কিউই বোলিংয়ে নাস্তানাবুদ ভারত
jugantor
কিউই বোলিংয়ে নাস্তানাবুদ ভারত

  স্পোর্টস ডেস্ক  

৩১ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩৯:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নিউজিল্যান্ডের বোলিংয়েনাস্তানাবুদ ভারতীয় ক্রিকেট দল।বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ব্যাটিং শক্তিশালী ভারতীয় দলকে ২০ ওভারে ১১০/৭ রানে আটকে ফেলে কিউইরা।

ভারতের ব্যাটিং দেখে হতাশাই প্রকাশ করেনইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন। তিনি টুইটারে লেখেন ২০১০ সালের ক্রিকেট খেলছে ভারত।

রোববার দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমেই বিপর্যয়ে পড়ে যায় ভারত। ট্রেন্ট বোল্টের গতির বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন ওপোনারইশান কিশান।

সুরাইয়া কুমার যাদবের পরিবর্তে সুযোগ পেয়ে ওপেনিংয়ে নেমে মাত্র ৮ বলে ৪ রান করে ফেরেন ইশান। তার বিদায়ে ২.৫ ওভারে ১১ রানে প্রথম উইকেট হারায় ভারত।

ইশান কিশান দলে ফেরায় ওপেনিং পজিশন ছাড়েন রোহিত শর্মা। তিন নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমেই ইশান কিশানের মতো ট্রেন্ট বোল্টের বলে ক্যাচ তুলে দেন রোহিত শর্মাও। লংঅনে ফিল্ডিংয়ে দাঁড়িয়ে থাকা এডাম মিলনির হাতে বলটি পড়ে। কিন্তু সহজ ক্যাচটি তার হাত ফসকে পড়ে যায়। শূন্য রানে লাইফ পান ভারতীয় এ তারকা ওপেনার।

৫.৫ ওভারে দলীয় ৩৫ রানে টিম সাউদির বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন অন্য ওপেনার লোকেশ রাহুল। দলীয় ৪০ রানে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন শূন্য রানে ক্যাচ তুলে দেওয়া রোহিত শর্মা। সাজঘরে ফেরার আগে ১৪ বলে এক চার ও এক ছক্কায় ১৪ রান করেন তিনি।

রোহিত আউট হওয়ার পর উইকেটে বেশি সময় স্থায়ী হতে পারেননি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ইস সৌদির বলে ট্রেন্ট বোল্টের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন তিনি। তার আগে ১৭ বলে মাত্র ৯ রান করার সুযোগ পান কোহলি।

দলীয় ৭০ রানে ফেরেন ঋষভ পন্থ। অ্যাডাম মিলনির বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন এ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। ১৯ বলে মাত্র ১২ রান করার সুযোগ পান তিনি।

এরপর ১৯তম ওভারে দলীয়৯৪ রানে আউট হন হার্দিক পান্ডিয়া ও শার্দুল ঠাকুর। দলকে সম্মানজনক স্কোর উপহার দিতে শেষ দিকে চেষ্টা করে যান রবিন্দ্র জাদেজা। তিনি ১৯ বলে দুই চার ও এক ছক্কায় দলীয় সর্বোচ্চঅপরাজিত ২৬ রান করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ভারত: ২০ ওভারে ১১০/৭ রান (রবিন্দ্র জাদেজা ২৬*, হার্দিক পান্ডিয়া ২৩, লোকেশ রাহুল ১৮, রোহিত শর্মা ১৪, ঋষভ পন্থ ১২; ট্রেন্ট বোল্ট ৩/২০, ইস সৌদি ২/১৭)।

কিউই বোলিংয়ে নাস্তানাবুদ ভারত

 স্পোর্টস ডেস্ক 
৩১ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নিউজিল্যান্ডের বোলিংয়ে নাস্তানাবুদ ভারতীয় ক্রিকেট দল। বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ব্যাটিং শক্তিশালী ভারতীয় দলকে ২০ ওভারে ১১০/৭ রানে আটকে ফেলে কিউইরা। 

ভারতের ব্যাটিং দেখে হতাশাই প্রকাশ করেন ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন। তিনি টুইটারে লেখেন ২০১০ সালের ক্রিকেট খেলছে ভারত।

রোববার দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমেই বিপর্যয়ে পড়ে যায় ভারত। ট্রেন্ট বোল্টের গতির বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন ওপোনার ইশান কিশান।

সুরাইয়া কুমার যাদবের পরিবর্তে সুযোগ পেয়ে ওপেনিংয়ে নেমে মাত্র ৮ বলে ৪ রান করে ফেরেন ইশান। তার বিদায়ে ২.৫ ওভারে ১১ রানে প্রথম উইকেট হারায় ভারত।

ইশান কিশান দলে ফেরায় ওপেনিং পজিশন ছাড়েন রোহিত শর্মা। তিন নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমেই ইশান কিশানের মতো ট্রেন্ট বোল্টের বলে ক্যাচ তুলে দেন রোহিত শর্মাও। লংঅনে ফিল্ডিংয়ে দাঁড়িয়ে থাকা এডাম মিলনির হাতে বলটি পড়ে। কিন্তু সহজ ক্যাচটি তার হাত ফসকে পড়ে যায়। শূন্য রানে লাইফ পান ভারতীয় এ তারকা ওপেনার। 

৫.৫ ওভারে দলীয় ৩৫ রানে টিম সাউদির বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন অন্য ওপেনার লোকেশ রাহুল। দলীয় ৪০ রানে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন শূন্য রানে ক্যাচ তুলে দেওয়া রোহিত শর্মা। সাজঘরে ফেরার আগে ১৪ বলে এক চার ও এক ছক্কায় ১৪ রান করেন তিনি।   

রোহিত আউট হওয়ার পর উইকেটে বেশি সময় স্থায়ী হতে পারেননি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ইস সৌদির বলে ট্রেন্ট বোল্টের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন তিনি। তার আগে ১৭ বলে মাত্র ৯ রান করার সুযোগ পান কোহলি। 

দলীয় ৭০ রানে ফেরেন ঋষভ পন্থ। অ্যাডাম মিলনির বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন এ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান। ১৯ বলে মাত্র ১২ রান করার সুযোগ পান তিনি। 

এরপর ১৯তম ওভারে দলীয় ৯৪ রানে আউট হন হার্দিক পান্ডিয়া ও শার্দুল ঠাকুর। দলকে সম্মানজনক স্কোর উপহার দিতে শেষ দিকে চেষ্টা করে যান রবিন্দ্র জাদেজা। তিনি ১৯ বলে দুই চার ও এক ছক্কায় দলীয় সর্বোচ্চ অপরাজিত ২৬ রান করেন। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ভারত: ২০ ওভারে ১১০/৭ রান (রবিন্দ্র জাদেজা ২৬*, হার্দিক পান্ডিয়া ২৩, লোকেশ রাহুল ১৮, রোহিত শর্মা ১৪, ঋষভ পন্থ ১২; ট্রেন্ট বোল্ট ৩/২০, ইস সৌদি ২/১৭)।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : টি২০ বিশ্বকাপ ২০২১