১৯৯ রানে আউট হয়ে যাদের সঙ্গী হলেন ম্যাথিউস
jugantor
১৯৯ রানে আউট হয়ে যাদের সঙ্গী হলেন ম্যাথিউস

  স্পোর্টস ডেস্ক  

১৬ মে ২০২২, ১৮:২৩:৫৯  |  অনলাইন সংস্করণ

দুর্ভাগ্য অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের। শ্রীলংকার সাবেক এই অধিনায়ক ক্যারিয়ারের একেবারেই শেষপর্যায়ে এসে বাংলাদেশে প্রথম সেঞ্চুরি করেছেন।

আর সেই সেঞ্চুরিকে তিনি নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন ডাবলে। কিন্তু ভাগ্য তার এতটাই খারাপ যে মাত্র ১ রানের জন্য হোঁচট খান। ১ রানের জন্য ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরির দেখা পাননি ম্যাথিউস।

এ হাতাশা শুধু ম্যাথিউসের একার নয়, অতীতেও এমন অনেক রথি-মহারথি দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেও সেঞ্চুরি-ডাবল সেঞ্চুরি এমনকি ট্রিপল সেঞ্চুরিও মিস করেছেন। কারণ নার্ভাস নাইনটি বলে কথা!

১ রানের জন্য টেস্ট, ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরির দেখা পাননি এমন ভূরি ভূরি নজির রয়েছে। টেস্টে ৮৬ বার ৯৯ রানে আউটের রেকর্ড রয়েছে। ১৯৯ রানে আউটের রেকর্ড রয়েছে ১২টি। তবে নিউজিল্যান্ডের কিংবদিন্ত মার্টিন ক্রো-ই একমাত্র ব্যাটসম্যান, যিনি ২৯৯ রানে আউট হয়েছেন।

টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে ১৯৮৪ সালে ভারতের বিপক্ষে ফয়সালাবাদ টেস্টে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১৯৯ রানে আউট হন পাকিস্তানের তারকা ব্যাটসম্যান মুদাসসর নজর। তিনি ৫৫২ মিনিট উইকেটে থেকে ৪০৮ বল মোকাবেলা করে ২৪টি চারের সাহায্যে ১৯৯ রান করে আউট হন।

তার ঠিক দুই বছর পর ১৯৮৬ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে কানপুর টেস্টে ১৯৯ রানে আউট হন ভারতের সাবেক অধিনায়ক আজহার উদ্দিন।

১৯৯১ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে ঘরের মাঠ ওয়েলিংটনে ২৯৯ রানে আউট হন নিউজিল্যান্ডের সাবেক তারকা ব্যাটসম্যান মার্টিন ক্রো। তিনি ৬১০ মিনিট উইকেটে থেকে ৫২৩ বল মোকাবেলা করে ২৯টি বাউন্ডারি আর ৩ ছক্কায় ২৯৯ রান করে আউট হন।

১৯৯৭ সালের জুলাই মাসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লিডস টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্যাটসম্যান ম্যাথিউ এলিয়ট ১৯৯ রানে আউট হন।

একই বছরের আগস্ট মাসে ভারতের বিপক্ষে কলম্বো টেস্টে ১৯৯ রানে আউট হন শ্রীলংকার তারকা ব্যাটসম্যান সনাথ জয়সুরিয়া।

১৯৯৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বার্বাডোজের কিংসটন ওভালে ১৯৯ রানে আউট হন অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান স্টিভ ওয়াহ।

২০০৬ সালে ভারতের বিপক্ষে ঘরের মাঠ লাহোরে ১৯৯ রানে আউট হন পাকিস্তানের টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান করা ইউনিস খান।

২০০৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে লর্ডসে ১৯৯ রানে আউট হন ইংল্যান্ডের তারকা ব্যাটসম্যান ইয়ান বেল।

২০১৫ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে কিংসটনে ১৯৯ রানে আউট হন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। ঠিক পরের বছর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চেন্নাইয়ে ১৯৯ রানে আউট হন ভারতীয় তারকা ওপেনার লোকেশ রাহুল।

২০১৭ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে পচেফস্ট্রুমে ১৯৯ রানে আউট হন দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ওপেনার ডিন এলগার। ২০২০ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে সেঞ্চুরিয়নে ১৯৯ রানে আউট হন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি।

সবশেষ সোমবার চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ১৯৯ রানে আউটের নজির গড়েন শ্রীলংকার সাবেক অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস।

১৯৯ রানে আউট হয়ে যাদের সঙ্গী হলেন ম্যাথিউস

 স্পোর্টস ডেস্ক 
১৬ মে ২০২২, ০৬:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দুর্ভাগ্য অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের। শ্রীলংকার সাবেক এই অধিনায়ক ক্যারিয়ারের একেবারেই শেষপর্যায়ে এসে বাংলাদেশে প্রথম সেঞ্চুরি করেছেন। 

আর সেই সেঞ্চুরিকে তিনি নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন ডাবলে। কিন্তু ভাগ্য তার এতটাই খারাপ যে মাত্র ১ রানের জন্য হোঁচট খান। ১ রানের জন্য ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরির দেখা পাননি ম্যাথিউস। 

এ হাতাশা শুধু ম্যাথিউসের একার নয়, অতীতেও এমন অনেক রথি-মহারথি দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেও সেঞ্চুরি-ডাবল সেঞ্চুরি এমনকি ট্রিপল সেঞ্চুরিও মিস করেছেন।  কারণ নার্ভাস নাইনটি বলে কথা!

১ রানের জন্য টেস্ট, ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরির দেখা পাননি এমন ভূরি ভূরি নজির রয়েছে। টেস্টে ৮৬ বার ৯৯ রানে আউটের রেকর্ড রয়েছে। ১৯৯ রানে আউটের রেকর্ড রয়েছে ১২টি। তবে নিউজিল্যান্ডের কিংবদিন্ত মার্টিন ক্রো-ই একমাত্র ব্যাটসম্যান, যিনি ২৯৯ রানে আউট হয়েছেন। 
  
টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে ১৯৮৪ সালে ভারতের বিপক্ষে ফয়সালাবাদ টেস্টে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ১৯৯ রানে আউট হন পাকিস্তানের তারকা ব্যাটসম্যান মুদাসসর নজর। তিনি ৫৫২ মিনিট উইকেটে থেকে ৪০৮ বল মোকাবেলা করে ২৪টি চারের সাহায্যে ১৯৯ রান করে আউট হন। 

তার ঠিক দুই বছর পর ১৯৮৬ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে কানপুর টেস্টে ১৯৯ রানে আউট হন ভারতের সাবেক অধিনায়ক আজহার উদ্দিন।  

১৯৯১ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে ঘরের মাঠ ওয়েলিংটনে ২৯৯ রানে আউট হন নিউজিল্যান্ডের সাবেক তারকা ব্যাটসম্যান মার্টিন ক্রো। তিনি ৬১০ মিনিট উইকেটে থেকে ৫২৩ বল মোকাবেলা করে ২৯টি বাউন্ডারি আর ৩ ছক্কায় ২৯৯ রান করে আউট হন। 

১৯৯৭ সালের জুলাই মাসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লিডস টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্যাটসম্যান ম্যাথিউ এলিয়ট ১৯৯ রানে আউট হন। 

একই বছরের আগস্ট মাসে ভারতের বিপক্ষে কলম্বো টেস্টে ১৯৯ রানে আউট হন শ্রীলংকার তারকা ব্যাটসম্যান সনাথ জয়সুরিয়া।  

১৯৯৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বার্বাডোজের কিংসটন ওভালে ১৯৯ রানে আউট হন অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান স্টিভ ওয়াহ। 

২০০৬ সালে ভারতের বিপক্ষে ঘরের মাঠ লাহোরে ১৯৯ রানে আউট হন পাকিস্তানের টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান করা ইউনিস খান। 

২০০৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে লর্ডসে ১৯৯ রানে আউট হন ইংল্যান্ডের তারকা ব্যাটসম্যান ইয়ান বেল। 

২০১৫ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে কিংসটনে ১৯৯ রানে আউট হন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। ঠিক পরের বছর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চেন্নাইয়ে ১৯৯ রানে আউট হন ভারতীয় তারকা ওপেনার লোকেশ রাহুল। 

২০১৭ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে পচেফস্ট্রুমে ১৯৯ রানে আউট হন দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ওপেনার ডিন এলগার।  ২০২০ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে সেঞ্চুরিয়নে ১৯৯ রানে আউট হন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। 

সবশেষ সোমবার চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনে ১৯৯ রানে আউটের নজির গড়েন শ্রীলংকার সাবেক অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস।   

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ-শ্রীলংকা টেস্ট সিরিজ, ঢাকা ২০২২