কিন্তু ১৯ জানুয়ারিতে জানানো হয়, বিশ্বকাপ স্কোয়াডে জায়গা হয়নি তার। সে যন্ত্রণায় সেদিন কেঁদেছিলেন। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে ঠাঁই না পাওয়ার দুঃখ, কষ্ট, যন্ত্রনা আর বেদনা সেদিন প্রকাশ্যেই প্রকাশ করেছিলেন মাশরাফি।

ঠিক ১০ বছর পর এই মাসেই হোম সিরিজের স্কোয়াডে ঠাঁই হয়নি তার। সেই ১৯ জানুয়ারির দিনটিতে স্মরণ করে কাঁদেননি মাশরাফি। উল্টো হাসিমুখে তামিম বাহিনীকে শুভেচ্ছা ও শুভ কামনা জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে মাশরাফি লেখেন- বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের দীর্ঘ দিনের অপেক্ষার অবসান ঘটে প্রিয় ক্রিকেট দল বুধবার মাঠে নামছে। পুরো দলের প্রতি রইল শুভকামনা। তামিম ইকবালের জন্য রইল স্পেশাল ভালোবাসা এবং দোয়া। সব চাপকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে সবসময়ের মতো বিজয়ী হয়ে আসবে এ দোয়াই করছি। নতুন শুরুর জন্য শুভকামনা। আওয়াজ একটাই-বাংলাদেশ।

জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়কের করা পোস্ট মুহূর্তেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। মাত্র ২ ঘণ্টার ব্যবধানে তার দেয়া পোস্টে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এক লাখ ৭৭ হাজার মানুষ।

১০ বছর আগে ‘১৯ জানুয়ারিতে’ অঝোরে কেঁদেছিলেন মাশরাফি

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২০ জানুয়ারি ২০২১, ০২:১২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
১০ বছর আগে ‘১৯ জানুয়ারিতে’ অঝোরে কেঁদেছিলেন মাশরাফি
ফাইল ফটো

দশ মাসেরও বেশি সময় পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে যাচ্ছে টাইগাররা। রাত পোহালেই বুধবার বেলা সাড়ে এগারটায় মিরপুর শেরে-বাংলা ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মাঠে নামবে তামিম বাহিনী। আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে প্রথম নেতৃত্ব দেয়ার স্বাদ নেবেন তামিম ইকবাল।

এক সময় লাল-সবুজের এ দলকে মাশরাফি বাহিনী বলা হতো। সময়ের পরিক্রমায় বুধবারের ম্যাচে সেই মাশরাফিই নেই।  যদিও অবসরের ঘোষণা দেননি জাতীয় দলের এ সাবেক অধিনায়ক। 

তবে আগামী ২০২৩ সালের বিশ্বকাপ পরিকল্পনা সামনে রেখে উইন্ডিজ সিরিজের জন্য দল গঠন করায় স্থান হয়নি মাশরাফির। 

তবুও দীর্ঘসময় পর আন্তর্জাতিকে ফেরার শুভকামনা জানাতে এতটুকুন কার্পণ্য করেননি মাশরাফি। ১৯ জানুয়ারি (মঙ্গলবার) এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে বুকভরা হাসি নিয়ে প্রিয় দলের জন্য দোয়া চাইলেন তিনি।

অথচ কোনো এক ১৯ জানুয়ারিতেই কেঁদে বুক ভাসিয়েছিলেন মাশরাফি। সেবারও ফিট থাকার পরও দলে ঠাঁই না পেয়ে কেঁদেছিলেন। ঘটনাটি জানতে হলে ফিরে তাকাতে হবে ঠিক ১০ বছর আগে।

২০১১ সালের শুরু থেকেই স্বপ্ন বুনছিলেন বিশ্বকাপ মঞ্চে খেলার। স্বপ্ন বুনছিলেন সে সময়ের ২৮ বছরের এ নড়াইল এক্সপ্রেস। কিন্তু ১৯ জানুয়ারিতে জানানো হয়, বিশ্বকাপ স্কোয়াডে জায়গা হয়নি তার। সে যন্ত্রণায় সেদিন কেঁদেছিলেন। বিশ্বকাপ স্কোয়াডে ঠাঁই না পাওয়ার দুঃখ, কষ্ট, যন্ত্রনা আর বেদনা সেদিন প্রকাশ্যেই প্রকাশ করেছিলেন মাশরাফি। 

ঠিক ১০ বছর পর এই মাসেই হোম সিরিজের স্কোয়াডে ঠাঁই হয়নি তার। সেই ১৯ জানুয়ারির দিনটিতে স্মরণ করে কাঁদেননি মাশরাফি। উল্টো হাসিমুখে তামিম বাহিনীকে শুভেচ্ছা ও শুভ কামনা জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে মাশরাফি লেখেন- বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের দীর্ঘ দিনের অপেক্ষার অবসান ঘটে প্রিয় ক্রিকেট দল বুধবার মাঠে নামছে। পুরো দলের প্রতি রইল শুভকামনা। তামিম ইকবালের জন্য রইল স্পেশাল ভালোবাসা এবং দোয়া। সব চাপকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে সবসময়ের মতো বিজয়ী হয়ে আসবে এ দোয়াই করছি। নতুন শুরুর জন্য শুভকামনা। আওয়াজ একটাই-বাংলাদেশ।

জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়কের করা পোস্ট মুহূর্তেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। মাত্র ২ ঘণ্টার ব্যবধানে তার দেয়া পোস্টে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এক লাখ ৭৭ হাজার মানুষ।

 

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ ২০২১ ঢাকা

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১