পাপনকে যে কারণে ফোন করলেন কাজী সালাউদ্দিন
jugantor
পাপনকে যে কারণে ফোন করলেন কাজী সালাউদ্দিন

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৯:২৫:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নাজমুল হাসান পাপন-কাজী সালাউদ্দিন

ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় সারির দলের বিপক্ষে টাইগারদের পরাজয়ের পর মেজাজ হারিয়ে ক্রিকেটারদের হুমকি দেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

দলের পরাজয়ের হতাশা কেটে ওঠার আগেই বিসিবি সভাপতিকে ফোন করলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।

উইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার ধকল সামলে ওঠার আগেই বাফুফে সভাপতির ফোন পেলেন বিসিবি সভাপতি। এমন খবর শোনার পর অনেকেই মনে করেছেন টেস্ট সিরিজ হারে হতাশ হওয়া পাপনকে শান্তনা দেয়ার জন্যই হয়তো ফোন করেছেন দেশের ফুটবল কিংবদন্তি।

কিন্তু না, শান্তনা দেয়ার জন্য নয়। মাঠ সংকটে রয়েছে বাফুফে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম ও কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম ছাড়া ফুটবলের জন্য রাজধানীতে মাঠ নেই।

প্রিমিয়ার লিগের বেশিরভাগ ক্লাব বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামকে হোমভেন্যু করায় এই মাঠের অবস্থা দিনকে দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে। সামনে ফুটবলের আরও কয়েকটি লিগ শুরু হবে।

মাঠ সমস্যা সমাধানে বাফুফে চাচ্ছে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম ব্যবহার করতে। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ এই স্টেডিয়ামটি ক্রিকেট বোর্ডকে দিয়েছে ব্যবহারের জন্য।

গত তিন বছর ফতুল্লা স্টেডিয়ামে খেলা না হওয়ায় সেটিকে সচল রাখতে আর নিজেদের মাঠ সংকট এড়াতে খান সাহেব স্টেডিয়াম ব্যবহারের অনুমতির জন্যই পাপনকে ফোন দিয়েছেন সালাউদ্দিন।

এ ব্যাপারে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক মো. আবু নাইম সোহাগ বলেছেন, কাজী সালাউদ্দিন ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে কথা বলেছেন। ফতুল্লা স্টেডিয়ামটি পেলে আমরা কিছু ম্যাচ সেখানে আয়োজন করতে পারব। তাতে বর্তমানে যে মাঠ সংকট আছে, তা কিছুটা হলেও কমবে।

২৫ হাজার দর্শক ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২০০৬ সালে প্রথম টেস্ট ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ দল। এখন থেকে ঠিক ছয় বছর আগে এখানে শেষ টেস্ট খেলে টাইগাররা। ফতুল্লার এ স্টেডিয়ামে সবশেষ ম্যাচ হয়েছে ২০১৬ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি।

পাপনকে যে কারণে ফোন করলেন কাজী সালাউদ্দিন

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৭:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নাজমুল হাসান পাপন-কাজী সালাউদ্দিন
নাজমুল হাসান পাপন-কাজী সালাউদ্দিন। ফাইল ছবি

ওয়েস্ট ইন্ডিজের দ্বিতীয় সারির দলের বিপক্ষে টাইগারদের পরাজয়ের পর মেজাজ হারিয়ে ক্রিকেটারদের হুমকি দেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

দলের পরাজয়ের হতাশা কেটে ওঠার আগেই বিসিবি সভাপতিকে ফোন করলেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন।

উইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার ধকল সামলে ওঠার আগেই বাফুফে সভাপতির ফোন পেলেন বিসিবি সভাপতি। এমন খবর শোনার পর অনেকেই মনে করেছেন টেস্ট সিরিজ হারে হতাশ হওয়া পাপনকে শান্তনা দেয়ার জন্যই হয়তো ফোন করেছেন দেশের ফুটবল কিংবদন্তি।

কিন্তু না, শান্তনা দেয়ার জন্য নয়। মাঠ সংকটে রয়েছে বাফুফে। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম ও কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম ছাড়া ফুটবলের জন্য রাজধানীতে মাঠ নেই।

প্রিমিয়ার লিগের বেশিরভাগ ক্লাব বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামকে হোমভেন্যু করায় এই মাঠের অবস্থা দিনকে দিন খারাপের দিকে যাচ্ছে। সামনে ফুটবলের আরও কয়েকটি লিগ শুরু হবে।

মাঠ সমস্যা সমাধানে বাফুফে চাচ্ছে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম ব্যবহার করতে। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ এই স্টেডিয়ামটি ক্রিকেট বোর্ডকে দিয়েছে ব্যবহারের জন্য।

গত তিন বছর ফতুল্লা স্টেডিয়ামে খেলা না হওয়ায় সেটিকে সচল রাখতে আর নিজেদের মাঠ সংকট এড়াতে খান সাহেব স্টেডিয়াম ব্যবহারের অনুমতির জন্যই পাপনকে ফোন দিয়েছেন সালাউদ্দিন।

এ ব্যাপারে বাফুফে সাধারণ সম্পাদক মো. আবু নাইম সোহাগ বলেছেন, কাজী সালাউদ্দিন ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে কথা বলেছেন। ফতুল্লা স্টেডিয়ামটি পেলে আমরা কিছু ম্যাচ সেখানে আয়োজন করতে পারব। তাতে বর্তমানে যে মাঠ সংকট আছে, তা কিছুটা হলেও কমবে।

২৫ হাজার দর্শক ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২০০৬ সালে প্রথম টেস্ট ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ দল। এখন থেকে ঠিক ছয় বছর আগে এখানে শেষ টেস্ট খেলে টাইগাররা। ফতুল্লার এ স্টেডিয়ামে সবশেষ ম্যাচ হয়েছে ২০১৬ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন