‘আইপিএল খেলতে চাইলে জাতীয় দলেই রাখব না’
jugantor
‘আইপিএল খেলতে চাইলে জাতীয় দলেই রাখব না’

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২২:৪৮:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

সাকিব আল হাসানের মতো অন্য কোনো ক্রিকেটারের কাছে জিম্মি থাকতে রাজি নয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দেশের হয়ে টেস্ট ম্যাচ না খেলে টাকার মোহে সাকিবের আইপিএল খেলার সিদ্ধান্তে রীতিমতো হতাশ বিসিবি।

তাইতো বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নতুন করে কিছু নীতিমালা যোগ করতে যাচ্ছে বিসিবি। এ ব্যাপারে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, এটা একেবারে অস্বীকার করার পথ নেই যে, ক্রিকেটারদের কাছে বোর্ড জিম্মি হয়ে যাচ্ছে কিনা। এর আগেও যে হয়নি এটা তা নয়। তবে এখন একটা ব্যাপারে আমাদের ভাবনা খুবই পরিষ্কার। কাউকে জোর করে কোথাও পাঠাব না। যারা খেলতে চায় না, তারা খেলবে না। এই বার্তাটা সবার জন্য, কেবল সাকিব আল হাসানের জন্য নয়।

তিনি আরও বলেন, এবার চুক্তিতে আরও নতুন কিছু জিনিস যুক্ত হবে। ওখানে পরিষ্কার লেখা থাকবে, কে কোন ফরম্যাট খেলতে চায়। তাদের বলতে হবে এবং এটাও জানাতে হবে, ওই সময়ে তাদের যদি অন্য কোনো খেলা থাকে, তাহলে সেখানে খেলবে নাকি দেশের হয়ে খেলবে। চুক্তিতে সই করলে সেটা মানতে বাধ্য।

সোমবার মিরপুরে বোর্ড মিটিং শেষে বিসিবি সভাপতি বলেন, এতগুলো ম্যাচ হারার পর ক্রিকেটারদের উচিত ছিল পরবর্তী টেস্ট ম্যাচ কীভাবে জিততে হবে সেই চিন্তা করা। অথচ এটা না করে আইপিএলের জন্য টেস্ট ম্যাচ খেলা থেকে ছুটি চাইল। এতে স্পষ্ট যে, আসলে এদের দিয়ে টেস্টে কিছু হবে না।

নতুন চুক্তিতে কী কী শর্ত থাকতে পারে- এমন প্রশ্নের জবাবে পাপন বলেন, চুক্তি না হওয়ার আগে আপনাদের সব উত্তর দিতে পারব না, আজকে এটা নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি। চুক্তির পর আর কোনো সংশয় থাকার কথা নয়। চুক্তি দেখলে ওরাই জানবে কীভাবে কী হবে। তখন আমার কাছে ছুটিও চাওয়ার কিছু নেই। কেউ যদি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলার কথা বলে, তাকে তো আমরা দলেই রাখব না, অসুবিধা কী।

‘আইপিএল খেলতে চাইলে জাতীয় দলেই রাখব না’

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাকিব আল হাসানের মতো অন্য কোনো ক্রিকেটারের কাছে জিম্মি থাকতে রাজি নয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দেশের হয়ে টেস্ট ম্যাচ না খেলে টাকার মোহে সাকিবের আইপিএল খেলার সিদ্ধান্তে রীতিমতো হতাশ বিসিবি। 

তাইতো বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে নতুন করে কিছু নীতিমালা যোগ করতে যাচ্ছে বিসিবি। এ ব্যাপারে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, এটা একেবারে অস্বীকার করার পথ নেই যে, ক্রিকেটারদের কাছে বোর্ড জিম্মি হয়ে যাচ্ছে কিনা। এর আগেও যে হয়নি এটা তা নয়। তবে এখন একটা ব্যাপারে আমাদের ভাবনা খুবই পরিষ্কার। কাউকে জোর করে কোথাও পাঠাব না। যারা খেলতে চায় না, তারা খেলবে না। এই বার্তাটা সবার জন্য, কেবল সাকিব আল হাসানের জন্য নয়।

তিনি আরও বলেন, এবার চুক্তিতে আরও নতুন কিছু জিনিস যুক্ত হবে। ওখানে পরিষ্কার লেখা থাকবে, কে কোন ফরম্যাট খেলতে চায়। তাদের বলতে হবে এবং এটাও জানাতে হবে, ওই সময়ে তাদের যদি অন্য কোনো খেলা থাকে, তাহলে সেখানে খেলবে নাকি দেশের হয়ে খেলবে। চুক্তিতে সই করলে সেটা মানতে বাধ্য। 

সোমবার মিরপুরে বোর্ড মিটিং শেষে বিসিবি সভাপতি বলেন, এতগুলো ম্যাচ হারার পর ক্রিকেটারদের উচিত ছিল পরবর্তী টেস্ট ম্যাচ কীভাবে জিততে হবে সেই চিন্তা করা। অথচ এটা না করে আইপিএলের জন্য টেস্ট ম্যাচ খেলা থেকে ছুটি চাইল। এতে স্পষ্ট যে, আসলে এদের দিয়ে টেস্টে কিছু হবে না। 

নতুন চুক্তিতে কী কী শর্ত থাকতে পারে- এমন প্রশ্নের জবাবে পাপন বলেন, চুক্তি না হওয়ার আগে আপনাদের সব উত্তর দিতে পারব না, আজকে এটা নিয়ে আমরা আলোচনা করেছি। চুক্তির পর আর কোনো সংশয় থাকার কথা নয়। চুক্তি দেখলে ওরাই জানবে কীভাবে কী হবে। তখন আমার কাছে ছুটিও চাওয়ার কিছু নেই। কেউ যদি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ খেলার কথা বলে, তাকে তো আমরা দলেই রাখব না, অসুবিধা কী।