ঘোড়াকে ঘুসি মেরে শাস্তি পেলেন স্বয়ং কোচ!
jugantor
ঘোড়াকে ঘুসি মেরে শাস্তি পেলেন স্বয়ং কোচ!

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৮ আগস্ট ২০২১, ১৪:২৯:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ঘোড়াকে ঘুসি মেরে শাস্তি পেলেন স্বয়ং কোচ!

টোকিও অলিম্পিকে নিজের ঘোড়াকে ঘুসি মেরে ডিসকোয়ালিফাইড হয়ে গেলেন স্বয়ং কোচ!

এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন জার্মানির কোচ কিম রেইজনার। মেয়েদের মডার্ন পেন্টাথলনে জার্মানির প্রতিযোগী আনিকা স্লোয়ের ওয়ার্মআপের সময় কাণ্ডটি ঘটান তিনি।

এ ঘটনার পর শাস্তি হিসেবে তিনি আর অলিম্পিকে নিজের ইভেন্টে অংশ নিতে পারবেন না।

মডার্ন পেন্টাথলনে নিয়ম অনুযায়ী, শো জাম্পিং ইভেন্টে প্রতিযোগীরা নিজেদের ঘোড়া ব্যবহার করতে পারেন না। মূল লড়াইয়ের ২০ মিনিট আগে প্রতিযোগীদের অন্য সব ঘোড়া দেওয়া হয়। সেই ঘোড়াকে এই সময়ের মধ্যে মানিয়ে নিতে হয়।

শুক্রবার ওয়ার্মআপে রাইডার স্লোয়ের ঘোড়াটি লাফাতে চাচ্ছিল না। হতাশায় জার্মান প্রতিযোগী চিৎকার করে কান্নাকাটি করতে থাকেন। তখনই তার কোচ রেইজনার ঘোড়াকে আঘাত করতে বলেন। প্রতিযোগী তা না করলে তিনি নিজেই ঘোড়ার পেছনের পায়ের উপরের দিকে ঘুসি দেন। বিষয়টি দেখার পর পরই শাস্তি পান সেই কোচ।

দা মডার্ন পেন্টাথলন ফেডারেশন (ইউআইপিএম) জানিয়েছে, শনিবারই একক প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল সেই রেইজনারের। কিন্তু আগের দিনের শো জাম্পিংয়ে ওই আচরণের জন্য জার্মানির এই কোচকে ডিসকোয়ালিফাইড করা হয়েছে।

ইউআইপিএমের এমন সিদ্ধান্তকে সঠিক বলে জানিয়েছেন জার্মানির অলিম্পিক দলের প্রধান আলফন্স হরম্যান।

দুঃখ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘শনিবারের প্রতিযোগিতায় এই কোচের না থাকার বিষয়ে আমরাও সবাই একমত ছিলাম। আমরা এটিও মনে করি, এ ঘটনার একটি জরুরি পর্যালোচনা প্রয়োজন। বিশেষ করে পশু সুরক্ষার জন্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ফেডারেশনগুলো সিদ্ধান্ত নিতে পারে।’

তথ্যসূত্র: অলিম্পিক

ঘোড়াকে ঘুসি মেরে শাস্তি পেলেন স্বয়ং কোচ!

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৮ আগস্ট ২০২১, ০২:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ঘোড়াকে ঘুসি মেরে শাস্তি পেলেন স্বয়ং কোচ!
ঘোড়া না লাফানোয় কাঁদছিলেন প্রতিযোগী আনিকা স্লো

টোকিও অলিম্পিকে নিজের ঘোড়াকে ঘুসি মেরে ডিসকোয়ালিফাইড হয়ে গেলেন স্বয়ং কোচ!

এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন জার্মানির কোচ কিম রেইজনার। মেয়েদের মডার্ন পেন্টাথলনে জার্মানির প্রতিযোগী আনিকা স্লোয়ের ওয়ার্মআপের সময় কাণ্ডটি ঘটান তিনি।

এ ঘটনার পর শাস্তি হিসেবে তিনি আর অলিম্পিকে নিজের ইভেন্টে অংশ নিতে পারবেন না।

মডার্ন পেন্টাথলনে নিয়ম অনুযায়ী, শো জাম্পিং ইভেন্টে প্রতিযোগীরা নিজেদের ঘোড়া ব্যবহার করতে পারেন না।  মূল লড়াইয়ের ২০ মিনিট আগে প্রতিযোগীদের অন্য সব ঘোড়া দেওয়া হয়। সেই ঘোড়াকে এই সময়ের মধ্যে মানিয়ে নিতে হয়।

শুক্রবার ওয়ার্মআপে রাইডার স্লোয়ের ঘোড়াটি লাফাতে চাচ্ছিল না। হতাশায় জার্মান প্রতিযোগী চিৎকার করে কান্নাকাটি করতে থাকেন। তখনই তার কোচ রেইজনার ঘোড়াকে আঘাত করতে বলেন। প্রতিযোগী তা না করলে তিনি নিজেই ঘোড়ার পেছনের পায়ের উপরের দিকে ঘুসি দেন। বিষয়টি দেখার পর পরই শাস্তি পান সেই কোচ।

দা মডার্ন পেন্টাথলন ফেডারেশন (ইউআইপিএম) জানিয়েছে, শনিবারই একক প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার কথা ছিল সেই রেইজনারের। কিন্তু আগের দিনের শো জাম্পিংয়ে ওই আচরণের জন্য জার্মানির এই কোচকে ডিসকোয়ালিফাইড করা হয়েছে।

ইউআইপিএমের এমন সিদ্ধান্তকে সঠিক বলে জানিয়েছেন জার্মানির অলিম্পিক দলের প্রধান আলফন্স হরম্যান।

দুঃখ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘শনিবারের প্রতিযোগিতায় এই কোচের না থাকার বিষয়ে আমরাও সবাই একমত ছিলাম। আমরা এটিও মনে করি, এ ঘটনার একটি জরুরি পর্যালোচনা প্রয়োজন। বিশেষ করে পশু সুরক্ষার জন্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ফেডারেশনগুলো সিদ্ধান্ত নিতে পারে।’

তথ্যসূত্র: অলিম্পিক

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : অলিম্পিক ২০২০