মায়ের সেবায় শখের গাড়িটাও বিক্রি করে দিয়েছেন পেসার শাহাদাত
jugantor
মায়ের সেবায় শখের গাড়িটাও বিক্রি করে দিয়েছেন পেসার শাহাদাত

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০২ মার্চ ২০২১, ২৩:১৬:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলতে নিউজিল্যান্ডে উড়ে গেছে বাংলাদেশ দল। দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের চোখ থাকার কথা সেখানে।

কিন্তু ক্রিকেটমহলে এখন মূল আলোচনার বিষয় একের পর এক অপকর্ম করে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ জাতীয় দলের পেসার শাহাদাত হোসেন।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি হঠাৎই গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে নিজের বর্তমান পরিস্থিতির কথা জানান শাহাদাত। অঝোরে কান্না করতে দেখা যায় তাকে। তার মা ক্যানসারে আক্রান্ত ও মাকে বাঁচাতে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরতে চান বলে আর্জি জানান।

উল্লেখ্য, একের পর এক অপকর্ম করে ক্যারিয়ারের বারোটা বাজিয়েছেন শাহাদাত। ২০১৬ সালে শিশু গৃহকর্মীর ওপর নির্মম নির্যাতন করে গ্রেফতার হয়েছিলেন তিনি। এর তিন বছর পর খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে জাতীয় লিগের ম্যাচে স্পিনার আরাফাত সানিকে মারধর করে ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা পান। সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানাও করা হয় তাকে।

এদিকে ২২ গজের মাঠে না নামতে পেরে দৈন্যদশায় ভুগছেন বলে জানিয়েছেন শাহাদাত। ক্রিকেট ছাড়া যে আর কিছুই জানেন না। তবুও সংসারের খরচ কোনোমতে চালিয়ে নিতে পারলেও মরণব্যাধী ক্যানসারে আক্রান্ত মায়ের ওষুধপত্র কিনতে হিমশিম খাচ্ছেন। যে কারণে নিজের প্রিয় গাড়িটিও বেচে দিয়েছেন। চালিয়ে নিয়ে গেছেন মায়ের চিকিৎসার অর্থ।

এমন সব তথ্য দিয়ে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে পেসার শাহাদাত বলেন, জরায়ু ক্যানসারে আক্রান্ত মায়ের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সংকটে ভুগছেন। দুই বছর ধরে না খেলায় তার হাতে টাকা-পয়সাও নেই। ক্রিকেট ছাড়া তার অন্য কোনো রোজগারও নেই। তাই মায়ের চিকিৎসার অর্থ জোটাতে তিনি ব্যক্তিগত গাড়িটাও বিক্রি করে দিয়েছেন। সেইসঙ্গে জার্মান প্রবাসী তার ভাইও আর্থিক সহায়তা করছেন।

এ সমস্যা মেটাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত। শাস্তি কমাতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে দরখাস্ত করেছেন।

শাহাদাতের বয়স এখন ৩৬। তবুও এখনো ৪-৫ বছর খেলার স্বপ্ন দেখেন।

বাংলাদেশের হয়ে ৩৮টি টেস্ট, ৫১টি ওয়ানডে ও ৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন শাহাদাত। টেস্টে ৭২, ওয়ানডেতে ৪৭ ও টি-টোয়েন্টিতে ৬ উইকেট শিকার করেছেন তিনি। ২০১৫ সালের পর আর জাতীয় দলে দেখা যায়নি এই ক্রিকেটারকে।

মায়ের সেবায় শখের গাড়িটাও বিক্রি করে দিয়েছেন পেসার শাহাদাত

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০২ মার্চ ২০২১, ১১:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলতে নিউজিল্যান্ডে উড়ে গেছে বাংলাদেশ দল। দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের চোখ থাকার কথা সেখানে।

কিন্তু ক্রিকেটমহলে এখন মূল আলোচনার বিষয় একের পর এক অপকর্ম করে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ জাতীয় দলের পেসার শাহাদাত হোসেন।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি হঠাৎই গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে নিজের বর্তমান পরিস্থিতির কথা জানান শাহাদাত। অঝোরে কান্না করতে দেখা যায় তাকে। তার মা ক্যানসারে আক্রান্ত ও মাকে বাঁচাতে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরতে চান বলে আর্জি জানান।

উল্লেখ্য,  একের পর এক অপকর্ম করে ক্যারিয়ারের বারোটা বাজিয়েছেন শাহাদাত। ২০১৬ সালে শিশু গৃহকর্মীর ওপর নির্মম নির্যাতন করে গ্রেফতার হয়েছিলেন তিনি। এর তিন বছর পর খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে জাতীয় লিগের ম্যাচে স্পিনার আরাফাত সানিকে মারধর করে ৫ বছরের নিষেধাজ্ঞা পান। সঙ্গে তিন লাখ টাকা জরিমানাও করা হয় তাকে।

এদিকে ২২ গজের মাঠে না নামতে পেরে দৈন্যদশায় ভুগছেন বলে জানিয়েছেন শাহাদাত। ক্রিকেট ছাড়া যে আর কিছুই জানেন না। তবুও সংসারের খরচ কোনোমতে চালিয়ে নিতে পারলেও মরণব্যাধী ক্যানসারে আক্রান্ত মায়ের ওষুধপত্র কিনতে হিমশিম খাচ্ছেন। যে কারণে নিজের প্রিয় গাড়িটিও বেচে দিয়েছেন। চালিয়ে নিয়ে গেছেন মায়ের চিকিৎসার অর্থ।

এমন সব তথ্য দিয়ে সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে পেসার শাহাদাত বলেন, জরায়ু ক্যানসারে আক্রান্ত মায়ের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সংকটে ভুগছেন। দুই বছর ধরে না খেলায় তার হাতে টাকা-পয়সাও নেই। ক্রিকেট ছাড়া তার অন্য কোনো রোজগারও নেই। তাই মায়ের চিকিৎসার অর্থ জোটাতে তিনি ব্যক্তিগত গাড়িটাও বিক্রি করে দিয়েছেন। সেইসঙ্গে জার্মান প্রবাসী তার ভাইও আর্থিক সহায়তা করছেন।

এ সমস্যা মেটাতে ক্রিকেটে ফিরতে চান শাহাদাত। শাস্তি কমাতে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে দরখাস্ত করেছেন। 

শাহাদাতের বয়স এখন ৩৬। তবুও এখনো ৪-৫ বছর খেলার স্বপ্ন দেখেন।

বাংলাদেশের হয়ে ৩৮টি টেস্ট, ৫১টি ওয়ানডে ও ৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন শাহাদাত।  টেস্টে ৭২, ওয়ানডেতে ৪৭ ও টি-টোয়েন্টিতে ৬ উইকেট শিকার করেছেন তিনি। ২০১৫ সালের পর আর জাতীয় দলে দেখা যায়নি এই ক্রিকেটারকে।  

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন