সাকিবের দলের কাছে হেরে গেল মিরাজের দল
jugantor
সাকিবের দলের কাছে হেরে গেল মিরাজের দল

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:২২:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের নতুন আসরের প্রথম ম্যাচে মেহেদী হাসান মিরাজেরচট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ৪ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়েছে সাকিব আল হাসানের ফরচুনবরিশাল। ম্যাচটতে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভার খেলে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২৫ রান করে চট্টগ্রাম। জবাবে বরিশাল ১৮.৪ ওভার খেলে ৬ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌছে যায়।

ম্যাচটিতে চট্টগ্রামের হয়ে ব্যাটিংয়ে সুবিধা করতে পারেননি দলটির ওপেনার ও মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা। ওপেনারদের মধ্যে একমাত্র জ্যাক উইলস ১৬ রান করেন।

শেষ দিকে বেনি হাওয়েল ২০ বলে ৪১ রান করলে, কিছুটা লড়াই করার মতো পুঁজি পায় চট্টগ্রাম।

বরিশালের হয়ে ৩২ রান দিয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট তুলে নেন আলজারি জোসেফ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দুইটি উইকেট পান নাঈম হাসান। তিনি চার ওভার বল করে ২৫ রান দেন।

কিন্তু বরিশালের ব্যাটসম্যানরা সেই সুযোগটি আর দেননি। শুরুতে ওপেনার নাজমুল হাসান শান্ত ১ রান করে ফিরলেও ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোনো বিপদ হয়নি। যদিও এই সহজ লক্ষ্যকেই একটা সময় কঠিন করে ফেলেছিলেন তারা।

শান্তর সঙ্গে ব্যাট করতে নামা আরেক ওপেনার সৈকত আলী দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেন। তবে দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান সুবিধা করতে পারেননি।

সাকিব ১৬ বল খেলে ১৩ রান করে বোল্ড আউট হন। চট্টগ্রামের হয়ে মাত্র ১৬ রান দিয়ে চারটি উইকেট তুলে নেন অধিনায়ক মেহেদি হাসান।

সাকিবের দলের কাছে হেরে গেল মিরাজের দল

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২১ জানুয়ারি ২০২২, ০৫:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের নতুন আসরের প্রথম ম্যাচে মেহেদী হাসান মিরাজের চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে ৪ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়েছে সাকিব আল হাসানের ফরচুন বরিশাল। ম্যাচটতে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভার খেলে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২৫ রান করে চট্টগ্রাম। জবাবে বরিশাল ১৮.৪ ওভার খেলে ৬ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌছে যায়।

ম্যাচটিতে চট্টগ্রামের হয়ে ব্যাটিংয়ে সুবিধা করতে পারেননি দলটির ওপেনার ও মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা। ওপেনারদের মধ্যে একমাত্র জ্যাক উইলস ১৬ রান করেন। 

শেষ দিকে বেনি হাওয়েল ২০ বলে ৪১ রান করলে, কিছুটা লড়াই করার মতো পুঁজি পায় চট্টগ্রাম। 

বরিশালের হয়ে ৩২ রান দিয়ে সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট তুলে নেন আলজারি জোসেফ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দুইটি উইকেট পান নাঈম হাসান। তিনি চার ওভার বল করে ২৫ রান দেন। 

কিন্তু বরিশালের ব্যাটসম্যানরা সেই সুযোগটি আর দেননি। শুরুতে ওপেনার নাজমুল হাসান শান্ত ১ রান করে ফিরলেও ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোনো বিপদ হয়নি। যদিও এই সহজ লক্ষ্যকেই একটা সময় কঠিন করে ফেলেছিলেন তারা। 

শান্তর সঙ্গে ব্যাট করতে নামা আরেক ওপেনার সৈকত আলী দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেন। তবে দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান সুবিধা করতে পারেননি।

সাকিব ১৬ বল খেলে ১৩ রান করে বোল্ড আউট হন। চট্টগ্রামের হয়ে মাত্র ১৬ রান দিয়ে চারটি উইকেট তুলে নেন অধিনায়ক মেহেদি হাসান।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন