উইন্ডিজের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক সিরিজ জয়, ম্যাচসেরা মিরাজ
jugantor
উইন্ডিজের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক সিরিজ জয়, ম্যাচসেরা মিরাজ

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২২ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:১৯:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতল বাংলাদেশ।

টানা দুই ম্যাচে ক্যারিবীয় তারুণ্যনির্ভর দলকে ১২২ ও ১৪৮ রানে গুড়িয়ে দিয়ে ৬ ও ৭ উইকেটের জয়ে সিরিজ নিজেদের করে নেয় স্বাগতিক বাংলাদেশ।

এ সিরিজ জয়ে সাফল্যের মুকুটে আরও একটি পালক যোগ করল টাইগাররা।

তা হলো- ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের হ্যাটট্রিক করে ফেলল বাংলাদেশ। ২০১৮ সালে প্রতিপক্ষের মাটিতে ২-১ ব্যবধানে, পরের বছর ঘরের মাঠে একই ব্যবধানে সিরিজ জেতে বাংলাদেশ। এবার ঘরের মাঠে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করল তামিম-সাকিবরা।

এর আগে কেবল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এ কীর্তির গড়ে বাংলাদেশ। দলটির বিপক্ষে সর্বোচ্চ টানা ৬টি সিরিজ জেতার রেকর্ড রয়েছে বাংলাদেশের।

সে হিসাবে জিম্বাবুয়ের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে কোনো দেশের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের হ্যাটট্রিক হলো টাইগারদের।

গত বুধবার প্রথম ম্যাচে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিজাদুতে কুপোকাত হয়েছিল ক্যারিবীয়রা। ৪ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি।

শুক্রবার সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে সাকিবের জায়গাটি নিলেন অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ। তিনিও ৪টি উইকেট শিকার করেছেন। ৯.৪ ওভার বল করে মাত্র ২৫ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছেন মিরাজ।

ওয়ানডেতে এটিই তার ক্যারিয়ারসেরা বোলিং ফিগার। আর এ ক্যারিয়ারসেরা বোলিংয়ের দিনে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কারটি উঠেছে তারই হাতে।

মিরাজের এর আগের ক্যারিয়ারসেরা বোলিং ফিগার ছিল এই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেই। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে হাত ঘুরিয়ে ২৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছিলেন মিরাজ। এবার একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ৪ রান কম দিয়ে সমানসংখ্যক উইকেট নিলেন।

ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়ে প্রতিক্রিয়ায় মিরাজ বলেছেন, আমি অনেক খুশি। কারণ প্রথম ম্যাচে ভালো জায়গায় বোলিং করতে পারিনি। পরে সাকিব ভাইয়ের মতো সিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলেছি, ভেট্টোরি (স্পিন কোচ) কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। আমার পরিকল্পনা ছিল ছক্কা হজম করা যাবে না। সে কথা মাথায় রেখে ব্যাটসম্যানদের এগিয়ে এসে মারার সুযোগ দেইনি।

উইন্ডিজের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক সিরিজ জয়, ম্যাচসেরা মিরাজ

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৬:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতল বাংলাদেশ।

টানা দুই ম্যাচে ক্যারিবীয় তারুণ্যনির্ভর দলকে ১২২ ও ১৪৮ রানে গুড়িয়ে দিয়ে ৬ ও ৭ উইকেটের জয়ে সিরিজ নিজেদের করে নেয় স্বাগতিক বাংলাদেশ।

এ সিরিজ জয়ে সাফল্যের মুকুটে আরও একটি পালক যোগ করল টাইগাররা।

তা হলো- ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের হ্যাটট্রিক করে ফেলল বাংলাদেশ। ২০১৮ সালে প্রতিপক্ষের মাটিতে ২-১ ব্যবধানে, পরের বছর ঘরের মাঠে একই ব্যবধানে সিরিজ জেতে বাংলাদেশ। এবার ঘরের মাঠে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করল তামিম-সাকিবরা।

এর আগে কেবল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এ কীর্তির গড়ে বাংলাদেশ। দলটির বিপক্ষে সর্বোচ্চ টানা ৬টি সিরিজ জেতার রেকর্ড রয়েছে বাংলাদেশের।

সে হিসাবে জিম্বাবুয়ের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে কোনো দেশের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের হ্যাটট্রিক হলো টাইগারদের।

গত বুধবার প্রথম ম্যাচে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণিজাদুতে কুপোকাত হয়েছিল ক্যারিবীয়রা। ৪ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি।

শুক্রবার সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে সাকিবের জায়গাটি নিলেন অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ। তিনিও ৪টি উইকেট শিকার করেছেন। ৯.৪ ওভার বল করে মাত্র ২৫ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছেন মিরাজ।

ওয়ানডেতে এটিই তার ক্যারিয়ারসেরা বোলিং ফিগার। আর এ ক্যারিয়ারসেরা বোলিংয়ের দিনে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কারটি উঠেছে তারই হাতে।

মিরাজের এর আগের ক্যারিয়ারসেরা বোলিং ফিগার ছিল এই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেই। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে হাত ঘুরিয়ে ২৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়েছিলেন মিরাজ। এবার একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ৪ রান কম দিয়ে সমানসংখ্যক উইকেট নিলেন।

ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়ে প্রতিক্রিয়ায় মিরাজ বলেছেন, আমি অনেক খুশি। কারণ প্রথম ম্যাচে ভালো জায়গায় বোলিং করতে পারিনি। পরে সাকিব ভাইয়ের মতো সিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলেছি, ভেট্টোরি (স্পিন কোচ) কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। আমার পরিকল্পনা ছিল ছক্কা হজম করা যাবে না। সে কথা মাথায় রেখে ব্যাটসম্যানদের এগিয়ে এসে মারার সুযোগ দেইনি।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ ২০২১ ঢাকা

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১