সাকিবের রেকর্ড ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের লজ্জা

  স্পোর্টস রিপোর্টার ১৫ জুলাই ২০১৮, ০২:৫৩ | অনলাইন সংস্করণ

সাকিব আল হাসান
সাকিব আল হাসান- ছবি ক্রিকেইফো

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বাধীন দলটি ৪৩ রানে অলআউট হওয়ার পর বাংলাদেশের টেস্ট মর্যাদা প্রশ্নবিদ্ধ হয়। সেই লজ্জা এড়িয়ে ফর্মে ফেরার আগেই দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪৪ রানে অলআউট টাইগাররা। যে কারণে অ্যান্টিগায় ইনিংস ও ২১৯ রানের পরাজিত হতে হয় বাংলাদেশকে।

বৃহস্পতিবার শুরু হওয়া জ্যামাইকা টেস্টে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয়ে খেলতে নেমেও একই দশা টাইগারদের। স্বাগতিকদের ৩৫৪ রানের জবাবে ১৪৯ রানেই অললাউট হয়ে যায় সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বাধীন দলটি। ক্যারিবীয় সফরে সর্বশেষ খেলা তিন ইনিংসের একটিতেও দেড়শ রান করতে পারেনি বাংলাদেশ।

সাকিব-তামিমদের লজ্জার টেস্টে ব্যাটিং বিপর্যয় হয়েছে ক্যারিবীয়দেরও। জ্যামাইকা টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নামা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১২৯ রানে অলআউট করেছেন সাকিবরা।

এই প্রথম বাংলাদেশের বিপক্ষে ১২৯ রানের লজ্জায় পড়তে হলো ক্যারিবীয়দের। স্বাগতিকদের এমন লজ্জায় ফেলতে বড় ভূমিকা রেখেছেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

শনিবার দিনের শুরুতে ডেভন স্মিথকে স্টাম্পিং করান সাকিব, একই কায়দায় ফেরান নাইট ওয়াচম্যান হিসেবে ব্যাট করা কিমো পাওয়েলকে। এরপর কিয়েরন পাওয়েলকে ফেলেন এলবিডব্লিউর ফাঁদে। এদিন পানি পান বিরতির আগে মাত্র ৬ ওভার বোলিং করে ১৫ রানে ৩ উইকেট তুলে নেন দেশসেরা অলরাউন্ডার। বৃহস্পতিবার শেষ বিকালে অ্যান্টিগা এবং জ্যামাইকা টেস্টের প্রথম দুই ইনিংসে সেঞ্চুরি করা ব্রাথওয়েটকেও সাজঘরে পাঠিয়েছিলেন সাকিব।

শনিবার মধ্যাহ্ন বিরতিতে যাওয়ার আগে আবু জায়েদ রাহী এবং তাইজুল ইসলাম নেন দুই উইকেট। বিরতি থেকে ফিরে রোস্টন চেস এবং জেসন হোল্ডারের উইকেট তুলে নেন মেহেদি হাসান মিরাজ। এরপর ফের ক্যারিবীয় শিবিরে আঘাত হানেন সাকিব। ইনিংসের ৫৫তম ওভারে মিগুল কামিন্স এবং শ্যানন গ্যাবব্রিয়েলের উইকেট তুলে নিলে ১২৯ রানে অলআউট হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বাংলাদেশ দলের হয়ে সাকিব একাই তুলে নেন ৩৩ রানে ক্যারিবীয় ৬ ব্যাটসম্যানের উইকেট। দেশের বাইরে বাংলাদেশি কোনো বোলারের এটাই সেরা বোলিং ফিগার। এর আগে ২০১৩ জিম্বাবুয়ের হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে ৭১ রানে ৬ উইকেট নিয়েছিলেন পেস বোলার রবিউল ইসলাম।

এনিয়ে দেশের বাইরে পাঁচবার ৫ উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়লেন সাকিব। এছাড়া মোহাম্মদ রফিক দেশের বাইরে তিনবার ৫ উইকেট করে শিকার করেছিলেন।

এদিন ছয় উইকেট শিকারের মধ্য দিয়ে টেস্টে এনিয়ে ১৮বার পাঁচের অধিক উইকেট শিকারের নজির স্থাপন করলেন সাকিব। চারবার নিয়েছেন ছয় উইকেট করে। ২০০৮ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চট্টগ্রামে ৩৬ রানে নেয়া ৭ উইকেটই সাকিবের টেস্ট ক্যারিয়ারের সেরা বোলিং।

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ১৪৯/১০ (তামিম ৪৭, সাকিব ৩২, মুশফিক ২৪, লিটন ১২, তাইজুল ১৮, মিরাজ ৩; হোল্ডার ৫/৪৪)।

দ্বিতীয় ইনিংস: ১০৩/৪ (সাকিব ২৩*, মুশফিক ২৫*)।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস: ৩৫৪/১০ (ব্রাথওয়েট ১১০, হিতমার ৮৬; মিরাজ ৫/৯৩, আবু জায়েদ ৩/৩৮)।

দ্বিতীয় ইনিংস : ১২৯/১০ (চেজ ৩২, পাওয়েল ১৮, হিতমার ১৮ ; সাকিব ৬/৩৩)।

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ ট্যুর অব ওয়েস্ট ইন্ডিজ-২০১৮

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter