‘সাকিব কেন টেস্ট খেলবে, টেস্ট খেলে ও কী পায়?’
jugantor
‘সাকিব কেন টেস্ট খেলবে, টেস্ট খেলে ও কী পায়?’

  আল-মামুন  

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২০:২০:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা পরখ করেইআবির্ভাব ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের। ২০ ওভারের এই মারমার কাটকাট ক্রিকেটের বাজারি সংস্করণের ফলে ক্রিকেটাররা আগ্রহ হারিয়েছেন টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি।

টেস্টের প্রতি আগ্রহ হারানোর অন্যতম আরেকটি কারণ হলো অর্থ। সাকিবের মতো বাংলাদেশি একজন তারকা ক্রিকেটার পাঁচ দিনের একটি টেস্ট ম্যাচ খেলে পান মাত্র ৬ লাখ টাকা।

অথচ আইপিএলে একটা দল ফাইনালসহ সবমিলে ১৮টা ম্যাচ খেলে। এই ১৮টা ম্যাচ খেললে সাকিব পাবেন ৩ কোটি ২০ লাখ রুপি; অর্থাৎ ৩ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। তার মানে প্রতি ম্যাচে সাকিবের আয় বিশ লাখ টাকারও বেশি। এছাড়া ম্যান অব দ্য ম্যাচ এবং শিরোপা জিতলে আলাদা করে সম্মানি পাওয়ার সুযোগতোথাকছেই।

আরও সহজ করে বললে টেস্টের পাঁচ দিনে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা প্রতিদিন গড়ে ৮ ঘণ্টা, লাঞ্চ ও টি-ব্রেক বাদ দিলে ৭ ঘণ্টা করে পাঁচ দিনে ৩৫ ঘণ্টা খেলে সাকিবের আয় ৬ লাখ। অথচ আইপিএলে মাত্র ৩থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টা খেলে আয় প্রায় ২১ লাখ টাকা।

সাকিব হয়তো এ সহজ হিসাব কষেই কম পরিশ্রমে বেশি আয় করতে গিয়ে টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ হারিয়েছেন।

আসন্ন নিউজিল্যান্ড সফরে সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে ছুটি নেয়া সাকিব এপ্রিলে আইপিএল খেলার জন্য শ্রীলংকা সফরের জন্য ক্রিকেট বোর্ড থেকে ছুটি নিয়েছেন।

জাতীয় দলকে উপেক্ষা করে অর্থের মোহে আইপিএল খেলার সিদ্ধান্ত নেয়ায় সাকিবকে নিয়ে গত বৃহস্পতিবার নিলামের পর থেকেই সমালোচনা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক শফিকুল হক হীরা শনিবার সন্ধ্যায় যুগান্তরের সঙ্গে একান্ত আলাপে বলেন, টেস্ট ম্যাচ খেলে সাকিব কী পায়! সর্বসাকুল্যে দুই হাজার পাউন্ড! ও তো প্রতিদিন ২ হাজার পাউন্ড খরচই করে। এজন্যই হয়তো ও টেস্ট খেলতে চায় না।

তিনি আরও বলেন, সাকিব বোর্ড থেকে অ্যাডভান্টেজ পায়। ও যেহেতু টেস্ট খেলতে চায় না, ওকে না খেলানোই উচিত। ও চিন্তা করে টাকার। আইপিএল খেলে এত টাকা পাই, দেশে খেলে কী পাই। ওর লাইফ সেট, ওর লাইফ ও নিজেই সাজিয়ে নিয়েছে। বোর্ডও ওকে কিছু বলতে পারছে না। যখন চাঞ্চ পেল তখনই তো কিছু করা উচিত ছিল। বোর্ড তো ওর আইপিএলে খেলা বন্ধ করতে পারল না।

জাতীয় দলের সাবেক এই ম্যানেজার আরও বলেছেন, তবে সাকিব যদি টেস্ট ক্রিকেট না খেলে তাহলে তাকে আর কেউ সেভাবে সম্মান দেবে না।

‘সাকিব কেন টেস্ট খেলবে, টেস্ট খেলে ও কী পায়?’

 আল-মামুন 
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৮:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জনপ্রিয়তা পরখ করেই আবির্ভাব ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের। ২০ ওভারের এই মারমার কাটকাট ক্রিকেটের বাজারি সংস্করণের ফলে ক্রিকেটাররা আগ্রহ হারিয়েছেন টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি।

টেস্টের প্রতি আগ্রহ হারানোর অন্যতম আরেকটি কারণ হলো অর্থ। সাকিবের মতো বাংলাদেশি একজন তারকা ক্রিকেটার পাঁচ দিনের একটি টেস্ট ম্যাচ খেলে পান মাত্র ৬ লাখ টাকা।

অথচ আইপিএলে একটা দল ফাইনালসহ সবমিলে ১৮টা ম্যাচ খেলে। এই ১৮টা ম্যাচ খেললে সাকিব পাবেন ৩ কোটি ২০ লাখ রুপি; অর্থাৎ ৩ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। তার মানে প্রতি ম্যাচে সাকিবের আয় বিশ লাখ টাকারও বেশি। এছাড়া ম্যান অব দ্য ম্যাচ এবং শিরোপা জিতলে আলাদা করে সম্মানি পাওয়ার সুযোগতো থাকছেই।

আরও সহজ করে বললে টেস্টের পাঁচ দিনে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা প্রতিদিন গড়ে ৮ ঘণ্টা, লাঞ্চ ও টি-ব্রেক বাদ দিলে ৭ ঘণ্টা করে পাঁচ দিনে ৩৫ ঘণ্টা খেলে সাকিবের আয় ৬ লাখ। অথচ আইপিএলে মাত্র ৩ থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টা খেলে আয় প্রায় ২১ লাখ টাকা।

সাকিব হয়তো এ সহজ হিসাব কষেই কম পরিশ্রমে বেশি আয় করতে গিয়ে টেস্ট ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ হারিয়েছেন।

আসন্ন নিউজিল্যান্ড সফরে সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে ছুটি নেয়া সাকিব এপ্রিলে আইপিএল খেলার জন্য শ্রীলংকা সফরের জন্য ক্রিকেট বোর্ড থেকে ছুটি নিয়েছেন।

জাতীয় দলকে উপেক্ষা করে অর্থের মোহে আইপিএল খেলার সিদ্ধান্ত নেয়ায় সাকিবকে নিয়ে গত বৃহস্পতিবার নিলামের পর থেকেই সমালোচনা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক শফিকুল হক হীরা শনিবার সন্ধ্যায় যুগান্তরের সঙ্গে একান্ত আলাপে বলেন, টেস্ট ম্যাচ খেলে সাকিব কী পায়! সর্বসাকুল্যে দুই হাজার পাউন্ড! ও তো প্রতিদিন ২ হাজার পাউন্ড খরচই করে। এজন্যই হয়তো ও টেস্ট খেলতে চায় না।

তিনি আরও বলেন, সাকিব বোর্ড থেকে অ্যাডভান্টেজ পায়। ও যেহেতু টেস্ট খেলতে চায় না, ওকে না খেলানোই উচিত। ও চিন্তা করে টাকার। আইপিএল খেলে এত টাকা পাই, দেশে খেলে কী পাই। ওর লাইফ সেট, ওর লাইফ ও নিজেই সাজিয়ে নিয়েছে। বোর্ডও ওকে কিছু বলতে পারছে না। যখন চাঞ্চ পেল তখনই তো কিছু করা উচিত ছিল। বোর্ড তো ওর আইপিএলে খেলা বন্ধ করতে পারল না।

জাতীয় দলের সাবেক এই ম্যানেজার আরও বলেছেন, তবে সাকিব যদি টেস্ট ক্রিকেট না খেলে তাহলে তাকে আর কেউ সেভাবে সম্মান দেবে না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন