ডুবন্ত জাহাজকে তীরে ভেড়াতে না পেরে যা বললেন ক্যাপ্টেন
jugantor
ডুবন্ত জাহাজকে তীরে ভেড়াতে না পেরে যা বললেন ক্যাপ্টেন

  স্পোর্টস ডেস্ক  

০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২১:৩০:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্যাচে নিতে গিয়ে বুড়ো আঙুলে চোট পান রোহিত। অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে যেতে হয় হাসপাতালে। সেখান থেকে ফিরে দেখেন দল ডুবে যাচ্ছে।

নিজের হাতের দিকে না তাকিয়ে চেয়েছিলেন ডুবন্ত অবস্থা থেকে দলকে তীরে ভেড়াতে। ২৮ বলে ৫১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলওশেষ পর্যন্ত সফল হতে পারেননি। দল ৫ রানে হারলেও ভারতীয় সমর্থকদের মন জয় করে নিয়েছেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা।

বুধবার মিরপুরে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে ২৭২ রানের টার্গেট তাড়ায় ভারত হারে মাত্র ৫ রানে। মোস্তাফিজ শেষ বলে ইয়র্কার দিলে রোহিত শর্মা ছক্কা হাঁকাতে ব্যর্থ হন। তার দল ৫ রানে হেরে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হারে।

দলের হারের পর ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা বলেন, আমি মনে করি হারলেও আমাদের জন্য অনেক ইতিবাচক এবং নেতিবাচক দিক রয়েছে। ৬৯ রানে ৬ উইকেট হারানোর পরও মিরাজ-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে বাংলাদেশ ২৭১ রান করে। এ জায়গায় আমাদের বোলাররা দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করতে পারেনি। প্রথম ম্যাচেও একই সমস্যা হয়েছে। আমাদের শিখতে হবে কিভাবে পার্টনারশিপ ভাঙতে হয়।

তিনি আরও বলেন, ওয়ানডে ক্রিকেটে আপনি যখন ৫০-৭০ রানের পার্টনারশিপ পাবেন, তখন আপনার উচিত হবে সেটাকে ১০০-১২০ রানে নিয়ে যাওয়া। এসব বিষয় নিয়ে আমাদের আরও কাজ করতে হবে। পুরোপুরি ফিট না থাকলে এবং যাদের সামর্থ্য নেই তাদের ভারতীয় দলে থাকার কোনো সুযোগ নেই।

ডুবন্ত জাহাজকে তীরে ভেড়াতে না পেরে যা বললেন ক্যাপ্টেন

 স্পোর্টস ডেস্ক 
০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ক্যাচে নিতে গিয়ে বুড়ো আঙুলে চোট পান রোহিত। অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে যেতে হয় হাসপাতালে। সেখান থেকে ফিরে দেখেন দল ডুবে যাচ্ছে। 

নিজের হাতের দিকে না তাকিয়ে চেয়েছিলেন ডুবন্ত অবস্থা থেকে দলকে তীরে ভেড়াতে। ২৮ বলে ৫১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলও শেষ পর্যন্ত সফল হতে পারেননি। দল ৫ রানে হারলেও ভারতীয় সমর্থকদের মন জয় করে নিয়েছেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা। 

বুধবার মিরপুরে দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে ২৭২ রানের টার্গেট তাড়ায় ভারত হারে মাত্র ৫ রানে। মোস্তাফিজ শেষ বলে ইয়র্কার দিলে রোহিত শর্মা ছক্কা হাঁকাতে ব্যর্থ হন।  তার দল ৫ রানে হেরে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ হারে। 

দলের হারের পর ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা বলেন, আমি মনে করি হারলেও আমাদের জন্য অনেক ইতিবাচক এবং নেতিবাচক দিক রয়েছে। ৬৯ রানে ৬ উইকেট হারানোর পরও মিরাজ-মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে বাংলাদেশ ২৭১ রান করে। এ জায়গায় আমাদের বোলাররা দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করতে পারেনি। প্রথম ম্যাচেও একই সমস্যা হয়েছে। আমাদের শিখতে হবে কিভাবে পার্টনারশিপ ভাঙতে হয়। 

তিনি আরও বলেন, ওয়ানডে ক্রিকেটে আপনি যখন ৫০-৭০ রানের পার্টনারশিপ পাবেন, তখন আপনার উচিত হবে সেটাকে ১০০-১২০ রানে নিয়ে যাওয়া। এসব বিষয় নিয়ে আমাদের আরও কাজ করতে হবে। পুরোপুরি ফিট না থাকলে এবং যাদের সামর্থ্য নেই তাদের ভারতীয় দলে থাকার কোনো সুযোগ নেই।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ-ভারত সিরিজ ২০২২