কোহলিকে ৪৮ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছিল ভারতীয় বোর্ড
jugantor
কোহলিকে ৪৮ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছিল ভারতীয় বোর্ড

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:১৮:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

এই তো কিছু দিন আগে ভারতীয় দলের তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক ছিলেন বিরাট কোহলি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর থেকে ক্রিকেটের এই ক্ষুদে সংস্করণের নেতৃত্ব তুলে দিলেন রোহিত শর্মার কাঁধে।

গুঞ্জন ওঠে— ওয়ানডের নেতৃত্বও হারাবেন কোহলি। তাই সত্য হলো।

বুধবারই নতুন ওয়ানডে অধিনায়কের নাম ঘোষণা করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই। কোহলিকে সরিয়ে দিয়ে ওয়ানডেতে নতুন অধিনায়কের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হচ্ছে রোহিত শর্মার হাতে।

বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টেস্ট সিরিজের জন্য দল ঘোষণার সময় রোহিতকে টি২০ ও ওয়ানডে দলের পূর্ণকালীন অধিনায়ক করা হয়।

অধিনায়কের নাম ঘোষণার পর শুরু হলো নতুন বিতর্ক। শোনা যাচ্ছে— বিরাট কোহলির ওয়ানডে অধিনায়কত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে। এক রকম জোর করেই কোহলিকে ওয়ানডের নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ভারতীয় রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া (পিটিআই) জানিয়েছে, ওয়ানডের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিতে বিরাট কোহলিকে ৪৮ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছিল বিসিসিআই। তিনি যেন নিজে থেকেই অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ান। কিন্তু কোহলির পক্ষ থেকে এই সময়ের মধ্যে কোনো জবাব আসেনি।

ফলে ৪৮ ঘণ্টা অপেক্ষার পর রোহিত শর্মাকে অধিনায়ক ঘোষণা করে বিসিসিআই।

এমন তথ্যকে সঠিক মানার পক্ষে যুক্তিও রয়েছে। বুধবার একেবারে আড়ম্বরহীনভাবে কোহলিকে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করে বিসিসিআই। এমনকি পৃথকভাবে কোনো বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করেনি তারা। ভারতের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক হিসেবে রোহিতের নাম বলার সময় টুইটারেও কোহলির নামটিও লেখেনি বিসিসিআইয়ের কর্মকর্তারা। কিন্তু রোহিতের ছবি ও নাম দেওয়া হয়। তাকে ট্যাগ করা হয়।

পিটিআই জানিয়েছে, ‘একদিনের ক্রিকেটে যে অধিনায়ক হিসেবে কোহলির সময় শেষ হয়ে এসেছে, তা আগেই লেখা হয়েছিল। তবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড কোহলিকে সম্মানের সঙ্গে বিদায় জানাতে চেয়েছিল। কিন্তু সে পথে হাঁটেননি কোহলি। তাই এক প্রকার চরম পদক্ষেপ নিল বিসিসিআই। বিরাট কোহলিকে অধিনায়কের পদ থেকে ‘বরখাস্ত’ করে দিল সৌরভ গাঙ্গুলির বোর্ড।

কোহলিকে ৪৮ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছিল ভারতীয় বোর্ড

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

এই তো কিছু দিন আগে ভারতীয় দলের তিন ফরম্যাটের অধিনায়ক ছিলেন বিরাট কোহলি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর থেকে ক্রিকেটের এই ক্ষুদে সংস্করণের নেতৃত্ব তুলে দিলেন রোহিত শর্মার কাঁধে।

গুঞ্জন ওঠে— ওয়ানডের নেতৃত্বও হারাবেন কোহলি। তাই সত্য হলো।

বুধবারই নতুন ওয়ানডে অধিনায়কের নাম ঘোষণা করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই। কোহলিকে সরিয়ে দিয়ে ওয়ানডেতে নতুন অধিনায়কের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হচ্ছে রোহিত শর্মার হাতে।

বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে টেস্ট সিরিজের জন্য দল ঘোষণার সময় রোহিতকে টি২০ ও ওয়ানডে দলের পূর্ণকালীন অধিনায়ক করা হয়।

অধিনায়কের নাম ঘোষণার পর শুরু হলো নতুন বিতর্ক। শোনা যাচ্ছে— বিরাট কোহলির ওয়ানডে অধিনায়কত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে। এক রকম জোর করেই কোহলিকে ওয়ানডের নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ভারতীয় রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা প্রেস ট্রাস্ট অব ইন্ডিয়া (পিটিআই) জানিয়েছে, ওয়ানডের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিতে বিরাট কোহলিকে ৪৮ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছিল বিসিসিআই। তিনি যেন নিজে থেকেই অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়ান। কিন্তু কোহলির পক্ষ থেকে এই সময়ের মধ্যে কোনো জবাব আসেনি। 

ফলে ৪৮ ঘণ্টা অপেক্ষার পর রোহিত শর্মাকে অধিনায়ক ঘোষণা করে বিসিসিআই। 

এমন তথ্যকে সঠিক মানার পক্ষে যুক্তিও রয়েছে। বুধবার একেবারে আড়ম্বরহীনভাবে কোহলিকে অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করে বিসিসিআই। এমনকি পৃথকভাবে কোনো বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করেনি তারা। ভারতের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক হিসেবে রোহিতের নাম বলার সময় টুইটারেও কোহলির নামটিও লেখেনি বিসিসিআইয়ের কর্মকর্তারা। কিন্তু রোহিতের ছবি ও নাম দেওয়া হয়। তাকে ট্যাগ করা হয়।

পিটিআই জানিয়েছে, ‘একদিনের ক্রিকেটে যে অধিনায়ক হিসেবে কোহলির সময় শেষ হয়ে এসেছে, তা আগেই লেখা হয়েছিল। তবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড কোহলিকে সম্মানের সঙ্গে বিদায় জানাতে চেয়েছিল। কিন্তু সে পথে হাঁটেননি কোহলি। তাই এক প্রকার চরম পদক্ষেপ নিল বিসিসিআই। বিরাট কোহলিকে অধিনায়কের পদ থেকে ‘বরখাস্ত’ করে দিল সৌরভ গাঙ্গুলির বোর্ড।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন