কোহলির অধিনায়কত্ব ছাড়া নিয়ে শোয়েবের ‘বিস্ফোরক’ মন্তব্য
jugantor
কোহলির অধিনায়কত্ব ছাড়া নিয়ে শোয়েবের ‘বিস্ফোরক’ মন্তব্য

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৩:৪৭:২০  |  অনলাইন সংস্করণ


তিন ফরম্যাটের অধিনায়কত্ব হারিয়ে এখন পুরোপুরি নির্ভার বিরাট কোহলি।

যদিও কোহলির ভাষ্য এমন— তার অধিনায়কত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীর সঙ্গে তুমুল বিতর্ক চলছে কোহলির।

এবার কোহলির অধিনায়কত্ব না থাকার বিষয়ে ‘বিস্ফোরক’ মন্তব্য করলেন পাকিস্তানের সাবেক গতি তারকা শোয়েব আখতার।

কোহলিকে অধিনায়কত্ব ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে বলে মনে করছেন ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’।

এ মুহূর্তে লিজেন্ডস ক্রিকেট লিগে খেলতে ওমানের মাসকাটে রয়েছেন শোয়েব আখতার।

সেখানে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে শোয়েব আখতার বলেন, ‘কোহলি অধিনায়কত্ব ছাড়েনি, বরং তাকে অধিনায়কত্ব ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে। সময়টা আসলে তার জন্য ভালো যাচ্ছে না। কিন্তু তার নিজেকে প্রমাণ করতে হবে সে কোন ধাতু দিয়ে তৈরি। ও কী স্টিল দিয়ে তৈরি নাকি লোহা? কোহলি দারুণ ক্রিকেটার, মানুষ হিসেবেও চমৎকার। দুর্দান্ত ব্যাটার সে, ক্যারিয়ারের অনেক কিছু অর্জন করেছে। আমি বলছি, কোহলির বেশি চেষ্টা করার প্রয়োজন নেই, মাঠে নেমে শুধু খেলুক। এখন শুধু তার উচিত প্রয়োজন মাঠে নেমে স্বভাবসুলভ ক্রিকেট খেলে যাওয়া।’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত দলের ভরাডুবিকে পুঁজি করে কোহলির বিরুদ্ধে অনেকে তদবির করেন বলে দাবি শোয়েবের।

সাবেক স্পিডস্টার ভারতীয় গণমাধ্যমকে বলেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সময় দুবাইয়ে ছিলাম আমি। আমি বুঝেছিলাম কোহলি যদি বিশ্বকাপ না জিততে পারে তা হলে বেশ কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হবে সে। এবং সেটাই হয়েছে। ওর বিরুদ্ধে লবিবাজি করেন অনেকে। মানুষরা তার বিরুদ্ধে ছিল এবং এ কারণেই ওকে টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কত্ব ছাড়তে হয়।

টেস্টে অনেক দিন ধরে কোহলির ফর্ম না থাকার বিষয়ে শোয়েব বলেন, ‘মূলত বটম হ্যান্ড ক্রিকেট খেলে কোহলি। আমি মনে করি যখন ফর্ম থাকে না, তখন বেশি সমস্যায় পড়ে বটম হ্যান্ডের ক্রিকেটাররা। কোহলি অবশ্যই এটা থেকে বেরিয়ে আসবে। সব কিছু ভুলে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে তাকে।’

গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর খুদে সংস্করণের দলের অধিনায়কের পদ থেকে ইস্তফা দেন বিরাট কোহলি। অধিনায়ক করা হয় রোহিত শর্মাকে। এর পর দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে কোহলিকে সরিয়ে দেওয়া হয় ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব থেকেও। এ বিষয়ে বিসিসিআইয়ের যুক্তি ছিল— সাদা বলের ক্রিকেটে এক অধিনায়ক থাকাই শ্রেয়। অপরদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ হেরে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেন কোহলি নিজেই।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া, ওয়ান ইন্ডিয়া

কোহলির অধিনায়কত্ব ছাড়া নিয়ে শোয়েবের ‘বিস্ফোরক’ মন্তব্য

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৪৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ


তিন ফরম্যাটের অধিনায়কত্ব হারিয়ে এখন পুরোপুরি নির্ভার বিরাট কোহলি।

যদিও কোহলির ভাষ্য এমন— তার অধিনায়কত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলীর সঙ্গে তুমুল বিতর্ক চলছে কোহলির।

এবার কোহলির অধিনায়কত্ব না থাকার বিষয়ে ‘বিস্ফোরক’ মন্তব্য করলেন পাকিস্তানের সাবেক গতি তারকা শোয়েব আখতার।

কোহলিকে অধিনায়কত্ব ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে বলে মনে করছেন ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’।

এ মুহূর্তে লিজেন্ডস ক্রিকেট লিগে খেলতে ওমানের মাসকাটে রয়েছেন শোয়েব আখতার। 

সেখানে ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে শোয়েব আখতার বলেন, ‘কোহলি অধিনায়কত্ব ছাড়েনি, বরং তাকে অধিনায়কত্ব ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে। সময়টা আসলে তার জন্য ভালো যাচ্ছে না। কিন্তু তার নিজেকে প্রমাণ করতে হবে সে কোন ধাতু দিয়ে তৈরি। ও কী স্টিল দিয়ে তৈরি নাকি লোহা? কোহলি দারুণ ক্রিকেটার, মানুষ হিসেবেও চমৎকার। দুর্দান্ত ব্যাটার সে, ক্যারিয়ারের অনেক কিছু অর্জন করেছে। আমি বলছি, কোহলির বেশি চেষ্টা করার প্রয়োজন নেই, মাঠে নেমে শুধু খেলুক। এখন শুধু তার উচিত প্রয়োজন মাঠে নেমে স্বভাবসুলভ ক্রিকেট খেলে যাওয়া।’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত দলের ভরাডুবিকে পুঁজি করে কোহলির বিরুদ্ধে অনেকে তদবির করেন বলে দাবি শোয়েবের। 

সাবেক স্পিডস্টার ভারতীয় গণমাধ্যমকে বলেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সময় দুবাইয়ে ছিলাম আমি। আমি বুঝেছিলাম কোহলি যদি বিশ্বকাপ না জিততে পারে তা হলে বেশ কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হবে সে। এবং সেটাই হয়েছে। ওর বিরুদ্ধে লবিবাজি করেন অনেকে। মানুষরা তার বিরুদ্ধে ছিল এবং এ কারণেই ওকে টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়কত্ব ছাড়তে হয়। 

টেস্টে অনেক দিন ধরে কোহলির ফর্ম না থাকার বিষয়ে শোয়েব বলেন, ‘মূলত বটম হ্যান্ড ক্রিকেট খেলে কোহলি। আমি মনে করি যখন ফর্ম থাকে না, তখন বেশি সমস্যায় পড়ে বটম হ্যান্ডের ক্রিকেটাররা। কোহলি অবশ্যই এটা থেকে বেরিয়ে আসবে। সব কিছু ভুলে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে তাকে।’

গত বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর খুদে সংস্করণের দলের অধিনায়কের পদ থেকে ইস্তফা দেন বিরাট কোহলি।  অধিনায়ক করা হয় রোহিত শর্মাকে। এর পর দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে কোহলিকে সরিয়ে দেওয়া হয় ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব থেকেও। এ বিষয়ে বিসিসিআইয়ের যুক্তি ছিল— সাদা বলের ক্রিকেটে এক অধিনায়ক থাকাই শ্রেয়। অপরদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ হেরে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেন কোহলি নিজেই।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া, ওয়ান ইন্ডিয়া
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন