লালকার্ড দেখে ১০ জনের দল নিয়ে জয় পেল না ব্রাজিল (ভিডিও)
jugantor
লালকার্ড দেখে ১০ জনের দল নিয়ে জয় পেল না ব্রাজিল (ভিডিও)

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৫ জুলাই ২০২১, ১৬:৫১:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

কোপা আমেরিকায় শিরোপা হারানোর দুঃখ ভুলতে টোকিও অলিম্পিকে স্বর্ণজয়ের মিশনে নেমেছে ব্রাজিল।

সেলক্ষ্যে প্রথম ম্যাচেই উড়ন্ত সূচনা পেয়েছে দলটি। শক্তিশালী জার্মানিকে ৪-২ গোলে হারিয়েছে ব্রাজিল কোচ আন্দ্রে জার্ডিনের শিষ্যরা।

অনূর্ধ্ব-২৩ দল নিয়ে নামলেও এ দলে আছেন বিশ্বসেরা রাইটব্যাক দানি আলভেস ও কোপা আমেরিকা মাতানো রিচার্লিসন।

আজ বাংলাদেশ সময় দুপুর ২.৩০ মিনিটে গ্রুপপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে আইভরি কোস্টের বিপক্ষে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই মাঠে নামে ব্রাজিল।

ইয়োকোহামার নিশান স্টেডিয়ামে সেই ব্রাজিলকে রুখে দিল আইভরিকোস্ট।

ম্যাচ শুরু হতেই পঞ্চম মিনিটে ব্রাজিল রক্ষণে হানা দিয়ে নিজেদের যোগ্যতা জানান দেয় আইভরি কোস্ট। ম্যাক্স গ্রাদেলের শটটি গোলপোস্ট ঘেঁষে চলে যায়। অল্পের জন্য রক্ষা দানি আলভেসের দলের।

১৩তম মিনিটে ঘটে দুর্ঘটনা। লাল কার্ড দেখেন ব্রাজিলের ডগলাস লুইস। দশজনের দলে পরিণত হয়ে বাকিটা ম্যাচ শেষ করতে হয় ব্রাজিলকে।

গোল দেওয়ার বদলে গোল বাঁচানোটাই মূখ্য হয়ে ওঠে। শেষ অবধি কোনো দলই গোলমুখ খুলতে পারেনি।

গোলশূন্য ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

১৫ মিনিটে আমাদ দিয়ালোর শট আটকে দেন ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক সান্তোস।

লালকার্ডের দেখানোর ২ মিনিট পরেই কাউন্টার অ্যাটাকে ওঠেন ব্রাজিলের অ্যান্টোনি। তাকে থামাতে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন আইভরির দালিলো।

১৮তম মিনিটে রিচার্লিসনকে ডি-বক্সের বাদিকে বিপজ্জনক জায়গায় ফাউল করেন আইভরির ডিফেন্ডার। ফ্রি-কিক পায় ব্রাজিল। ক্লাউদিনহোর নেওয়া কিক কর্নারের বিনিময়ে জাল সুরক্ষিত রাখে আইভরিকোস্ট।

২৬তম মিনিটে কাছাকাছি জায়গায় ফের ফ্রি-কিক পায় ব্রাজিল। ক্লাউদিনহোর নেওয়া এবারের কিক প্রথমেই রুখে দেন আইভরির দেয়াল।

৪৩ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া আমাদ দিয়ালোর জোরালো শট কর্নারেরর বিনিময়ে রক্ষা করেন সান্তোস। পরের মিনিটেই দানি আলভেসের অ্যাসিস্ট থেকে অ্যান্টোনির বাঁ পায়ের শটকে কর্নার বানান আইভরিকোস্ট গোলরক্ষক ইরা।

গোলশূন্য অবস্থায় বিরতিতে যায় দুই দল।

দ্বিতীয়ার্ধে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে ব্রাজিল। একের পর এক শানিত আক্রমণ চালায় প্রতিপক্ষের রক্ষণে।

৬২ মিনিটে ম্যাথিউস কানহার দুর্দান্ত হেড রুখে দেন আইভরিকোস্টের গোলরক্ষক ইরা।

৭৭ মিনিটে ক্লাউদিনহোর ডান পায়ের শটও রুখে দেন ইরা। ৮২ মিনিটে ক্লাউদিনহোর দারুণ এক প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। তার নেওয়া শট একটুর জন্য পোস্ট ঘেঁষে বাইরে চলে যায়।

শেষদিকে দিয়েগো কার্লোস, ম্যালকমরা একের পর এক চেষ্টা করেন। কিন্তু গোলের দেখা পাননি কেউ। ফলে গোলশূন্য ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় দুই দলকে।

দ্বিতীয় ম্যাচে এসে জয় না পেলেও ‘ডি’ গ্রুপে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষেই আছে সেলেকাওরা। সমান ৪ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে আইভরিকোস্ট। তিনে সৌদি আরব আর চারে জার্মানি।

ম্যাচ হাইলাইটস দেখুন -

লালকার্ড দেখে ১০ জনের দল নিয়ে জয় পেল না ব্রাজিল (ভিডিও)

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৫ জুলাই ২০২১, ০৪:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কোপা আমেরিকায় শিরোপা হারানোর দুঃখ ভুলতে টোকিও অলিম্পিকে স্বর্ণজয়ের মিশনে নেমেছে ব্রাজিল।

সেলক্ষ্যে প্রথম ম্যাচেই উড়ন্ত সূচনা পেয়েছে দলটি।  শক্তিশালী জার্মানিকে ৪-২ গোলে হারিয়েছে ব্রাজিল কোচ আন্দ্রে জার্ডিনের শিষ্যরা।

অনূর্ধ্ব-২৩ দল নিয়ে নামলেও এ দলে আছেন বিশ্বসেরা রাইটব্যাক দানি আলভেস ও কোপা আমেরিকা মাতানো রিচার্লিসন।

আজ বাংলাদেশ সময় দুপুর ২.৩০ মিনিটে গ্রুপপর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে আইভরি কোস্টের বিপক্ষে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই মাঠে নামে ব্রাজিল।

ইয়োকোহামার নিশান স্টেডিয়ামে সেই ব্রাজিলকে রুখে দিল আইভরিকোস্ট।

ম্যাচ শুরু হতেই পঞ্চম মিনিটে ব্রাজিল রক্ষণে হানা দিয়ে নিজেদের যোগ্যতা জানান দেয় আইভরি কোস্ট। ম্যাক্স গ্রাদেলের শটটি গোলপোস্ট ঘেঁষে চলে যায়। অল্পের জন্য রক্ষা দানি আলভেসের দলের।
 
১৩তম মিনিটে ঘটে দুর্ঘটনা। লাল কার্ড দেখেন ব্রাজিলের ডগলাস লুইস। দশজনের দলে পরিণত হয়ে বাকিটা ম্যাচ শেষ করতে হয় ব্রাজিলকে।

গোল দেওয়ার বদলে গোল বাঁচানোটাই মূখ্য হয়ে ওঠে। শেষ অবধি কোনো দলই গোলমুখ খুলতে পারেনি।

গোলশূন্য ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

১৫ মিনিটে আমাদ দিয়ালোর শট আটকে দেন ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক সান্তোস।

লালকার্ডের দেখানোর ২ মিনিট পরেই কাউন্টার অ্যাটাকে ওঠেন ব্রাজিলের অ্যান্টোনি। তাকে থামাতে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন আইভরির দালিলো।

১৮তম মিনিটে রিচার্লিসনকে ডি-বক্সের বাদিকে বিপজ্জনক জায়গায় ফাউল করেন আইভরির ডিফেন্ডার। ফ্রি-কিক পায় ব্রাজিল। ক্লাউদিনহোর নেওয়া কিক কর্নারের বিনিময়ে জাল সুরক্ষিত রাখে আইভরিকোস্ট।

২৬তম মিনিটে কাছাকাছি জায়গায় ফের ফ্রি-কিক পায় ব্রাজিল। ক্লাউদিনহোর নেওয়া এবারের কিক প্রথমেই রুখে দেন আইভরির দেয়াল।

৪৩ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া আমাদ দিয়ালোর জোরালো শট কর্নারেরর বিনিময়ে রক্ষা করেন সান্তোস। পরের মিনিটেই দানি আলভেসের অ্যাসিস্ট থেকে অ্যান্টোনির বাঁ পায়ের শটকে কর্নার বানান আইভরিকোস্ট গোলরক্ষক ইরা।

গোলশূন্য অবস্থায় বিরতিতে যায় দুই দল।

দ্বিতীয়ার্ধে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে ব্রাজিল। একের পর এক শানিত আক্রমণ চালায় প্রতিপক্ষের রক্ষণে।

৬২ মিনিটে ম্যাথিউস কানহার দুর্দান্ত হেড রুখে দেন আইভরিকোস্টের গোলরক্ষক ইরা।

৭৭ মিনিটে ক্লাউদিনহোর ডান পায়ের শটও রুখে দেন ইরা। ৮২ মিনিটে ক্লাউদিনহোর দারুণ এক প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। তার নেওয়া শট একটুর জন্য পোস্ট ঘেঁষে বাইরে চলে যায়।

শেষদিকে দিয়েগো কার্লোস, ম্যালকমরা একের পর এক চেষ্টা করেন। কিন্তু গোলের দেখা পাননি কেউ। ফলে গোলশূন্য ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় দুই দলকে।  

দ্বিতীয় ম্যাচে এসে জয় না পেলেও ‘ডি’ গ্রুপে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষেই আছে সেলেকাওরা। সমান ৪ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে আইভরিকোস্ট। তিনে সৌদি আরব আর চারে জার্মানি।

ম্যাচ হাইলাইটস দেখুন -

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : অলিম্পিক ২০২০