ওয়াসিম আকরামের রেকর্ড ভাঙতে পারলেন না সাকিব
jugantor
ওয়াসিম আকরামের রেকর্ড ভাঙতে পারলেন না সাকিব

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৮ মে ২০২১, ১৬:৪০:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ


মাত্র ১ উইকেট পেলে অনন্য দুই রেকর্ড গড়তেন সাকিব আল হাসান। তার ওভারে উইকেটও এলো। কিন্তু যোগ হলো না নামের পাশে।
সাকিবের ৪৩তম ওভারে রান আউট হলেন নিরোশান ডিকভেলা।

দলে ফেরা খুব একটা সুখকর হলো না নিরোশান ডিকভেলার। ঝুঁকিপূর্ণ রান নেওয়ার চেষ্টায় শরিফুল ইসলামের সরাসরি থ্রোয়ে রান আউট হয়ে গেলেন এই ব্যাটসম্যান। কুসল পেরেরার পর বিপজ্জনক আরেকজনকে ফেরাতে পারল বাংলাদেশ।

৭ রান করে আউট হলেন ডিকভেলা। ৪৩তম ওভারে ৫ রান দেন সাকিব। আজ ১০ ওভারে ৪৮ রান দিয়ে একটিও উইকেট পাননি সাকিব।

অর্থাৎ দুর্দান্ত রেকর্ডের অপেক্ষা আরো বাড়ল। আজ একটিমাত্র উইকেট পেলে মাশরাফি বিন মর্তুজা ও পাক কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরামকে ছাড়িয়ে যেতে পারতেন। হতে পারতেন বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী এবং এক ভেন্যুতে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীও হতেন।

বুধবার দ্বিতীয় ম্যাচে লঙ্কান অলরাউন্ডার ধনাঞ্জয়া ডি সিলভাকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেললে সাকিবের উইকেট সংখ্যা হয় ২৬৯। ছুঁয়ে ফেলেন স্বদেশি সতীর্থ ও বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে।

ভেন্যুর দিক থেকে ছুঁয়ে ফেলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ওয়াসিম আকরামকে।

শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ৭৭ ম্যাচে ১২২ উইকেট নিয়েছেন এই পাক কিংবদন্তি। আজ উইকেটহীন থাকায় ২৭০ হলো না সাকিবের। অর্থাৎমিরপুরে ১২৩ হলো না তার।

এর আগে সেঞ্চুরিয়ান কুশল পেরেরাকে আউট করেন শরিফুল। লঙ্কান অধিনায়ককে ১২০ রানে থামালেন তিনি।

শরিফুলের লেংথ বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে টাইমিং ঠিকমতো করতে পারেননি পেরেরা। মিড অফ থেকে পেছনে দিকে বেশ খানিকটা দৌড়ে দুর্দান্ত ডাইভে দুই হাতে বল তালুবন্দী করেন মাহমুদউল্লাহ। এবার আর হাতছাড়া হয়নি ক্যাচ।

১২২ বলে ১২০ রান করে আউট হলেন পেরেরা। ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার সঙ্গে তার জুটি শেষ হলো ৬৫ রানে।।

এর আগে পেরেরাকে জীবন দিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহই। দুর্দান্ত খেলে নার্ভাস নাইনটিতে ভুগছিলেন লংকান অধিনায়ক কুশল পেরেরা। ৯৯ রানে নিশ্চিত আউট হতেন।

তাকে বাঁচিয়ে দেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আর উইকেট বঞ্চিত হন মোস্তাফিজ। ৩২তম ওভারে মোস্তাফিজের পঞ্চম বলটি ভালোভাবে খেলতে পারেননি পেরেরা। এজ হয়ে তা চলে যায় মিড অফে। একটু দৌড়িয়ে এসে ঝাপিয়ে বলটি তালুবন্দির চেষ্টা করেন রিয়াদ। কিন্তু ব্যর্থ হন।

বল যখন হাওয়ায় ভাসছিল তখন পেরেরা ধরেই নিয়েছিলেন যে এ যাত্রায় আর সেঞ্চুরি হলো না তার। কিন্তু রিয়াদ যে এভাবে তার জীবন ফিরিয়ে দেবেন তা কে জানতো।

অবশেষে পরের বলে লেগ সাইডে আলতো ছোঁয়ায় সহজ একটি রান নিয়ে তিন অংকের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছান লংকান অধিনায়ক। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এটি তার ৬ষ্ঠ সেঞ্চুরি। ৯৯ বলে সেঞ্চুরি হাঁকালেন পেরেরা। যেখানে ১০টি বাউন্ডারি ও একটি ছক্কার মার রয়েছে।

এ প্রতিবেদন লেখার সময় শ্রীলংকার সংগ্রহ ৪৫ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৫১ রান। ৫৮ বলে ৩৮ রানে ব্যাট করছেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা। তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন হাসারাঙ্গা। ১৪ বলে ১৩ রানে অপরাজিত তিনি।

ওয়াসিম আকরামের রেকর্ড ভাঙতে পারলেন না সাকিব

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৮ মে ২০২১, ০৪:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ


মাত্র ১ উইকেট পেলে অনন্য দুই রেকর্ড গড়তেন সাকিব আল হাসান।  তার ওভারে উইকেটও এলো। কিন্তু যোগ হলো না নামের পাশে। 
সাকিবের ৪৩তম ওভারে রান আউট হলেন নিরোশান ডিকভেলা।

দলে ফেরা খুব একটা সুখকর হলো না নিরোশান ডিকভেলার। ঝুঁকিপূর্ণ রান নেওয়ার চেষ্টায় শরিফুল ইসলামের সরাসরি থ্রোয়ে রান আউট হয়ে গেলেন এই ব্যাটসম্যান। কুসল পেরেরার পর বিপজ্জনক আরেকজনকে ফেরাতে পারল বাংলাদেশ।

৭ রান করে আউট হলেন ডিকভেলা। ৪৩তম ওভারে ৫ রান দেন সাকিব।  আজ ১০ ওভারে ৪৮ রান দিয়ে একটিও উইকেট পাননি সাকিব।

অর্থাৎ দুর্দান্ত রেকর্ডের অপেক্ষা আরো বাড়ল। আজ একটিমাত্র উইকেট পেলে মাশরাফি বিন মর্তুজা ও পাক কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরামকে ছাড়িয়ে যেতে পারতেন। হতে পারতেন বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী এবং এক ভেন্যুতে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারীও হতেন।

বুধবার দ্বিতীয় ম্যাচে লঙ্কান অলরাউন্ডার ধনাঞ্জয়া ডি সিলভাকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেললে সাকিবের উইকেট সংখ্যা হয় ২৬৯। ছুঁয়ে ফেলেন স্বদেশি সতীর্থ ও বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজাকে।   

ভেন্যুর দিক থেকে ছুঁয়ে ফেলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ওয়াসিম আকরামকে।

শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ৭৭ ম্যাচে ১২২ উইকেট নিয়েছেন এই পাক কিংবদন্তি। আজ উইকেটহীন থাকায় ২৭০ হলো না সাকিবের। অর্থাৎ মিরপুরে ১২৩ হলো না তার।

এর আগে সেঞ্চুরিয়ান কুশল পেরেরাকে আউট করেন শরিফুল। লঙ্কান অধিনায়ককে ১২০ রানে থামালেন তিনি।

শরিফুলের লেংথ বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে টাইমিং ঠিকমতো করতে পারেননি পেরেরা। মিড অফ থেকে পেছনে দিকে বেশ খানিকটা দৌড়ে দুর্দান্ত ডাইভে দুই হাতে বল তালুবন্দী করেন মাহমুদউল্লাহ। এবার আর হাতছাড়া হয়নি ক্যাচ।

১২২ বলে ১২০ রান করে আউট হলেন পেরেরা। ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার সঙ্গে তার জুটি শেষ হলো ৬৫ রানে।।

এর আগে পেরেরাকে জীবন দিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহই।  দুর্দান্ত খেলে নার্ভাস নাইনটিতে ভুগছিলেন লংকান অধিনায়ক কুশল পেরেরা। ৯৯ রানে নিশ্চিত আউট হতেন।

তাকে বাঁচিয়ে দেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।  আর উইকেট বঞ্চিত হন মোস্তাফিজ। ৩২তম ওভারে মোস্তাফিজের পঞ্চম বলটি ভালোভাবে খেলতে পারেননি পেরেরা। এজ হয়ে তা চলে যায় মিড অফে।  একটু দৌড়িয়ে এসে ঝাপিয়ে বলটি তালুবন্দির চেষ্টা করেন রিয়াদ। কিন্তু ব্যর্থ হন।

বল যখন হাওয়ায় ভাসছিল তখন পেরেরা ধরেই নিয়েছিলেন যে এ যাত্রায় আর সেঞ্চুরি হলো না তার।  কিন্তু রিয়াদ যে এভাবে তার জীবন ফিরিয়ে দেবেন তা কে জানতো।

অবশেষে পরের বলে লেগ সাইডে আলতো ছোঁয়ায় সহজ একটি রান নিয়ে তিন অংকের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছান লংকান অধিনায়ক।  ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এটি তার ৬ষ্ঠ সেঞ্চুরি।  ৯৯ বলে সেঞ্চুরি হাঁকালেন পেরেরা। যেখানে ১০টি বাউন্ডারি ও একটি ছক্কার মার রয়েছে।

এ প্রতিবেদন লেখার সময় শ্রীলংকার সংগ্রহ ৪৫ ওভার শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৫১ রান।  ৫৮ বলে ৩৮ রানে ব্যাট করছেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা।  তাকে সঙ্গ দিচ্ছেন হাসারাঙ্গা।  ১৪ বলে ১৩ রানে অপরাজিত তিনি। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ঢাকা-২০২১