ওমান থেকে স্পিনার বিপ্লবকে কেন ফেরত পাঠানো হচ্ছে?
jugantor
ওমান থেকে স্পিনার বিপ্লবকে কেন ফেরত পাঠানো হচ্ছে?

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১০ অক্টোবর ২০২১, ১৬:১১:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা সতর্কতায় বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের দলের সঙ্গে বাড়তি দুজন স্ট্যান্ড বাই হিসেবে রেখে ১৭ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছিল বিসিবি।

বাড়তি দুই ক্রিকেটার ছিলেন - পেসার রুবেল হোসেন ও তরুণ লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

করোনা পরিস্থিতিতে রিপ্লেসমেন্টের কোয়ারেন্টিন, বায়ো বাবল এসব মাথায় রেখে বাড়তি দুজন ক্রিকেটারকে যুক্ত করা হয় বলে জানিয়েছিল বিসিবি। দলের সঙ্গে ওমানে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয় রুবেল ও বিপ্লবকে।

বিসিবি থেকে আরো জানানো হয়েছিল, বিশ্বকাপের পুরো সময় রুবেল ও বিপ্লব দলের সঙ্গে থাকবেন।

কিন্তু শনিবার রাতে আচমকা বিশ্বকাপ স্কোয়াডে পরিবর্তন আনে বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট।

স্ট্যান্ড বাই থেকে মূল দলে নেওয়া হয় পেসার রুবেলকে। আর ছেড়ে দেওয়া হয় বিপ্লবকে।

শনিবার বিসিবি জানিয়েছে, দুজনেরই বিশ্বকাপের মূল পর্বের খেলা শুরুর আগে দেশে ফিরে আসার কথা ছিল।

জানা গেছে, বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দলকে ওমানে রেখেই দেশে ফিরে আসছেন লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। দেশে ফেরার জন্য শনিবার রাতেই টিম হোটেল ছেড়েছেন তিনি।

বিশ্বকাপ দলে রুবেলের অন্তর্ভূক্তি ও বিপ্লবের দেশে ফেরা নিয়ে বিসিবি থেকে কোনো ব্যাখ্যা আসেনি এখনো।

তবে এ বিষয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর বক্তব্য অনুযায়ী পেসার তাসকিন আহমেদের ইনজুরি সমস্যার কারণে রুবেলকে ব্যাকআপকে হিসেবে দলে টানা হয়েছে।

এক গণমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, বিশ্বকাপ দলে কারও কারও ইনজুরির সমস্যা আছে। তাই স্ট্যান্ডবাই থেকে রুবেলকে মূল দলে টেনে নিয়েছি আমরা। প্রাথমিকভাবে আরব আমিরাতে ১২ ও ১৪ অক্টোবর দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ আছে, তার জন্যই আসলে রুবেলকে নেওয়া।

এখন প্রশ্ন উঠেছে— বিশ্বকাপে বাংলাদেশের খেলা শুরুর এক সপ্তাহ আগে কী এমন হলো যে, একজনকে রেখে আরেকজনকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে? স্পিনার আমিনুলে দোষ কোথায়? আর ফেরত পাঠালে তাকে ওমানে নিয়ে যাওয়াই বা হলো কেন?

এসব প্রশ্নের এখনো কোনো ব্যাখ্যা মেলেনি বিসিবির সংশ্লিষ্টদের থেকে।

ওমান থেকে স্পিনার বিপ্লবকে কেন ফেরত পাঠানো হচ্ছে?

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১০ অক্টোবর ২০২১, ০৪:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনা সতর্কতায় বিশ্বকাপের জন্য ১৫ সদস্যের দলের সঙ্গে বাড়তি দুজন স্ট্যান্ড বাই হিসেবে রেখে ১৭ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছিল বিসিবি।

বাড়তি দুই ক্রিকেটার ছিলেন - পেসার রুবেল হোসেন ও তরুণ লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব।

করোনা পরিস্থিতিতে রিপ্লেসমেন্টের কোয়ারেন্টিন, বায়ো বাবল এসব মাথায় রেখে বাড়তি দুজন ক্রিকেটারকে যুক্ত করা হয় বলে জানিয়েছিল বিসিবি। দলের সঙ্গে ওমানে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয় রুবেল ও বিপ্লবকে। 

বিসিবি থেকে আরো জানানো হয়েছিল, বিশ্বকাপের পুরো সময় রুবেল ও বিপ্লব দলের সঙ্গে থাকবেন। 

কিন্তু শনিবার রাতে আচমকা বিশ্বকাপ স্কোয়াডে পরিবর্তন আনে বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট।

স্ট্যান্ড বাই থেকে মূল দলে নেওয়া হয় পেসার রুবেলকে। আর ছেড়ে দেওয়া হয় বিপ্লবকে।

শনিবার বিসিবি জানিয়েছে, দুজনেরই বিশ্বকাপের মূল পর্বের খেলা শুরুর আগে দেশে ফিরে আসার কথা ছিল।

জানা গেছে, বাংলাদেশের বিশ্বকাপ দলকে ওমানে রেখেই দেশে ফিরে আসছেন লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। দেশে ফেরার জন্য শনিবার রাতেই টিম হোটেল ছেড়েছেন তিনি।

বিশ্বকাপ দলে রুবেলের অন্তর্ভূক্তি ও বিপ্লবের দেশে ফেরা নিয়ে বিসিবি থেকে কোনো ব্যাখ্যা আসেনি এখনো।

তবে এ বিষয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নুর বক্তব্য অনুযায়ী পেসার তাসকিন আহমেদের ইনজুরি সমস্যার কারণে রুবেলকে ব্যাকআপকে হিসেবে দলে টানা হয়েছে। 

এক গণমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, বিশ্বকাপ দলে কারও কারও ইনজুরির সমস্যা আছে। তাই স্ট্যান্ডবাই থেকে রুবেলকে মূল দলে টেনে নিয়েছি আমরা। প্রাথমিকভাবে আরব আমিরাতে ১২ ও ১৪ অক্টোবর দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ আছে, তার জন্যই আসলে রুবেলকে নেওয়া।

এখন প্রশ্ন উঠেছে—  বিশ্বকাপে বাংলাদেশের খেলা শুরুর এক সপ্তাহ আগে কী এমন হলো যে, একজনকে রেখে আরেকজনকে ফেরত পাঠানো হচ্ছে? স্পিনার আমিনুলে দোষ কোথায়? আর ফেরত পাঠালে তাকে ওমানে নিয়ে যাওয়াই বা হলো কেন? 

এসব প্রশ্নের এখনো কোনো ব্যাখ্যা মেলেনি বিসিবির সংশ্লিষ্টদের থেকে।  
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ-২০২০

১৫ অক্টোবর, ২০২১