রেকর্ড গড়ে লিগ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা
jugantor
রেকর্ড গড়ে লিগ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২২:৪৮:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

চার ম্যাচ হাতে রেখে বাংলাদেশপ্রিমিয়ার লিগ শিরোপা নিশ্চিত করা বসুন্ধরা কিংস শেষটা জয়ে রাঙাতে পারেনি। সোমবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেষ ম্যাচে আবাহনীর সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে তারা।

প্রিমিয়ার লিগে২৪ ম্যাচ থেকে নিজেদের রেকর্ড সর্বোচ্চ৬৫ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শেষ করল বসুন্ধরা। সমান ম্যাচে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় হয়েছে ঢাকা আবাহনী। ৫২ পয়েন্ট নিয়ে রানার্স আপ হয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব।

সোমবার আবাহনীর বিপক্ষে নিরুত্তাপ শেষ ম্যাচের পর ট্রফি নিয়ে উল্লাসেমাতেন বসুন্ধরার ফুটবলাররা।

ম্যাচে তপু বর্মণ একটি গোল করে দলকে এগিয়ে নিয়ে গেলেও আরেকটি আত্মঘাতি গোলে খলনায়ক হয়ে যান। ম্যাচের ২৮ মিনিটে আত্মঘাতি গোলে এগিয়ে যায় আবাহনী।

রাফায়েলের ক্রস ক্লিয়ার করতে গিয়েই বল জালে জড়ান বসুন্ধরার অধিনায়ক তপু। এরপর সমতায় আনার বেশ কয়েকটি সুযোগ পেয়েছিল বসুন্ধরা। তবে সেই তপুই দলকে শেষ পর্যন্ত সমতায় ফেরান। ৩৭ মিনিটে রবসনের ফ্রি কিক থেকে দারুণ হেডে গোল করেন তপু বর্মণ।

৪৫ মিনিটে আবাহনীকে দু’বার সেভ করেছেন গোলরক্ষক শহিদুল আলম সোহেল। প্রথমবার জনাথনের ক্রস থেকে বিশ্বানথের হেড বা দিকে ঝাপিয়ে ঠেকিয়েছেন সোহেল। এরপর কর্নার থেকে আসা বলে জনাথনের শট ডান দিকে ঝাপিয়ে প্রতিহত করেন শহিদুল আলম।

৫২ মিনিটে আবারও সুযোগ নষ্ট করেন আবাহনীর সানডে চিজোবা। ৮৫ মিনিটে আবাহনীর দারুণ চেষ্টা নষ্ট করেন দেন বসুন্ধরার গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকো। সানডে চিজোবার হেডে বা দিকে ঝাপিয়ে বল বাইরে পাঠিয়েছেন জিকো।

রেকর্ড গড়ে লিগ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চার ম্যাচ হাতে রেখে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ শিরোপা নিশ্চিত করা বসুন্ধরা কিংস শেষটা জয়ে রাঙাতে পারেনি। সোমবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে শেষ ম্যাচে আবাহনীর সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে তারা। 

প্রিমিয়ার লিগে ২৪ ম্যাচ থেকে নিজেদের রেকর্ড সর্বোচ্চ ৬৫ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শেষ করল বসুন্ধরা। সমান ম্যাচে ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় হয়েছে ঢাকা আবাহনী। ৫২ পয়েন্ট নিয়ে রানার্স আপ হয়েছে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব। 

সোমবার আবাহনীর বিপক্ষে নিরুত্তাপ শেষ ম্যাচের পর ট্রফি নিয়ে উল্লাসে মাতেন বসুন্ধরার ফুটবলাররা। 

ম্যাচে তপু বর্মণ একটি গোল করে দলকে এগিয়ে নিয়ে গেলেও আরেকটি আত্মঘাতি গোলে খলনায়ক হয়ে যান। ম্যাচের ২৮ মিনিটে আত্মঘাতি গোলে এগিয়ে যায় আবাহনী। 

রাফায়েলের ক্রস ক্লিয়ার করতে গিয়েই বল জালে জড়ান বসুন্ধরার অধিনায়ক তপু। এরপর সমতায় আনার বেশ কয়েকটি সুযোগ পেয়েছিল বসুন্ধরা। তবে সেই তপুই দলকে শেষ পর্যন্ত সমতায় ফেরান। ৩৭ মিনিটে রবসনের ফ্রি কিক থেকে দারুণ হেডে গোল করেন তপু বর্মণ। 

৪৫ মিনিটে আবাহনীকে দু’বার সেভ করেছেন গোলরক্ষক শহিদুল আলম সোহেল। প্রথমবার জনাথনের ক্রস থেকে বিশ্বানথের হেড বা দিকে ঝাপিয়ে ঠেকিয়েছেন সোহেল। এরপর কর্নার থেকে আসা বলে জনাথনের শট ডান দিকে ঝাপিয়ে প্রতিহত করেন শহিদুল আলম।

৫২ মিনিটে আবারও সুযোগ নষ্ট করেন আবাহনীর সানডে চিজোবা। ৮৫ মিনিটে আবাহনীর দারুণ চেষ্টা নষ্ট করেন দেন বসুন্ধরার গোলকিপার আনিসুর রহমান জিকো। সানডে চিজোবার হেডে বা দিকে ঝাপিয়ে বল বাইরে পাঠিয়েছেন জিকো। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন