আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিলেন বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মরগান
jugantor
আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিলেন বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মরগান

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৮ জুন ২০২২, ২০:০৯:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্রিকেটের জনক হিসেবেই খ্যাত ইংল্যান্ড। ক্রিকেটের জনক হওয়া সত্ত্বেও বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেতে তাদের অপেক্ষা করতে হয় লম্বা সময়।

১৯৭৫ সালে বিশ্বকাপ শুরুর পর সবশেষ ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয় ইংল্যান্ড। ৪৪ বছরের বিশ্বকাপ জয়ের খরা কাটাতে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন অধিনায়ক ইয়ন মরগান।

আর সেই মরগানই দল থেকে বাদ পড়ারা শঙ্কায় মঙ্গলবার অবসরের ঘোষণা দেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেও আরও কিছু দিনঘরোয়া ও ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলে যাবেনতিনি।

নেতৃত্ব ছাড়ার পর মরগান বলেন, অধিনায়কের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়া সহজ সিদ্ধান্ত ছিল না। তবে আমি বিশ্বাস করি এখনই সঠিক সময় নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়ার।

৩৫ বছর বয়সী মরগান ২০১২ সালে ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি এবং ২০১৪ সালে ওয়ানডে দলের অধিনায়কের দায়িত্ব নিয়েছিলেন।

সম্প্রতি ইংল্যান্ডের টেস্ট দলের নেতৃত্ব থেকে জো রুটকে সরিয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয় জস বাটলারকে। তার পরমর্শে ইংল্যান্ডের কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয় বাটলারের আইপিএল কোচ নিউজিল্যান্ডের সাবেক তারকা ক্রিকেটার ব্রান্ডন ম্যাককালামকে।

বাটলার-ম্যাককালামের যুগে জো রুটের বিদায়ে শঙ্কিত ইয়ন মরগান ইংল্যান্ডের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের নেতৃত্ব থেকে স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ালেন।

আগামী ৭ জুলাই ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে অংশ নেবে ইংল্যান্ড। অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে যাবে ইংলিশরা।

আসন্ন ভারত সিরিজে নতুন অধিনায়ক ঘোষণা করবে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।

প্রসঙ্গত ইয়ন মরগান ইংল্যান্ডের ২০১০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন। তিনি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে যথাক্রমে ৬ হাজার ৯৫৭ এবং ২ হাজার ৪৫৮ রান করে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন।

এক বিবৃতিতে মরগান বলেন, নিঃসন্দেহে আমি আমার ক্যারিয়ারে সবচেয়ে আনন্দদায়ক এবং ফলপ্রসূ অধ্যায় পার করেছি। আমি বিশ্বাস করি এখনই নেতৃত্ব ছাড়ার সঠিক সময়। ইংল্যান্ডের কথা চিন্তা করেই আমি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমি একজন খেলোয়াড় এবং অধিনায়ক হিসেবে যা অর্জন করেছি তার জন্য আমি অত্যন্ত গর্বিত। ইংল্যান্ডের দুটি বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য হতে পারা আমার জন্য খুবই ভাগ্যের ব্যাপার ছিল। আমি বিশ্বাস করি ইংল্যান্ডের ওয়ানডে ও টি-টেয়োন্টি দলের ভবিষ্যৎ আগের চেয়ে অনেক উজ্জ্বল। আমাদের দল আগের চেয়ে অনেক বেশি অভিজ্ঞ আরও বেশি গভীরতা রয়েছে। আমি দেখার অপেক্ষায় আছি ইংল্যান্ড অনন্য উচ্চতায় যাবে।

মরগানের এমন সিদ্ধান্তের পর ইংল্যান্ড পুরুষ ক্রিকেট দলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রব কী বলেছেন, আমি ইয়ন মরগানকে ধন্যবাদ জানাতে চাই খেলায় তার অসামান্য অবদানের জন্য। তার অধিনায়কত্বে আমরা ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ পেয়েছি। ইয়ন মরগান আমার দেখা সেরা অধিনায়ক।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিলেন বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মরগান

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৮ জুন ২০২২, ০৮:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্রিকেটের জনক হিসেবেই খ্যাত ইংল্যান্ড। ক্রিকেটের জনক হওয়া সত্ত্বেও বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেতে তাদের অপেক্ষা করতে হয় লম্বা সময়।

১৯৭৫ সালে বিশ্বকাপ শুরুর পর সবশেষ ২০১৯ সালের বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হয় ইংল্যান্ড। ৪৪ বছরের বিশ্বকাপ জয়ের খরা কাটাতে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন অধিনায়ক ইয়ন মরগান।

আর সেই মরগানই দল থেকে বাদ পড়ারা শঙ্কায় মঙ্গলবার অবসরের ঘোষণা দেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেও আরও কিছু দিন ঘরোয়া ও ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলে যাবেন তিনি।

নেতৃত্ব ছাড়ার পর মরগান বলেন, অধিনায়কের দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়া সহজ সিদ্ধান্ত ছিল না। তবে আমি বিশ্বাস করি এখনই সঠিক সময় নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়ার। 

৩৫ বছর বয়সী মরগান ২০১২ সালে ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি এবং ২০১৪ সালে ওয়ানডে দলের অধিনায়কের দায়িত্ব নিয়েছিলেন। 

সম্প্রতি ইংল্যান্ডের টেস্ট দলের নেতৃত্ব থেকে জো রুটকে সরিয়ে দায়িত্ব দেওয়া হয় জস বাটলারকে। তার পরমর্শে ইংল্যান্ডের কোচ হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয় বাটলারের আইপিএল কোচ নিউজিল্যান্ডের সাবেক তারকা ক্রিকেটার ব্রান্ডন ম্যাককালামকে।  

বাটলার-ম্যাককালামের যুগে জো রুটের বিদায়ে শঙ্কিত ইয়ন মরগান ইংল্যান্ডের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের নেতৃত্ব থেকে স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ালেন। 

আগামী ৭ জুলাই ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে অংশ নেবে ইংল্যান্ড। অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে যাবে ইংলিশরা। 

আসন্ন ভারত সিরিজে নতুন অধিনায়ক ঘোষণা করবে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। 

প্রসঙ্গত ইয়ন মরগান ইংল্যান্ডের ২০১০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন। তিনি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে যথাক্রমে ৬ হাজার ৯৫৭ এবং ২ হাজার ৪৫৮ রান করে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন।

এক বিবৃতিতে মরগান বলেন, নিঃসন্দেহে আমি আমার ক্যারিয়ারে সবচেয়ে আনন্দদায়ক এবং ফলপ্রসূ অধ্যায় পার করেছি। আমি বিশ্বাস করি এখনই নেতৃত্ব ছাড়ার সঠিক সময়। ইংল্যান্ডের কথা চিন্তা করেই আমি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। 

তিনি আরও বলেন, আমি একজন খেলোয়াড় এবং অধিনায়ক হিসেবে যা অর্জন করেছি তার জন্য আমি অত্যন্ত গর্বিত। ইংল্যান্ডের দুটি বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য হতে পারা আমার জন্য খুবই ভাগ্যের ব্যাপার ছিল।  আমি বিশ্বাস করি ইংল্যান্ডের ওয়ানডে ও টি-টেয়োন্টি দলের ভবিষ্যৎ আগের চেয়ে অনেক উজ্জ্বল। আমাদের দল আগের চেয়ে অনেক বেশি অভিজ্ঞ আরও বেশি গভীরতা রয়েছে। আমি দেখার অপেক্ষায় আছি ইংল্যান্ড অনন্য উচ্চতায় যাবে। 

মরগানের এমন সিদ্ধান্তের পর ইংল্যান্ড পুরুষ ক্রিকেট দলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রব কী বলেছেন, আমি ইয়ন মরগানকে ধন্যবাদ জানাতে চাই খেলায় তার অসামান্য অবদানের জন্য। তার অধিনায়কত্বে আমরা ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ পেয়েছি। ইয়ন মরগান আমার দেখা সেরা অধিনায়ক।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন