হোয়াইটওয়াশ এড়াতে ভারতের প্রয়োজন ২৮৮
jugantor
হোয়াইটওয়াশ এড়াতে ভারতের প্রয়োজন ২৮৮

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৯:০৩:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

জয় দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শুরু করার পর থেকেই বিপদে ভারতীয় ক্রিকেট দল। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম খেলায় জিতে যাওয়া ভারত সিরিজ হারে ২-১ ব্যবধানে।

টেস্ট সিরিজ হারের পরই ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ান বিরাট কোহলি। ২০১৪ সালে মহেন্দ্র সিং ধোনি টেস্ট দলের নেতৃত্ব ছাড়ার পর কোহলিকে অধিনায়ক করা হয়। লম্বা সময় ধরে ভারতকে নেতৃত্ব দেওয়া কোহলি এ সফর থেকেই শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলছেন।

লোকেশ রাহুলের নেতৃত্বে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম খেলায় ২৯৭ রান তাড়া করে ভারত হারে ৩১ রানে। সিরিজ বাঁচাতে নেমে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ২৮৭/৬ রান করেও ভারত হারে ৭ উইকেটে।

রোববার নিউল্যান্ডসের কেপটাউনে হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর ম্যাচে টস জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। শুরুতেই স্বাগতিক দলকে চাপের মধ্যে রাখতে সক্ষম হয় লোকেশ রাহুলের নেতৃত্বাধীন দলটি।

কিন্তু কুইন্টন ডি ককের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে খেলায় ফেরা দক্ষিণ আফ্রিকা পৌঁছে যায় বড় স্কোরের পথে। ৩৪ রানে ২ উইকেট পতনের পর এইডেন মার্কওরামকে সঙ্গে নিয়ে ৩৬ রানের জুটি গড়েন ডি কক।

এরপর চতুর্থ উইকেটে রিশি ভেন দার ডুসেনকে সঙ্গে নিয়ে ১৪৩ বলে ডি কক গড়েন ১৪৪ রানের জুটি। এই জুটিতেই ক্যারিয়ারের ১২৭তম ওয়ানডেতে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে চতুর্থ সর্বোচ্চ ১৭টি সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ডি কক।

ইনিংস ওপেন করতে নেমে ৩৫.৪ ওভারে দলীয় ২১৪ রানে ২৩০ বলে ১২টি চার ও ২টি ছক্কায় ১২৪ রান করে চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরেন ডি কক।

এরপর মাত্র ১৪ রানের ব্যবধানে সাজঘরে ফেরেন ডুসেন ও অ্যান্ডিল ফেহলাকওয়াইও। রিশি ভেন দার ডুসেন ৫৯ বলে চারটি বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৫২ রান করলেও ফেহলাকওয়াইও ফেরেন মাত্র ৪ রানে।

ছয় নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংস শেষ হওয়ার তিন বল আগে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ফেরেন ডেভিড মিলার। তার ৩৮ বলের অপরাজিত ৩৯ রানের ইনিংসে ভর করে শেষ বলের আগে অলআউট হওয়া দক্ষিণ আফ্রিকা করে ২৮৭ রান। ভারতের হয়ে তিন উইকেট নেন প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা। আর দুটি করে উইকেট নেন জসপ্রিত বুমরাহ ও দীপক চাহার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

দক্ষিণ আফ্রিকা: ৪৯.৫ ওভারে ২৮৭/১০ রান (ডি কক ১২৪, ডুসেন ৫২, মিলার ৩৯, ডুয়াইন পিটোরিয়াস ২০, এইডেন মার্কওরাম ১৫; প্রসিদ্ধ ৩/৫৯)।

হোয়াইটওয়াশ এড়াতে ভারতের প্রয়োজন ২৮৮

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০৭:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জয় দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শুরু করার পর থেকেই বিপদে ভারতীয় ক্রিকেট দল। তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম খেলায় জিতে যাওয়া ভারত সিরিজ হারে ২-১ ব্যবধানে। 

টেস্ট সিরিজ হারের পরই ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ান বিরাট কোহলি। ২০১৪ সালে মহেন্দ্র সিং ধোনি টেস্ট দলের নেতৃত্ব ছাড়ার পর কোহলিকে অধিনায়ক করা হয়। লম্বা সময় ধরে ভারতকে নেতৃত্ব দেওয়া কোহলি এ সফর থেকেই শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলছেন।  

লোকেশ রাহুলের নেতৃত্বে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম খেলায় ২৯৭ রান তাড়া করে ভারত হারে ৩১ রানে। সিরিজ বাঁচাতে নেমে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ২৮৭/৬ রান করেও ভারত হারে ৭ উইকেটে। 

রোববার নিউল্যান্ডসের কেপটাউনে হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর ম্যাচে টস জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। শুরুতেই স্বাগতিক দলকে চাপের মধ্যে রাখতে সক্ষম হয় লোকেশ রাহুলের নেতৃত্বাধীন দলটি। 

কিন্তু কুইন্টন ডি ককের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে খেলায় ফেরা দক্ষিণ আফ্রিকা পৌঁছে যায় বড় স্কোরের পথে। ৩৪ রানে ২ উইকেট পতনের পর এইডেন মার্কওরামকে সঙ্গে নিয়ে ৩৬ রানের জুটি গড়েন ডি কক। 

এরপর চতুর্থ উইকেটে রিশি ভেন দার ডুসেনকে সঙ্গে নিয়ে ১৪৩ বলে ডি কক গড়েন ১৪৪ রানের জুটি। এই জুটিতেই ক্যারিয়ারের ১২৭তম ওয়ানডেতে দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে চতুর্থ সর্বোচ্চ ১৭টি সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন ডি কক। 

ইনিংস ওপেন করতে নেমে ৩৫.৪ ওভারে দলীয় ২১৪ রানে ২৩০ বলে ১২টি চার ও ২টি ছক্কায় ১২৪ রান করে চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফেরেন ডি কক।

এরপর মাত্র ১৪ রানের ব্যবধানে সাজঘরে ফেরেন ডুসেন ও অ্যান্ডিল ফেহলাকওয়াইও। রিশি ভেন দার ডুসেন ৫৯ বলে চারটি বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৫২ রান করলেও ফেহলাকওয়াইও ফেরেন মাত্র ৪ রানে। 

ছয় নম্বর পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংস শেষ হওয়ার তিন বল আগে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ফেরেন ডেভিড মিলার। তার ৩৮ বলের অপরাজিত ৩৯ রানের ইনিংসে ভর করে শেষ বলের আগে অলআউট হওয়া দক্ষিণ  আফ্রিকা করে ২৮৭ রান। ভারতের হয়ে তিন উইকেট নেন প্রসিদ্ধ কৃষ্ণা। আর দুটি করে উইকেট নেন জসপ্রিত বুমরাহ ও দীপক চাহার।
 
সংক্ষিপ্ত স্কোর

দক্ষিণ আফ্রিকা: ৪৯.৫ ওভারে ২৮৭/১০ রান (ডি কক ১২৪, ডুসেন ৫২, মিলার ৩৯, ডুয়াইন পিটোরিয়াস ২০, এইডেন মার্কওরাম ১৫; প্রসিদ্ধ ৩/৫৯)।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন