দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে পাত্তাই পেল না ভারত
jugantor
দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে পাত্তাই পেল না ভারত

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২২ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:৩৫:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের করা রানের পাহাড়ও টপকে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা। হেসেখেলেই পার করল ২৮৮ রানের টার্গেট। তাও কিনা ১১ বল ও ৩ উইকেট হাতে রেখেই।

এক কথায় ২৮৭ রান করেও দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে পাত্তাই পেল না ভারত।

এমন দুর্দান্ত জয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ১ ম্যাচ হাতে রেখেই নিশ্চিত করল প্রোটিয়ারা।

প্রথম ম্যাচে ৩১ রানে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হেরেছিল ভারত।

দ্বিতীয় ম্যাচে শনিবার পার্লের বোল্যান্ড পার্কে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ২৮৭ রান সংগ্রহ করে ভারত। লোকেশ রাহুল করেন ৫৫ রান এবং ঋষভ পন্ত করেন ৮৫ রান।

জবাবে ব্যাট হাতে নেমে ভারতীয় বেলারদের তুলোধুনো করেন দক্ষিণ আফ্রিকান ওপেনার কুইন্টন ডি কক। ৭ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায় ৬৬ বল খেলে ৭৮ রান করেন। পরে শার্দুল ঠাকুরের পেসে আউট হন কক।

একটু রয়েসয়ে খেললেও আরেক ওপেনার জানেমান মালান ১০৮ বল খেলে করেন ৯১ রান। যেখানে ৮টি বাউন্ডারি এবং ১টি ছক্কার মার রয়েছে। তাকে সেঞ্চুরি বঞ্চিত করেন জাসপ্রিত বুমরাহ। সরাসরি বোল্ড করে দেন।

এর পর অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা ৩৫ রানে আউট হলেও জয়ের ভিত গড়ে দিয়ে যান এই তিন ব্যাটার।

বাকি কাজটা সারেন এইডেন মারক্রাম ও রশি ফন ডার ডুসেন। দুজনেই ৩৭ রানে অপরাজিত থেকে ৪৮.১ ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন দলকে।

তথ্যসূত্র: ক্রিকইনফো।

দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে পাত্তাই পেল না ভারত

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২২ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:৩৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতের করা রানের পাহাড়ও টপকে গেল দক্ষিণ আফ্রিকা।  হেসেখেলেই পার করল ২৮৮ রানের টার্গেট। তাও কিনা ১১ বল ও ৩ উইকেট হাতে রেখেই।

এক কথায় ২৮৭ রান করেও দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে পাত্তাই পেল না ভারত।

এমন দুর্দান্ত জয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ১ ম্যাচ হাতে রেখেই নিশ্চিত করল প্রোটিয়ারা।

প্রথম ম্যাচে ৩১ রানে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হেরেছিল ভারত। 

দ্বিতীয় ম্যাচে শনিবার পার্লের বোল্যান্ড পার্কে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ২৮৭ রান সংগ্রহ করে ভারত। লোকেশ রাহুল করেন ৫৫ রান এবং ঋষভ পন্ত করেন ৮৫ রান।

জবাবে ব্যাট হাতে নেমে ভারতীয় বেলারদের তুলোধুনো করেন দক্ষিণ আফ্রিকান ওপেনার কুইন্টন ডি কক। ৭ বাউন্ডারি ও ৩ ছক্কায় ৬৬ বল খেলে ৭৮ রান করেন। পরে শার্দুল ঠাকুরের পেসে আউট হন কক। 

একটু রয়েসয়ে খেললেও আরেক ওপেনার জানেমান মালান ১০৮ বল খেলে করেন ৯১ রান। যেখানে ৮টি বাউন্ডারি এবং ১টি ছক্কার মার রয়েছে।  তাকে সেঞ্চুরি বঞ্চিত করেন জাসপ্রিত বুমরাহ।  সরাসরি বোল্ড করে দেন।

এর পর অধিনায়ক টেম্বা বাভুমা ৩৫ রানে আউট হলেও জয়ের ভিত গড়ে দিয়ে যান এই তিন ব্যাটার।

বাকি কাজটা সারেন এইডেন মারক্রাম ও রশি ফন ডার ডুসেন।  দুজনেই ৩৭ রানে অপরাজিত থেকে ৪৮.১ ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন দলকে। 

তথ্যসূত্র: ক্রিকইনফো।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন