টি-টোয়েন্টি থেকে ৬ মাসের বিরতি নিলেন তামিম
jugantor
টি-টোয়েন্টি থেকে ৬ মাসের বিরতি নিলেন তামিম

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:৩৭:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাট টি-টোয়েন্টি থেকে ৬ মাসের জন্য বিরতি নিলেন তামিম ইকবাল।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) নিজের ফ্র্যাঞ্চাইজি ঢাকার হয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসে এমনটি নিজেই জানান দেশসেরা এই ওপেনার।

ছয় মাস পর তিনি যদি ফিট থাকেন এবং টিম ম্যানেজেমেন্ট যদি প্রয়োজন মনে করে তাহলে জাতীয় দলের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে ফেরার কথা ভাববেন তামিম। তবে এ সময়ে তিনি টেস্ট ও ওয়ানডে খেলা চালিয়ে যাবেন।

তামিম জাতীয় দলের হয়ে সবশেষ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন ২০২০ সালের মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

গত অক্টোবর-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল ঘোষণার আগেই তরুণদের সুযোগ দেওয়ার কথা বলে নিজেকে সরিয়ে নেন তামিম।

তবে ক্রিকেট বিশ্লেষকদের অনেকেই বলছেন, বিশ্বকাপের আগে চোটের কারণে দলের বাইরে থাকায় তামিম বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় ছিলেন। যে কারণে দল ঘোষণার আগেই বাদ পড়ার শঙ্কায় নিজ থেকেই সরে দাঁড়ান।

বিশ্বকাপ শেষে তাকে দলে ফেরাতে অনেক চেষ্টা করে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বোর্ডের একাধিক পরিচালককে সঙ্গে নিয়ে সম্প্রতি তামিমের সঙ্গে মিটিং করেন বিসিবি বস নাজমুল হাসান পাপন।

সেই বৈঠক শেষে বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, সোমবার তামিমের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে। মঙ্গলবারও বিসিবি সভাপতিসহ আমাদের সঙ্গে তামিমের সভা হয়েছে। তামিম তার পরিকল্পনা জানিয়েছে। সেটা তার মুখ থেকেই শুনবেন।

জাতীয় দলের হয়ে তামিম ৭৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। ২৪.০৮ গড় ও ১১৬.৯৬ স্ট্রাইক রেট রেখে করেছেন ১৭৫৮ রান। ২০১৪ বিশ্বকাপে ওমানের বিপক্ষে দেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরি করেন এই ওপেনার।

টি-টোয়েন্টি থেকে ৬ মাসের বিরতি নিলেন তামিম

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৭ জানুয়ারি ২০২২, ০৫:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাট টি-টোয়েন্টি থেকে ৬ মাসের জন্য বিরতি নিলেন তামিম ইকবাল।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) নিজের ফ্র্যাঞ্চাইজি ঢাকার হয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসে এমনটি নিজেই জানান দেশসেরা এই ওপেনার। 

ছয় মাস পর তিনি যদি ফিট থাকেন এবং টিম ম্যানেজেমেন্ট যদি প্রয়োজন মনে করে তাহলে জাতীয় দলের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে ফেরার কথা ভাববেন তামিম। তবে এ সময়ে তিনি টেস্ট ও ওয়ানডে খেলা চালিয়ে যাবেন। 

তামিম জাতীয় দলের হয়ে সবশেষ টি-টোয়েন্টি খেলেছেন ২০২০ সালের মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।

গত অক্টোবর-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল ঘোষণার আগেই তরুণদের সুযোগ দেওয়ার কথা বলে নিজেকে সরিয়ে নেন তামিম।

তবে ক্রিকেট বিশ্লেষকদের অনেকেই বলছেন, বিশ্বকাপের আগে চোটের কারণে দলের বাইরে থাকায় তামিম বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় ছিলেন। যে কারণে দল ঘোষণার আগেই বাদ পড়ার শঙ্কায় নিজ থেকেই সরে দাঁড়ান। 

বিশ্বকাপ শেষে তাকে দলে ফেরাতে অনেক চেষ্টা করে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বোর্ডের একাধিক পরিচালককে সঙ্গে নিয়ে সম্প্রতি তামিমের সঙ্গে মিটিং করেন বিসিবি বস নাজমুল হাসান পাপন।

সেই বৈঠক শেষে বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, সোমবার তামিমের সঙ্গে দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে। মঙ্গলবারও বিসিবি সভাপতিসহ আমাদের সঙ্গে তামিমের সভা হয়েছে। তামিম তার পরিকল্পনা জানিয়েছে। সেটা তার মুখ থেকেই শুনবেন।

জাতীয় দলের হয়ে তামিম ৭৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। ২৪.০৮ গড় ও ১১৬.৯৬ স্ট্রাইক রেট রেখে করেছেন ১৭৫৮ রান। ২০১৪ বিশ্বকাপে ওমানের বিপক্ষে দেশের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরি করেন এই ওপেনার।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন