‘সমালোচনা অবশ্যই হবে, কিন্তু একেবারে ছোট করে ফেলা ঠিক নয়’
jugantor
‘সমালোচনা অবশ্যই হবে, কিন্তু একেবারে ছোট করে ফেলা ঠিক নয়’

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২২ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৯:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে পরাজয়ের পর সমালোচনা সহ্য করতে হয়েছিল বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে।

ঘরের মাঠে মিরপুর গ্রাউন্ডে দুই শক্তিশালী দল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয়কে নিয়েও সমালোচনা করা হয়।

শত শত তীর্যক বাক্যের তীরে বিদ্ধ হয়েছেন। ট্রলডও হয়েছেন। তবে ওমানের বিপক্ষে ২৬ রানের জয়ের পর সেই সমালোচনায় কিছুটা হলেও ভাটা পড়ে। এর দুর্বল পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে ৮৪ রানের বিশাল জয় দিয়ে সমালোচকদের সমুচিত জবাব দিলেন মাহমুদউল্লাহ।

যদিও এবারের সমালোচনা বেশ খেপিয়ে তুলেছে মাহমুদউল্লাহদের। এতোদিন এ বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন।

তবে সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত হওয়ার পর মুখ খুললেন। স্মিথভাষ্যে জানালেন, এবারের সমালোচনা মাত্রা ছাড়িয়ে গিয়েছে। রীতিমতো অস্বাস্থ্যকর। এসব সমালোচনা ক্রিকেটারদের মনে ক্ষত তৈরি করে।

সংবাদ সম্মেলনে চোয়াল শক্ত করেই এসব কথা জানালেন মাহমুদউল্লাহ। সংবাদ সম্মেলনে এসে কেমন যেন ক্ষেপাটে দেখা গেল তাকে।

বিষয়টি নজর এড়ায়নি সাংবাদিকদের। একজন জিজ্ঞেস করলেন, আগের সংবাদ সম্মেলনেও ম্যাচসেরা সাকিব আল হাসানকে তেমন একটা বিনয়ী দেখা যায়নি। আজ আপনার থেকেও রাগ ঝরে পড়ছে। কেন?

সাংবাদিকের এমন মন্তব্য অস্বীকার করলেন না মাহমুদউল্লাহা। আক্ষেপের সুরে বললেন, ‘আমরাও মানুষ, আমাদের অনুভূতি কাজ করে। আমাদের পরিবার আছে, সবারই পরিবার আছে। আমাদের বাবা-মায়েরা বসে থাকে টিভি সেটের সামনে, সন্তানরা বসে থাকে। তারা মন খারাপ করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তো এখন হাতের নাগালে, সবারই মোবাইল আছে। সমালোচনা তো হবেই। আমরাও আশা করি সমালোচনা, খারাপ খেলেছি সমালোচনা তো হবেই। কেন হবে না? সমালোচনা অবশ্যই হবে, খারাপ খেলেছি। কিন্তু একেবারে ছোট করে ফেলা ঠিক নয়।সব জায়গা থেকেই সমালোচনা হয়েছে। ক্রিকেটে ও ক্রিকেটের বাইরে থেকেও। টি-টোয়েন্টির মতো সংস্করণে কোনো দল ফেবারিট থাকে না। ছোট দলও বড় দলকে হারিয়ে দিতে পারে।’

টি২০ বিশ্বকাপ ২০২১

‘সমালোচনা অবশ্যই হবে, কিন্তু একেবারে ছোট করে ফেলা ঠিক নয়’

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২২ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে পরাজয়ের পর সমালোচনা সহ্য করতে হয়েছিল বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে।

ঘরের মাঠে মিরপুর গ্রাউন্ডে দুই শক্তিশালী দল অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ জয়কে নিয়েও সমালোচনা করা হয়।

শত শত তীর্যক বাক্যের তীরে বিদ্ধ হয়েছেন। ট্রলডও হয়েছেন। তবে ওমানের বিপক্ষে ২৬ রানের জয়ের পর সেই সমালোচনায় কিছুটা হলেও ভাটা পড়ে। এর দুর্বল পাপুয়া নিউগিনির বিপক্ষে ৮৪ রানের বিশাল জয় দিয়ে সমালোচকদের সমুচিত জবাব দিলেন মাহমুদউল্লাহ।

যদিও এবারের সমালোচনা বেশ খেপিয়ে তুলেছে মাহমুদউল্লাহদের। এতোদিন এ বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন।

তবে সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত হওয়ার পর মুখ খুললেন। স্মিথভাষ্যে জানালেন, এবারের সমালোচনা মাত্রা ছাড়িয়ে গিয়েছে। রীতিমতো অস্বাস্থ্যকর। এসব সমালোচনা ক্রিকেটারদের মনে ক্ষত তৈরি করে।

সংবাদ সম্মেলনে চোয়াল শক্ত করেই এসব কথা জানালেন মাহমুদউল্লাহ। সংবাদ সম্মেলনে এসে কেমন যেন ক্ষেপাটে দেখা গেল তাকে।

বিষয়টি নজর এড়ায়নি সাংবাদিকদের। একজন জিজ্ঞেস করলেন, আগের সংবাদ সম্মেলনেও ম্যাচসেরা সাকিব আল হাসানকে তেমন একটা বিনয়ী দেখা যায়নি। আজ আপনার থেকেও রাগ ঝরে পড়ছে। কেন?

সাংবাদিকের এমন মন্তব্য অস্বীকার করলেন না মাহমুদউল্লাহা। আক্ষেপের সুরে বললেন, ‘আমরাও মানুষ, আমাদের অনুভূতি কাজ করে। আমাদের পরিবার আছে, সবারই পরিবার আছে। আমাদের বাবা-মায়েরা বসে থাকে টিভি সেটের সামনে, সন্তানরা বসে থাকে। তারা মন খারাপ করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তো এখন হাতের নাগালে, সবারই মোবাইল আছে। সমালোচনা তো হবেই। আমরাও আশা করি সমালোচনা, খারাপ খেলেছি সমালোচনা তো হবেই। কেন হবে না? সমালোচনা অবশ্যই হবে, খারাপ খেলেছি। কিন্তু একেবারে ছোট করে ফেলা ঠিক নয়।সব জায়গা থেকেই সমালোচনা হয়েছে। ক্রিকেটে ও ক্রিকেটের বাইরে থেকেও। টি-টোয়েন্টির মতো সংস্করণে কোনো দল ফেবারিট থাকে না। ছোট দলও বড় দলকে হারিয়ে দিতে পারে।’ 

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : টি২০ বিশ্বকাপ ২০২১