নাইজেরিয়াকে হারানো ম্যাচে আর্জেন্টিনার ৫ কীর্তি

প্রকাশ : ২৮ জুন ২০১৮, ০৪:৩৪ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর ডেস্ক   

সেন্ট পিটার্সবার্গে মঙ্গলবার রাতে নাটকীয় জয়ে নকআউটে উঠেছে আর্জেন্টিনা।  ক্রোয়েশিয়ার কাছে হেরে যাদের লজ্জা পেতে হয়েছিল।  ডি-গ্রুপের শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়াকে হারিয়ে সেই হতাশা কাটিয়ে উঠলেন লিওনেল মেসিরা। বেশ পাঁচটি কীর্তিও গড়লেন তারা-

১. বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ভিন্ন তিনটি বয়সের ধাপে গোল করলেন মেসি। অনূর্ধ্ব-১৯, ২০ ও ৩০ দলে খেলে বিশ্বমঞ্চে গোলের কৃতিত্ব গড়লেন। ২০০৬ বিশ্বকাপে তার একমাত্র গোল এসেছিল সার্বিয়া ও মন্টেনেগ্রোর বিপক্ষে। ১৯ বছর বয়স হতে তখন বাকি ছিল আরও সাতদিন। ২০১৪ বিশ্বকাপে করেন চার গোল, এর প্রথমটি ২৬ বছর ৩৫৭ দিন বয়সে। রাশিয়া বিশ্বকাপে গোল পেলেন ৩১তম জন্মদিন পালনের দু’দিন পর।

২. বিশ্বকাপে গতবার চারটি গোল করেছিলেন মেসি। শেষটা ছিল গ্রুপপর্বে। নাইজেরিয়ার বিপক্ষে ৩-২ গোলের জয়ে জোড়া লক্ষ্যভেদ করেছিলেন তিনি। এরপর ফাইনালে ওঠার পথে আর কোনো গোল পাননি। ২০১৪ থেকে ২০১৮- বিশ্বকাপে ১১ ঘণ্টা পর গোল করলেন ছোট ম্যাজিসিয়ান, ৬৬০ মিনিট পর খরা কাটালেন।

৩. মেসি সব মিলিয়ে বিশ্বকাপে গোল করেছেন ছয়টি। তিনটিই নাইজেরিয়ার বিপক্ষে। দিয়েগো ম্যারাডোনা ও গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতার পর আর্জেন্টিনার তৃতীয় খেলোয়াড় হিসেবে তিনটি বিশ্বকাপে গোলের কৃতিত্ব গড়লেন তিনি।

৪. উইলি কাবাইয়েরোর জায়গায় নাইজেরিয়ার বিপক্ষে গোলরক্ষকের দায়িত্ব পান ফ্রাঙ্কো আরমানি। ২৮ বছরে প্রথমবার এক বিশ্বকাপে ভিন্ন দু’জন গোলরক্ষক জায়গা পেলেন আর্জেন্টিনার একাদশে। ১৯৯০ বিশ্বকাপে নেরি পাম্পিদো ও সের্গিও গোয়চোচেয়া দুটি ভিন্ন ম্যাচের শুরুতে ছিলেন। ২০০৬ বিশ্বকাপেও আর্জেন্টিনা দুটি ভিন্ন ম্যাচে খেলিয়েছিল রবের্তো আবনদানজিয়েরি ও লিও ফ্রাঙ্কোকে। জার্মানির বিপক্ষে শেষ ম্যাচে ফ্রাঙ্কো নেমেছিলেন বদলি হিসেবে।

৫. এ নিয়ে দ্বিতীয়বার শেষ মুহূর্তের গোলে বিশ্বকাপে জিতল আর্জেন্টিনা। ২০১৪ বিশ্বকাপে ইরানের বিপক্ষে যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে মেসি করেছিলেন গোল। এবার নাইজেরিয়ার বিপক্ষে রোহো জেতালেন ৮৬ মিনিটের গোলে। কাকতালীয় ব্যাপার হল, ২০১৪ বিশ্বকাপেও নাইজেরিয়ার বিপক্ষে দলকে জেতাতে গোল করেন মেসি ও রোহো।