‘ফুটবল খেলে মুক্তির স্বাদ পেলাম’

  স্পোর্টস ডেস্ক ০৪ জুন ২০১৮, ২১:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

জেলে ফুটবল

রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলছে পেরু। যেখানে গ্রুপের বাকি তিন দল ডেনমার্ক, অস্ট্রেলিয়া ও ফ্রান্স। গোটা দেশ যখন উৎসবের মেজাজে, তখন পেরুতে বাদ গেলেন না জেলের কয়েদিরাও। তাদের জন্যও আয়োজিত হলো স্পেশাল বিশ্বকাপ। সেখানে রাশিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন পেরু।

রাশিয়া বিশ্বকাপের ঠিক আগে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনার মতো পেরুতেও অপরাধীর সংখ্যা প্রচুর। বিভিন্ন অপরাধের কারণে জেলে কারাবরণ করেছেন অনেকে। কারাবন্দি এই তাদের জন্য কী করা যেতে পারে, তা পেরু সরকার অনেক দিন ধরেই চিন্তাভাবনা করছিল।

জেলের কয়েদিদের একটু বিনোদন দেয়ার জন্য স্পেশাল বিশ্বকাপের আয়োজন করে পেরুর সরকার। টুর্নামেন্টটা এমনভাবে আয়োজন করা হয়েছিল, যেটা সত্যিকারের বিশ্বকাপের চেয়ে কম না।

এমন আয়োজনে কিছু সময়ের জন্য হলেও মন খুলে আনন্দ-উল্লাসের সুযোগ পেয়েছেন কারাবন্দিরা। বিশ্বকাপের মতো সেখানে গ্রুপ, কোয়ার্টার ফাইনাল, সেমিফাইনালের ব্যবস্থা ছিল।

প্রাথমিক পর্বের সব ম্যাচ হলো জেলের সামনে ছোট মাঠে। তবে ফাইনাল সত্যিকারের স্টেডিয়ামে। লিমার মনুমেন্টাল স্টেডিয়ামে। যার দর্শকাসন ৬০ হাজার।

ফাইনালে মুখোমুখি লুরিগাঞ্চোর জেলের কয়েদিরা পেরুর জার্সিতে। চিমবোট জেলের কয়েদিরা রাশিয়া নামে। ম্যাচের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সবকিছুই পেশাদারি মোড়কে সাজানো।

৬০ হাজারের স্টেডিয়ামে মেরেকেটে ৩০ থেকে ৩৫ জন দর্শক। তারা কয়েদিদের আত্মীয়-বন্ধুরা। ৯০ মিনিটের ম্যাচ শেষ ২-২ গোলে। তারপর টাইব্রেকার। যেখানে পেরু ৪-২ গোলে হারাল রাশিয়াকে।

বিজয়ী দলের টমাস ম্যানুয়েল আগুইরে বলছিলেন, বিশ্বাস করুন, কয়েক মুহূর্তের জন্য মনে হয়েছিল সত্যিকারের বিশ্বকাপ খেলছি। জানতাম আবার জেলে ফিরতে হবে। কিন্তু ফুটবল খেলে মুক্তির স্বাদ পেলাম। সেটাই বা কম কী? বুক ভরে টাটকা বাতাস তো পেলাম।

কয়েদিদের এই বিশ্বকাপে ৬৯টি জেলের কয়েদি অংশ নেয়। এবং এক জেল থেকে অন্য জেলে খেলতে নিয়ে যাওয়ার সময় প্রত্যেকের হাত শিকল বেঁধে রাখা হয়েছিল।

পেরুর কারাগারের ডিরেকটর পদে থাকা কার্লোস ভ্যাসকুয়েজ জানিয়েছেন, ওরা তো এই টুর্নামেন্ট চলাকালে নানা সমস্যা করতে পারত। করেনি। আসলে ফুটবল ওদের বেঁধে রেখেছিল।

ঘটনাপ্রবাহ : বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮

 

 

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.