এশিয়ার প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে বাবরের রেকর্ড
jugantor
এশিয়ার প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে বাবরের রেকর্ড

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১০ এপ্রিল ২০২১, ২৩:০৭:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

এশিয়ার প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে রেকর্ড গড়লেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। টি-টোয়েন্টিতে মাত্র ১৬৫ ম্যাচে দ্রুততম ৬০০০ রান সংগ্রহের ইতিহাস গড়লেন বাবর।

এই রেকর্ড গড়ার পথে বাবর ছাড়িয়ে গেছেন বিশ্বের এই সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ও ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবং অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকে।

টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে কম ১৬২ ম্যাচে দ্রুততম ৬০০০ হাজার রান সংগ্রহের রেকর্ড গড়েন ওয়েস্ট ইন্ডিজের তারকা ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল। দ্বিতীয় পজিশনে বাবর।

১৮০ ম্যাচ খেলে এই রেকর্ড গড়ে তিনে অস্ট্রেলিয়ান তারকা শন মার্স। ১৮৪ ম্যাচে ছয় হাজার রান করে চারে রিবাট কোহলি। ১৯০ ম্যাচ খেলে এই রেকর্ড গড়ে পাঁচে আছেন অস্ট্রেরিয়ার বর্তমান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।

টি-টোয়েন্টিতে দ্রুততম ছয় হাজার রান সংগ্রহের পাশাপাশি সবেচেয়ে বেশি রানের রেকর্ডও গড়েছেন ক্রিস গেইল। ৪১৬ ম্যাচে ১৩ হাজার ৭২০ রান করেন তিনি। ৫৩৫ ম্যাচ খেলে ১০ হাজার ৬৩৬ রান করে দ্বিতীয় পজিশনে গেইলের জাতীয় দলের সতীর্থ কায়রন পোলার্ড। তৃতীয় সর্বোচ্চ ১০ হাজার ৪৮৮ রান সংগ্রহ করেছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শোয়েব মালিক।

এশিয়ার প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে বাবরের রেকর্ড

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১০ এপ্রিল ২০২১, ১১:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

এশিয়ার প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে রেকর্ড গড়লেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। টি-টোয়েন্টিতে মাত্র ১৬৫ ম্যাচে দ্রুততম ৬০০০ রান সংগ্রহের ইতিহাস গড়লেন বাবর।  

এই রেকর্ড গড়ার পথে বাবর ছাড়িয়ে গেছেন বিশ্বের এই সময়ের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান ও ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি এবং অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকে। 

টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে কম ১৬২ ম্যাচে দ্রুততম ৬০০০ হাজার রান সংগ্রহের রেকর্ড গড়েন ওয়েস্ট ইন্ডিজের তারকা ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল। দ্বিতীয় পজিশনে বাবর। 

১৮০ ম্যাচ খেলে এই রেকর্ড গড়ে তিনে অস্ট্রেলিয়ান তারকা শন মার্স। ১৮৪ ম্যাচে ছয় হাজার রান করে চারে রিবাট কোহলি। ১৯০ ম্যাচ খেলে এই রেকর্ড গড়ে পাঁচে আছেন অস্ট্রেরিয়ার বর্তমান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। 

টি-টোয়েন্টিতে দ্রুততম ছয় হাজার রান সংগ্রহের পাশাপাশি সবেচেয়ে বেশি রানের রেকর্ডও গড়েছেন ক্রিস গেইল। ৪১৬ ম্যাচে ১৩ হাজার ৭২০ রান করেন তিনি। ৫৩৫ ম্যাচ খেলে ১০ হাজার ৬৩৬ রান করে দ্বিতীয় পজিশনে গেইলের জাতীয় দলের সতীর্থ কায়রন পোলার্ড। তৃতীয় সর্বোচ্চ ১০ হাজার ৪৮৮ রান সংগ্রহ করেছেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শোয়েব মালিক।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন