যে কারণে বাদ পড়লেন মোস্তাফিজ 
jugantor
যে কারণে বাদ পড়লেন মোস্তাফিজ 

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:৫৪:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা টেস্টে একাদশে পরিবর্তন আসবে সেটি অনুমিতই ছিল। কারণ চট্টগ্রাম টেস্ট খেলা দুজন ইনজুরিতে পড়ায় তাদের একাদশে না থাকাটাই স্বাভাবিক।

বর্তমানে দলের সেরা পেসার মোস্তাফিজুর রহমানকেও বাদ দেওয়া হয়েছে মিরপুর টেস্ট থেকে। টিম ম্যানেজমেন্টের এই সিদ্ধান্তে অবাক হয়েছেন অনেকেই। মোস্তাফিজকে দলে না রাখার যুক্তি খুঁজছেন তারা।

একাদশে তিন পরিবর্তন নিয়ে টস হেরে ফিল্ডিং করছেন মুমিনুলরা। এ প্রতিবেদন লেখার সময় ২১ ওভার খেলা শেষে ৭০ রানে ব্যাট করছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এখনও কোনো সফলতা পাননি বাংলাদেশের বোলাররা।

এই টেস্টেও ক্যারিবীয়াদের স্পিনের ফাঁদে ফেলার কৌশল সামনে রেখে একাদশ সাজানো হয়েছে। একাদশে রাখা হয়েছে তিন স্পিনার মিরাজ, তাইজুল ও নাঈমকে।

সিরিজ বাঁচানোর এই ম্যাচে সুযোগ দেওয়া হয়েছে সৌম্য সরকার, আবু জায়েদ রাহি ও মোহাম্মদ মিঠুনকে। বাদ পড়েছেন বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমান।

অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান চোটের কারণে খেলতে পারছেন না, যেটি অনুমিতই ছিল। আর শেষ দিকে এসে ওপেনার সাদমানও একাদশ থেকে ছিটকে পড়েন ইনজুরির কারণে।

সাকিবের বদলে একাদশে স্থান পেয়েছেন সৌম্য সরকার। আর সাদমানের জায়গায় দলে নেওয়া হয়েছে মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান মিঠুনকে। পেসার আবু জাহেদ রাহিকেও দলে রাখা হয়েছে।

রাহিকে দলে রাখতে গিয়ে বাদ দিতে হয়েছে মোস্তাফিজুর রহমানকে।

ম্যাচ শুরুর আগের দিন পেসারদের বাড়তি গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলেছিলেন মুমিনুল হক। বাংলাদেশ অধিনায়ক দুজন পেসারের আভাস দিলেও স্বাগতিকরা খেলছেন এক পেসার নিয়েই। গত টেস্টের মতো এই টেস্টেও স্পিনারদের প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

মোস্তাফিজকে বাদ দেওয়ার কারণ হিসেবে চট্টগ্রাম টেস্টে দ্বিতীয় ইনিংসের তার বিবর্ণ বোলিংকে দায়ী করা হচ্ছে। এ কারণেই হয়তো তাকে দলে রাখা হয়নি।

সাগরিকায় প্রথম ইনিংসে ১৫ ওভার বল করে ৪৬ রান দিয়ে ২ উইকেট পেয়েছিলেন এই পেসার। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে তার বলে ধার দেখা যায়নি। ১৩ ওভার সাদামাটা হাত ঘুরিয়ে উইকেটের দেখা পাননি।

তার স্থলে দলে জায়গা করে দেওয়া হয়েছে সাম্প্রতিক সময়ে সফল পেসার আবু জায়েদ রাহি। অভিজ্ঞ মোস্তাফিজের জায়গায় তরুণ রাহিকে সুযোগ দেওয়া কতটা যৌক্তিক হলো সেটি জানতে আরও কিছুটা সময় ক্রিকেট অনুরাগীদের অপেক্ষা করতে হবে। মিরপুর টেস্টে প্রথম সোয়া এক ঘণ্টায় কোনো সফলতা দেখাতে পারেননি রাহি। ৬ ওভার বল করে ১৮ রান দিয়েছেন। মেডেন পেয়েছেন দুই ওভার।

সিরিজের প্রথম ম্যাচে চট্টগ্রামে কাইল মেয়ার্সের ডাবল সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশকে হারিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তুমুল লড়াইয়ের পর চতুর্থ ইনিংসে ৩৯৫ রানের পাহাড় টপকে রেকর্ড জয় তুলে নেন সফরকারীরা। মেয়ার্স তার অভিষেক ম্যাচে খেলেন ২১০ রানের অপরাজিত ইনিংস। ওই ম্যাচে জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে ওয়েস্ট।

ঢাকা টেস্টে জিতে এবার ট্রফি নেওয়া দেশে ফেরাই অতিথিদের মূল লক্ষ্য। কারণ সফরের শুরুতে ওয়ানডে সিরিজ জিততে পারেননি ক্যারিবিয়ানরা। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই প্রতিশোধ টেস্ট সিরিজ দিয়েই নিতেই মুখিয়ে আছেন তারা। তা ছাড়া প্রথম ম্যাচের জয়ের আত্মবিশ্বাসে বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছেন অতিথিরা।

বাংলাদেশ একাদশ: মুমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মাদ মিঠুন, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ রাহি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশ : ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট (অধিনায়ক), জার্মেইন ব্ল্যাকউড, এনক্রুমা বোনের, জন ক্যাম্পবেল, রাকিম কর্নওয়াল, জশুয়া ডি সিলভা, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, আলজারি জোসেফ, কাইল মায়ার্স, শেন মোজলি, জোমেল ওয়ারিক্যান।


যে কারণে বাদ পড়লেন মোস্তাফিজ 

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১১ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:৫৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা টেস্টে একাদশে পরিবর্তন আসবে সেটি অনুমিতই ছিল। কারণ চট্টগ্রাম টেস্ট খেলা দুজন ইনজুরিতে পড়ায় তাদের একাদশে না থাকাটাই স্বাভাবিক।  

বর্তমানে দলের সেরা পেসার মোস্তাফিজুর রহমানকেও বাদ দেওয়া হয়েছে মিরপুর টেস্ট থেকে। টিম ম্যানেজমেন্টের এই সিদ্ধান্তে অবাক হয়েছেন অনেকেই।  মোস্তাফিজকে দলে না রাখার যুক্তি খুঁজছেন তারা। 

একাদশে তিন পরিবর্তন নিয়ে টস হেরে ফিল্ডিং করছেন মুমিনুলরা। এ প্রতিবেদন লেখার সময় ২১ ওভার খেলা শেষে ৭০ রানে ব্যাট করছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এখনও কোনো সফলতা পাননি বাংলাদেশের বোলাররা।   

এই টেস্টেও ক্যারিবীয়াদের স্পিনের ফাঁদে ফেলার কৌশল সামনে রেখে একাদশ সাজানো হয়েছে। একাদশে রাখা হয়েছে তিন স্পিনার মিরাজ, তাইজুল ও নাঈমকে।

সিরিজ বাঁচানোর এই ম্যাচে সুযোগ দেওয়া হয়েছে সৌম্য সরকার, আবু জায়েদ রাহি ও মোহাম্মদ মিঠুনকে। বাদ পড়েছেন বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। 

অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান চোটের কারণে খেলতে পারছেন না, যেটি অনুমিতই ছিল। আর শেষ দিকে এসে ওপেনার সাদমানও একাদশ থেকে ছিটকে পড়েন ইনজুরির কারণে। 

সাকিবের বদলে একাদশে স্থান পেয়েছেন সৌম্য সরকার। আর সাদমানের জায়গায় দলে নেওয়া হয়েছে মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান মিঠুনকে। পেসার আবু জাহেদ রাহিকেও দলে রাখা হয়েছে।

রাহিকে দলে রাখতে গিয়ে বাদ দিতে হয়েছে মোস্তাফিজুর রহমানকে।

ম্যাচ শুরুর আগের দিন পেসারদের বাড়তি গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলেছিলেন মুমিনুল হক।  বাংলাদেশ অধিনায়ক দুজন পেসারের আভাস দিলেও স্বাগতিকরা খেলছেন এক পেসার নিয়েই। গত টেস্টের মতো এই টেস্টেও স্পিনারদের প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। 

মোস্তাফিজকে বাদ দেওয়ার কারণ হিসেবে চট্টগ্রাম টেস্টে দ্বিতীয় ইনিংসের তার বিবর্ণ বোলিংকে দায়ী করা হচ্ছে। এ কারণেই হয়তো তাকে দলে রাখা হয়নি। 

সাগরিকায় প্রথম ইনিংসে ১৫ ওভার বল করে ৪৬ রান দিয়ে ২ উইকেট পেয়েছিলেন এই পেসার। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে তার বলে ধার দেখা যায়নি। ১৩ ওভার সাদামাটা হাত ঘুরিয়ে উইকেটের দেখা পাননি।  

তার স্থলে দলে জায়গা করে দেওয়া হয়েছে সাম্প্রতিক সময়ে সফল পেসার আবু জায়েদ রাহি। অভিজ্ঞ মোস্তাফিজের জায়গায় তরুণ রাহিকে সুযোগ দেওয়া কতটা যৌক্তিক হলো সেটি জানতে আরও কিছুটা সময় ক্রিকেট অনুরাগীদের অপেক্ষা করতে হবে।  মিরপুর টেস্টে প্রথম সোয়া এক ঘণ্টায় কোনো সফলতা দেখাতে পারেননি রাহি। ৬ ওভার বল করে ১৮ রান দিয়েছেন।  মেডেন পেয়েছেন দুই ওভার।    

সিরিজের প্রথম ম্যাচে চট্টগ্রামে কাইল মেয়ার্সের ডাবল সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশকে হারিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তুমুল লড়াইয়ের পর চতুর্থ ইনিংসে ৩৯৫ রানের পাহাড় টপকে রেকর্ড জয় তুলে নেন সফরকারীরা। মেয়ার্স তার অভিষেক ম্যাচে খেলেন ২১০ রানের অপরাজিত ইনিংস। ওই ম্যাচে জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে ওয়েস্ট।

ঢাকা টেস্টে জিতে এবার ট্রফি নেওয়া দেশে ফেরাই অতিথিদের মূল লক্ষ্য। কারণ সফরের শুরুতে ওয়ানডে সিরিজ জিততে পারেননি ক্যারিবিয়ানরা। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই প্রতিশোধ টেস্ট সিরিজ দিয়েই নিতেই মুখিয়ে আছেন তারা। তা ছাড়া প্রথম ম্যাচের জয়ের আত্মবিশ্বাসে বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছেন অতিথিরা।

বাংলাদেশ একাদশ: মুমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মাদ মিঠুন, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ রাহি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশ : ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট (অধিনায়ক), জার্মেইন ব্ল্যাকউড, এনক্রুমা বোনের, জন ক্যাম্পবেল, রাকিম কর্নওয়াল, জশুয়া ডি সিলভা, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, আলজারি জোসেফ, কাইল মায়ার্স, শেন মোজলি, জোমেল ওয়ারিক্যান।


 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট সিরিজ - ২০২০

৩০ জুলাই, ২০২০
২৬ জুলাই, ২০২০