বেসিসকে এগিয়ে নিতে ঐক্যবদ্ধ নেতৃত্ব দরকার: শোয়েব আহমেদ

  এম. মিজানুর রহমান সোহেল ২৬ মার্চ ২০১৮, ১৫:০৮ | অনলাইন সংস্করণ

বেসিসকে এগিয়ে নিতে হলে ঐক্যবদ্ধ নেতৃত্ব দরকার: শোয়েব আহমেদ মাসুদ

দিন কয়েক বাকি বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) পরিচালনা পর্ষদের ২০১৮-২০ মেয়াদের নির্বাচনের। শেষ মুহুর্তে প্রার্থীরা বেশ ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন নিজেদের নির্বাচনী প্রচারণা নিয়ে। এবারের নির্বাচনে নয়টি পদের বিপরীতে ৩১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। আগামী ৩১ মার্চ অনুষ্ঠেয় বেসিসের এই নির্বাচন নিয়ে এবার কথা হয়েছে বিজনেস অটোমেশন লিমিটেডের পরিচালক শোয়েব আহমেদ মাসুদের সঙ্গে। তিনি প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন ‘টিম হরাইজন’ প্যানেল থেকে।

যুগান্তর: বেসিসের নির্বাচনে কেন আসলেন?

শোয়েব আহমেদ মাসুদ: আইবিএ থেকে লেখাপড়া শেষ করে দেশের জন্য কিছু করবো বলে বিজনেস অটোমেশন লিমিটেড প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে উদ্যোক্তা হিসেবে যাত্রা শুরু করি। প্রায় গত দুই দশকে বিজনেস অটোমেশন লিমিটেডের একঝাঁক পরিশ্রমি সহযোগীদের সঙ্গে নিয়ে দেশি ও বিদেশী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সফলতার অংশীদার হয়েছি। যখন ব্যবসা শুরু করেছিলাম তখন অনুভব করেছি সমাজে উদ্যোক্তাদের কীভাবে দেখা হয়। সেই অনুভব ও পর্যবেক্ষণ থেকেই প্রতিবন্ধকতার জায়গাগুলো চিহ্নিত করার প্রয়াস পেয়েছি। এরই ধারাবাহিকতায়, বেসিসে নির্বাচনের পূর্বে ২ বছর বেশ কিছু উদ্যোগে সরাসরি সম্পৃক্ত থেকে বাস্তবায়নের জন্য ভূমিকা রেখেছি। ২০০৬ সনে নির্বাচিত হয়ে বেসিসের মহাসচিব থাকাকালীন একজন সাধারণ সদস্য হিসেবে চেষ্টা করেছি কীভাবে বেসিসের সদস্যদের সেবা বৃদ্ধিসহ সমস্যার সমাধান করা যায়। পরবর্তীতে কিছু ব্যবসায়িক প্রকল্পের কারণে বেসিসে নির্বাচন না করলেও বিভিন্ন কমিটির সদস্য হিসেবে বেসিস সদস্যদের জন্য এবং আইটি ইন্ডাস্ট্রি বিষয়ে বেশ কিছু পলিসি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নে সময় দিয়েছি। বর্তমানে আইটি ইন্ডাস্ট্রিতে আমার অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে বেসিসকে নতুন করে কিছু দেওয়ার জন্য এবার আমি নির্বাচন করার চিন্তা করেছি।

যুগান্তর: নির্বাচনে আপনার ইশতেহার কী?

শোয়েব আহমেদ মাসুদ: টিম হরাইজনের যে ইশতেহার তাতে আমাদের সকলের মতের প্রতিফলন ঘটেছে। তবে, আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি কয়েকটি বিষয় দ্রুত বাস্তবায়ন করা গেলে বেসিস সদস্যদের জন্য আইটি ইন্ডাস্ট্রিতে সুদূরপ্রসারী ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে। প্রথমত, বেসিস সদস্যদের জন্য সম্প্রতি উদ্যোগ নেয়া ‘ওয়ান স্টপ সেবা’ বাস্তবায়ন ও সম্প্রসারণ খুবই জরুরি। যেখানে আমার প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা কাজে লাগবে। এতে বেসিসের বিভিন্ন সেবার জন্য দ্রুত, মানসম্মত ও অনলাইন সেবা নিশ্চিত করা যাবে। আমাদের অনেক উদ্যোক্তাদের প্রাতিষ্ঠানিক ধারণা, জ্ঞান, কৌশল বা অভিজ্ঞতা না থাকায় প্রতিযোগিতামূলক বাজারে তাদের ব্যবসা করার জন্য প্রতিবন্ধকতা পাচ্ছেন। তাদের ব্যবসায়িক সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য বিদ্যমান প্রশিক্ষণ ছাড়াও ই-জিপি ও মানসম্মত প্রকল্প প্রস্তাব লেখার প্রশিক্ষণ, ট্যাক্স-ভ্যাট ও আইনি বিষয়ে রেফারেন্স ডকুমেন্ট সহায়তা, অভিজ্ঞ উদ্যোক্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় ও পরামর্শ সেশনসহ অন্যান্য কর্মসূচি নিয়মিতভাবে চালানোর ব্যাপারে আমি সচেষ্ট থাকব। দেশীয় উদ্যোক্তাদের স্বার্থ রক্ষার্থে পিপিআর সংশোধনের চলমান উদ্যোগটি সম্পন্ন করা ও সরকার হবে নন-ট্যারিফ সাপোর্ট দেয়ার বিষয়টি কিভাবে বাস্তবায়ন করা যায়, তার জন্য সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে নিয়ে উদ্যোগ গ্রহণ করব। তাছাড়া, আমাদের কস্ট অব ডুয়িং বিজনেস কমানোর সম্ভাব্য খাতগুলি নিয়ে কাজ করার আগ্রহ আছে।

যুগান্তর: নির্বাচিত হলে ইশতেহার বাস্তবায়নে কোনো পরিকল্পনা করেছেন কী?

শোয়েব আহমেদ মাসুদ: বেসিসের সঙ্গে গত ১৪ বছর ধরে সম্পৃক্ততা আমার। ২ বছর কার্যনির্বাহী পরিষদে আর বাকি ১২ বছর বিভিন্ন কমিটিতে থেকে অনেক কাজ সফলভাবে বাস্তবায়নের সম্যক ধারণা ও অভিজ্ঞতা আছে। ইন্টারনেট মূল্য হ্রাস, আইটি সেবাখাতকে আয়কর অব্যাহতি প্রদান, মেম্বারশিপ সার্টিফিকেট প্রচলন, অনলাইনে ইউটিলিটি বিল পরিশোধ সহজতর করা, প্রথমবারের মতো বেসিস স্ট্যান্ডিং কমিটি গঠন, সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের এসওপি পেপার, বিভাগীয় পর্যায়ে আইটি পার্ক স্থাপনা সংক্রান্ত পরিকল্পনা, বিদেশে লেনদেনের জন্য বেসিস কো-ব্র্যান্ডেড কার্ড, এক্সপোর্ট রেমিটেন্স গ্রহণকে সহজতর করাসহ অনেক উদ্যোগ গ্রহণে ও বাস্তবায়নে সরাসরি কাজ করার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে একইভাবে এবার ইশতেহারের বিষয়সমূহে কাজ করব। বিগত দিনগুলিতে আমি সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়ে সঙ্গে কাজ করেছি, যা আমি নির্বাচিত হলে অব্যাহত রাখব।

যুগান্তর: ইন্ডাস্ট্রিতে এই মুহূর্তে কোন জিনিসটি সবচেয়ে বেশি দরকার?

শোয়েব আহমেদ মাসুদ: বর্তমানে আমাদের আইটি ইন্ডাস্ট্রিতে দরকার ঐক্যবদ্ধ নেতৃত্ব, যারা ধারাবাহিকভাবে বেসিসের কার্যনির্বাহী কমিটির বিভিন্ন উদ্যোগকে সামনে নিয়ে যাবেন। আমাদের অনেক উদ্যমী ও তরুণ উদ্যোক্তাদের পথ দেখানো ছাড়াও প্রচেষ্টারত দেশীয় প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায়িক প্রতিবন্ধকতা দূর করতে পারলে আমাদের আইটি ইন্ডাস্ট্রি দ্রুতগতিতে বৃদ্ধি পাবে।

ঘটনাপ্রবাহ : বেসিস নির্বাচন ২০১৮

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter