মাশরাফির ছয়ে নামার কারণ

  স্পোর্টস ডেস্ক ৩০ জুলাই ২০১৮, ১৩:১৬ | অনলাইন সংস্করণ

মাশরাফি,

অধিনায়ক সত্তা বাদ দিলে মূলত দলের পেস আক্রমণের কর্ণধার তিনি। ক্যারিয়ারের শুরুতেই পেয়ে যান ‘দেশসেরা পেসারের’ তকমা। এখনও সেটি গায়ে সেঁটে আছে। এ পথে একের পর এক ইনজুরির ধকল এবং বয়সকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিয়েছেন। সেই মাশরাফি বিন মুর্তজাই শনিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জেতা ম্যাচে ঝলক দেখিয়েছেন ব্যাট হাতে।

মাশরাফির ব্যাটিংনৈপুণ্য দেখা গেছে অতীতেও। তবে সেটি মিডলঅর্ডারে নয়, লোয়ার অর্ডারে। এদিন ঝলক দেখিয়েছেন মাঝপথে। নেমেছেন ৬ নম্বরে। নিয়মিত ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান ও মোসাদ্দেক হোসেনকে বসিয়ে নামেন তিনি। খেলেন ২৫ বলে ৩৬ রানের দুর্দান্ত এক ক্যামিও।

স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচশেষে সেই প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় ম্যাশকে। তার সরল স্বীকারোক্তি, কোচ স্টিভ রোডসের চাওয়ায় ব্যাটিং অর্ডারে ওপরে উঠে আসা। ৩৫ ওভারের পর তিনি চাচ্ছিলেন রানের গতি বাড়াতে। উনাকে বললাম, আমি যাই। তাতে সম্মতিও দিলেন। তাই ছয়ে উঠে আসা।

তিনি বলেন, ওই পর্যায়ে সোজা শট খেলে কাজ হয় না। তাই ঝুঁকিটা নিয়েছিলাম। আমি ইচ্ছা প্রকাশ করার সঙ্গে সঙ্গে কোচ সমর্থন দিয়েছিলেন। সাহস জুগিয়েছিলেন এই বলে- কেন মিছে মিছে দ্বিধায় ভুগছ; যাও।

মাশরাফির ক্যামিওতে ভর করে ৩০১ রানের স্কোর গড়ে বাংলাদেশ। পরে ২৮৩ রান তুলতে সক্ষম হন ক্যারিবীয়রা। এতে ১৮ রানে জিতে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ ঘরে তোলে টাইগাররা। সাম্প্রতিক সময়ে স্লগ ওভারে বারবার ব্যর্থ হচ্ছেন ব্যাটসম্যানরা। ক্যাপ্টেন ফ্যান্টাস্টিক সেই নক না খেলতে পারলে হয়তো ৩০০ প্লাস স্কোর সম্ভব হতো না।

তবু নিজের কৃতিত্ব স্বীকার করেননি নড়াইল এক্সপ্রেস, ওই সময়ে আমার ব্যাটিং অর্ডারে উঠে আসার সিদ্ধান্তটা কাজে দিয়েছে। দল জিতেছে- সেটিই সবচেয়ে বড়।

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ ট্যুর অব ওয়েস্ট ইন্ডিজ-২০১৮

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter