সাকিব-তামিমদের কব্জির ব্যবহার বাড়াতে হবে: ম্যাকেঞ্জি

  স্পোর্টস রিপোর্টার ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২২:২৪ | অনলাইন সংস্করণ

নিল ম্যাকেঞ্জি
বাংলাদেশ দলের ব্যাটিং পরামর্শক নিল ম্যাকেঞ্জি-ফাইল ছবি

বাংলাদেশের ব্যাটিং পরামর্শক নিল ম্যাকেঞ্জি কাল প্রথম দলের অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন। অনুশীলনের ফাঁকে এই সাবেক দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার জানালেন, কৌশলগত দিক থেকে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের আরও সমৃদ্ধ করাই তার লক্ষ্য

প্রশ্ন: ম্যাচের মতো করে ব্যাটিং অনুশীলনের কারণ?

ম্যাকেঞ্জি: এটা প্রস্তুতির একটা অংশ এবং ছেলেদের চাপে রাখা। সাধারণত অনুশীলনের সময় বাউন্ডারিতে ক্যাচ দিয়ে আউট হলেও কিছু মনে করা হয় না। তাই কোচ স্টিভ রোডস ছেলেদের একটা চাপে ফেলেছেন। বিশ্বের অধিকাংশ ওয়ানডে দল প্রায় সমমানের এবং সে কারণে শেষ ওভারের শেষ বল পর্যন্ত খেলা টিকে থাকে। বড় কোনো ম্যাচে পরিস্থতিগুলো কেমন হতে পারে, এখান থেকে তরুণরা শিখতে পারবে। এটা বোলারদের জন্য খুবই ভালো অনুশীলনও। তারা নিজেদের ফিল্ডিং সাজানোটা দেখে নিতে পারে এবং নিজের সেরা বলটাও করতে পারে।

প্রশ্ন: স্লগ ওভারে ব্যাটিং নিয়ে...

ম্যাকেঞ্জি: কৌশলগতভাবে যে কেউ ভালো অবস্থানে থাকতে পারে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ যেভাবে ব্যাটিং করে, আমি তাদের মতো করে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করতে যাচ্ছি না। তবে স্কিল কাজে লাগিয়ে আমরাও প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক অবস্থানে যেতে পারি। সেজন্য চারটি বৃত্তকে লক্ষ্য করেছি কাভার, পয়েন্ট, মিড উইকেট এবং ৪৫ গজ। বেশ কয়েকজন বিগ হিটার আছে এই দলে। কৌশলগতভাবে যে কেউ ভালো হিটার হতে পারে এবং বড় হিট করার মতো ভালো অবস্থানে যাওয়ার প্রবৃত্তি দেখাতে পারে। যদি প্রতি ওভারে ৬ রান নিতে হয়, আমি চেষ্টা করব এক, দুইয়ের জন্য। আমার মনোযোগ কাভার ও মিড উইকেটের ওপর দিয়ে খেলা। আর ওভারে ১২ রান চাইলে আরও বেশি হিট করতে হবে এবং চড়াও হতে হবে।

প্রশ্ন: অন্য দেশের সঙ্গে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের তুলনা কীভাবে করবেন?

ম্যাকেঞ্জি: বাংলাদেশ খুবই ভালো দল। আমাদের শক্তিমত্তা ব্যবহার করতে হবে। যেমন ব্যাটের ভালো গতি এবং কব্জির ব্যবহার। তুলনায় যাওয়া বেশ কঠিন, ছয়-সাত মাস পর আমাকে জিজ্ঞেস করলে হয়তো বলতে পারব।

প্রশ্ন: বাংলাদেশের দায়িত্ব কতটা উপভোগ করছেন?

ম্যাকেঞ্জি: যে কোনো আন্তর্জাতিক দলের সঙ্গে থাকাই দারুণ ব্যাপার। দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে সময়টা দারুণ উপভোগ করেছি। আর এখানেও সব ছেলেকে আমি চিনি। ব্যাটিংয়ের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দলে আমি মূল্যবান কিছু ভূমিকা রাখতে পারব। অনেক মেধার সম্মিলন দেখতে পাচ্ছি। আগামী বছর বিশ্বকাপ হয়তো প্রথম কোনো পুরস্কার দেবে।

প্রশ্ন: বিগ হিটারের অভাব...

ম্যাকেঞ্জি: খুব বেশি ছক্কা মারার প্রতিদ্বন্দ্বীতা গড়ে তুলতে না গিয়ে দক্ষতাপূর্ণ শট খেলার মাধ্যমে ছেলেদের কাজে লাগানোই আসল। মিস, মিস, ছক্কা, আমি ওয়েস্ট ইন্ডিয়ানদের খেলার এই ধরণটা এখানে বদলাতে চাই। আমি বাংলাদেশের ছেলেদের দেখতে চাই তারা চার, চার এবং চার হাঁকাচ্ছে। আমরা ওভারে ১২ নিতে পারি খুব ভালো তিনটি শটের মাধ্যমে এবং মেধা কাজে লাগিয়ে নির্দিষ্ট জায়গায় বল ঠেলে দিয়ে।

প্রশ্ন: উদ্বোধনী জুটিতে তামিমের সঙ্গী নিয়ে কী ভাবছেন?

ম্যাকেঞ্জি: আমি সবকিছু নতুন করে দেখতে চাই। সবাইকে গড়ে ওঠার জন্য যথেষ্ট সময় দিতে চাই। ওপেনিংয়ে তেমন কোনো সমস্যা দেখছি না। ভালো কিছু বের করে আনার ব্যাপারে আমি ইতিবাচক।

প্রশ্ন: দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে বাংলাদেশের পার্থক্য?

ম্যাকেঞ্জি: খেলায় কখনও পরিবর্তন থাকে না, কিন্তু পরিবেশে অনেক পার্থক্য। সব দেশেরই কিছু কাজের ভালো এবং খারাপের জন্য নিজস্ব পন্থা আছে। আমি মোটামুটি অনেক দেশ ঘুরেছি এবং সে কারণে বিভিন্ন দলের চেহারা এখানে টেনে আনতে পারি। বাংলাদেশের ইতিবাচক বিষয়গুলো ব্যবহার করা প্রয়োজন।

প্রশ্ন: ক্রিকেটাররা কি আপনার সঙ্গে আলোচনা করতে পছন্দ করেন?

ম্যাকেঞ্জি: আমি শুধু কথা বলার জন্যই কথা বলতে চাই না। কিছু কোচ আছে যারা নিজের কত জ্ঞান আছে, সেটা দেখাতে চায়। আমি সে ধরনের মানুষ নই। আমি পেছনে লেগে থেকে কাজ করতে চাই। বাংলাদেশের ছেলেরা শেখার বিষয়ে বেশ উন্মুখ এবং তারা সবসময় অনেক প্রশ্ন করে।

প্রশ্ন: বাংলাদেশের কোন খাবার পছন্দ হচ্ছে?

ম্যাকেঞ্জি: মুরগি... (হাসি)।

jugantor-event-এশিয়া-কাপ-২০১৮-86532--1

ঘটনাপ্রবাহ : এশিয়া কাপ ২০১৮

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter