‘প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সুবিধা পাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া’
jugantor
‘প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সুবিধা পাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া’

  স্পোর্টস ডেস্ক  

৩০ জুলাই ২০২১, ২৩:৪৩:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ সফরে এসে প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল।

এমনটি বলেছেনবাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।

তিনি বলেন, বায়ো-বাবল সুনিশ্চিত করা বড় একটা চ্যালেঞ্জ। মানুষ যত বাড়বে (তত কঠিন) হবে। তাদের টেস্টিং প্রটোকল আছে। নির্দিষ্ট দিনে সবার করোনা পরীক্ষা করাতে হয়। তাদের নেগেটিভ হওয়া সাপেক্ষে ইভেন্ট আয়োজিত হয়।

তিনি আরও বলেন, অস্ট্রেলিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে একজন সাপোর্ট স্টাফ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় পুরো সিরিজ পিছিয়ে গেছে। সেই ধরনের বিষয়ে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। তাই মানুষের সংখ্যা যত কম রাখা যায়, তত ভালো।

সুজন আরও বলেন, আমার মনে হয় অস্ট্রেলিয়া যেসব সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে, তা তাদের প্রত্যাশার চেয়েও বেশি। তাদের যে ইনফরমেশন পাচ্ছি, তাতে মনে হচ্ছে তারা এখন পর্যন্ত সবকিছু নিয়ে খুশি। বিশেষ করে ওদের প্রথম যে শর্ত ছিল, এয়ারপোর্ট থেকে হোটেলে যাওয়া পর্যন্ত এবং হোটেলের পরিবেশ, সবকিছু নিয়ে খুশি আছে বলে মনে করি।

বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া, দুই দলই এখন টিম হোটেলে কোয়ারেন্টিনে আছে। শনিবার শেষ হবে কোয়ারেন্টিন পর্ব। এরপর করোনা পরীক্ষায় সবাই নেগেটিভ হলে রোববার থেকে তারা শুরু করতে পারবে অনুশীলন। মঙ্গলবার থেকে শুরু মাঠের লড়াই।

সফরে ১১দিন অবস্থান করবে অস্ট্রেলিয়া। তিন দিন কোয়ারেন্টিনে থাকবে। আর সাত দিনে খেলবে ৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

আগামী মঙ্গলবার শুরু হবে সিরিজ। পরের চার ম্যাচ যথাক্রমে ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট মিরপুর শেরেবাংলায় অনুষ্ঠত হবে।

‘প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সুবিধা পাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া’

 স্পোর্টস ডেস্ক 
৩০ জুলাই ২০২১, ১১:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ সফরে এসে প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। 

এমনটি বলেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন। 

তিনি বলেন, বায়ো-বাবল সুনিশ্চিত করা বড় একটা চ্যালেঞ্জ। মানুষ যত বাড়বে (তত কঠিন) হবে। তাদের টেস্টিং প্রটোকল আছে। নির্দিষ্ট দিনে সবার করোনা পরীক্ষা করাতে হয়। তাদের নেগেটিভ হওয়া সাপেক্ষে ইভেন্ট আয়োজিত হয়।

তিনি আরও বলেন, অস্ট্রেলিয়া-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে একজন সাপোর্ট স্টাফ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় পুরো সিরিজ পিছিয়ে গেছে। সেই ধরনের বিষয়ে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। তাই মানুষের সংখ্যা যত কম রাখা যায়, তত ভালো।

সুজন আরও বলেন, আমার মনে হয় অস্ট্রেলিয়া যেসব সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে, তা তাদের প্রত্যাশার চেয়েও বেশি। তাদের যে ইনফরমেশন পাচ্ছি, তাতে মনে হচ্ছে তারা এখন পর্যন্ত সবকিছু নিয়ে খুশি। বিশেষ করে ওদের প্রথম যে শর্ত ছিল, এয়ারপোর্ট থেকে হোটেলে যাওয়া পর্যন্ত এবং হোটেলের পরিবেশ, সবকিছু নিয়ে খুশি আছে বলে মনে করি।

বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া, দুই দলই এখন টিম হোটেলে কোয়ারেন্টিনে আছে। শনিবার শেষ হবে কোয়ারেন্টিন পর্ব। এরপর করোনা পরীক্ষায় সবাই নেগেটিভ হলে রোববার থেকে তারা শুরু করতে পারবে অনুশীলন। মঙ্গলবার থেকে শুরু মাঠের লড়াই।

সফরে ১১দিন অবস্থান করবে অস্ট্রেলিয়া। তিন দিন কোয়ারেন্টিনে থাকবে। আর সাত দিনে খেলবে ৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। 

আগামী মঙ্গলবার শুরু হবে সিরিজ। পরের চার ম্যাচ যথাক্রমে ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট মিরপুর শেরেবাংলায় অনুষ্ঠত হবে। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন