দলে ফিরেই ত্রাতা দননজয়া

প্রকাশ : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৮:৩৫ | অনলাইন সংস্করণ

  স্পোর্টস ডেস্ক

আকিলা দনানজয়া (ফাইল ছবি)

প্রথম সন্তানের আগমনে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে খেলতে পারেননি আকিলা দননজয়া। আর সেই ম্যাচে মুশফিকদের বিপক্ষে ১৩৭ রানে পরাজিত হওয়া লংকানরা এখন খাদের কিনারায়।

আজ আফগানিস্তানের বিপক্ষে হারলেই এশিয়া কাপ শেষ হয়ে যাবে শ্রীলংকার। 

এমন কঠিন সমীকরণের ম্যাচে ফিরেই দলের ত্রাতার ভূমিকায় আকিলা। দলকে ব্রেক থ্রু এনে দেন তিনি। এই অফ স্পিনারের বলে বিভ্রান্ত হয়ে সাজঘরে আফগানিস্তানের মারমুখী ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ শাহজাদ।

অবশ্য তার আগে এহসানউল্লাহর সঙ্গে উদ্বোধনীতে ৫৭ রান যোগ করেন শাহজাদ। সাজঘরে ফেরার আগে ৪৭ বল খেলে ৩৩ রান যোগ করেন শাহজাদ। 

টস জিতে ব্যাটিংয়ে আফগানিস্তান

টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আফগানিস্তান ক্রিকেট দল। আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে খেলাটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে। 

এশিয়া কাপের উদ্বোধনী খেলায় বাংলাদেশ দলের বিপক্ষে হেরে খাদের কিনারায় উপনীত শ্রীলংকা ক্রিকেট দল। আফগানিস্তানের বিপক্ষে হেরে গেলেই টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাবে হাথুরুসিংহের শীষ্যরা। তাই আজকের ম্যাচটি অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসদের জন্য বাঁচা-মরার লড়াই। 

অন্যদিকে আজ আফগানিস্তান কি পারবে অঘটন ঘটাতে? শ্রীলংকাকে হারাতে? প্রশ্নটা তর্কযোগ্য। তবে রশিদ খানের মতো লেগ-স্পিনার যাদের সম্পদ, সেই আফগানদের স্পিন-ঐশ্বর্য আরও ঋদ্ধ হয়েছে মুজিব-উর-রাহমান ও মোহাম্মদ নবীর মতো খেলোয়াড়ে। 

জীবন-মরণ ম্যাচে না জিতে উপায় নেই শ্রীলংকার। এমন ম্যাচে অফ-স্পিনার আকিলা দনানজয়াকে পাওয়াটা চন্ডিকা হাথুরুসিংয়ের জন্য স্বস্তির বিষয়। তার প্রথম সন্তানের আগমনে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে খেলতে পারেননি তিনি। এ বছর সব ফরম্যাটে আকিলাই শ্রীলংকার খেলোয়াড়দের মধ্যে সবচেয়ে ধারাবাহিক। লাসিথ মালিঙ্গার প্রত্যাবর্তনে লংকানদের শক্তি বেড়েছে। আফগানিস্তানের তুলনায় তাই অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসরা শক্তিতে এগিয়ে। তাই বলে আফগানদের হালকাভাবে নেয়ার কোনো প্রশ্নই ওঠে না।

এবারের এশিয়া কাপের তৃতীয় ম্যাচের ভেন্যু আবুধাবি। দুবাইয়ের মতো সেখানেও প্রচণ্ড গরম। তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ওপর। রাতে শিশির পড়ে। পরে ফিল্ডিং করা দলের বোলারদের গ্রিপ ঠিক রাখা কষ্টকর। শ্রীলংকার জন্য প্রেরণা হতে পারে এই ফরম্যাটে আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলা দুটি ম্যাচেই পাওয়া জয়। এরমধ্যে দ্বিতীয় জয়টি চার উইকেটে। ২০১৫ বিশ্বকাপে।